Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

মির্জা ফখরুল অসুস্থ : বিশেষ ব্যবস্থায় আদালতে হাজিরের নির্দেশ

ঢাকা, ০৬ জানুয়ারি : মির্জা ফখরুল অসুস্থ থাকায় তাকে প্রিজন ভ্যানে না এনে বিশেষ ব্যবস্থায় আদালতে হাজির করার জন্য জেলকর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। আসামি পক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার মহানগর হাকিম মোহাম্মাদ সাইফুর রহমান রোববার এ আদেশ দেন।
আসামি পক্ষের আবেদনে বলা হয়, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম অসুস্থ। তার হৃদরোগ, ডায়াবেটিস রয়েছে। যে কারণে তাকে নিয়মিত প্রিজন ভ্যানে না এনে বিশেষ ব্যবস্থায় আদালতে আনা হোক।
শুনানিতে মির্জা ফখরুলের আইনজীবী সানাউল্লাহ মিঞা আদালতকে বলেন, ‘‘ আগামী ৮ জানুয়ারি দুই মামলায় মির্জা ফখরুলের আদালতে রিমান্ড শুনানি অনুষ্ঠিত হওয়ার জন্য ধার্য আছে। বর্তমানে মহাসচিব কাশিমপুর কারাগারে আছেন। তার অসুস্থতার কথা বিবেচনা করে তাকে বিশেষ ব্যবস্থায় আদালতে হাজির করার আবেদন করছি।
শুনানি শেষে বিচারক মির্জা ফখরুলকে বিশেষ ব্যবস্থায় আদালতে হাজির করার নির্দেশ দেন।
এর আগে গত ২ জানুয়ারি গাড়ি ভাঙচুরের দুই মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে গ্রেফতার দেখানো হয়।
সূত্রাপুর এবং মতিঝিল থানার দুই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মির্জা ফখরুলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সতের দিনের রিমান্ড আবেদন করে। ওই তদন্ত কর্মকর্তারা হলেন সূত্রাপুর থানার উপ-পরিদর্শক হেকমত আলী এবং মতিঝিল থানার উপ-পরিদর্শক এস এম আজিজুল হক।
দুই মামলার রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, মির্জা ফখরুলের নির্দেশেই পুলিশের ওপর হামলা এবং গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। মামলার তদন্তের স্বার্থে তাকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা জরুরি।
পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে সূত্রাপুর থানায় করা মামলায় ফখরুলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিন এবং গাড়ি ভাঙচুর এবং অগ্নিসংযোগের অভিযোগে মতিঝিল থানার মামলায় দশ দিন রিমান্ডের আবেদন করা হয়।
গাড়ি পোড়ানো এবং হত্যা চেষ্টার দুই মামলায় হাইকোর্ট থেকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ৬ সপ্তাহের আগাম জামিন পান।
এর আগে গত ২৪ ডিসেম্বর এই দুই মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের জামিন আবেদন খারিজ করে দেয় নিন্মআদালত।
গত ৯ ডিসেম্বর বিএনপি-জামায়াতের নেতৃত্বাধীন ১৮ দলের ডাকা রাজপথ অবরোধে গাড়িতে আগুন দেওয়া ও ভাঙচুরের ঘটনায় ৩৭টি মামলা হয়। সব কয়েকটি মামলাতেই ফখরুল ইসলামকে আসামি দেখানো হয়।
গত ১০ ডিসেম্বর বিএনপি কার্যালয়ের সামনে থেকে ফখরুলকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর দিন মির্জা ফখরুলকে আদালতে হাজির করে রিমান্ডের আবেদন করে পুলিশ। তবে আদালত জামিন এবং রিমান্ড আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেয়। বর্তমানে মির্জা ফখরুল গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে রয়েছেন।