Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

বিদেশী মুসল্লিদের বিশ্ব ইজতেমায় অংশগ্রহণের জন্য ৩০ দিনের ভিসা প্রদানের সিদ্ধান্ত রয়েছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

 কালিয়াকৈর(গাজীপুর) প্রতিনিধি, ০৬ জানুয়ারি : ‘বিরোধীদলের সরকার বিরোধী আন্দোলন দেশের মানুষের ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালনে কোন প্রকার প্রতিবন্ধকতা তৈরি করতে পারবে না। বিশ্ব ইজতেমার মুসল্লিদের সার্বিক সেবাদান, মুসল্লিদের নিরাপত্তাদানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পর্যাপ্ত সংখ্যক সদস্য নিয়োজিত থাকবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মুসল্লিদের নিরাপত্তায় পর্যাপ্ত প্রস্তুতি রয়েছে।’ আগামী ১১ জানুয়ারী থেকে টঙ্গীতে অনুষ্ঠিতব্য ৪৭তম বিশ্ব ইজতেমার সার্বিক প্রস্তুতিমূলক সর্বশেষ পর্যালোচনা মূলক প্রস্তুতি সভায় সভাপতির বক্তব্যে উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী । স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহিউদ্দিন খান আলমগীরের সভাপতিত্বে গাজীপুর জেলা প্রশাসন ও টঙ্গী পৌরসভার যৌথ আয়োজনে এ সভায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ, সরকারি-বেসরকারি দপ্তর-অধিদপ্তরের সেবামূলক প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রধানগণ, বিশ্ব ইজতেমা আয়োজনের সাথে সংশ্লিষ্ট শীর্ষ মুরুব্বীগণ যোগদান করেন। এসময় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, গাজীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল, পুলিশের আইজিপি হাসান মাহমুদ খন্দকার, র‌্যাবের মহাপরিচালক মোখলেছুর রহমান, গাজীপুর জেলা পরিষদের প্রশাসক আখতারুজ্জামান, গাজীপুর জেলা প্রশাসক মোঃ নূরুল ইসলাম, ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মোঃ হাবিবুর রহমান, গাজীপুর জেলা পুলিশ সুপার আব্দুল বাতেন, টঙ্গী পৌর মেয়র এড. মোঃ আজমত উল্লা খান, সাবেক সংসদ সদস্য কাজী মোজাম্মেল হক, ইজতেমার শীর্ষ মুরুব্বী মোঃ এরশাদুল হক, মাওলনা গিয়াস উদ্দিন প্রমুখ।
পর্যালোচনা সভায় বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে জেলা পুলিশ, ডেসকো, সড়ক ও জনপদ বিভাগ, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, ওয়াসা, তিতাস গ্যাস, বিটিসিএল, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, বাংলাদেশ রেলওয়ে, ঢাকা সিটি কর্পোরেশন (উত্তর), ফায়ার সার্ভিস, সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইউনিট, ইজতেমা পরিচালনা কমিটির শীর্ষ মুরুব্বীসহ সকল প্রতিনিধিদের সাথে ইজতেমা মাঠের সার্বিক প্রস্তুতির কার্যক্রমসমূহ, আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ ও বিভিন্ন সেবামূলক কাজের অগ্রগতি নিয়ে চূড়ান্ত প্রতিবেদন পেশ করা হয়। এসময় পর্যালোচনা সভায় অংশগ্রহণকারী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাবৃন্দ, সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের প্রতিনিধিবৃন্দ ইজতেমা আয়োজনের সার্বিক কার্যক্রমের অগ্রগতির বিবরণ তুলে ধরেন।
পর্যালোচনা সভার সভাপতি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহিউদ্দিন খান আলমগীর ইজতেমা আয়োজনের সার্বিক প্রস্তুতিমূলক কাজের অগ্রগতি বিষয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন ও এখনও যে সকল কার্যক্রম সুচারুভাবে সুসম্পন্ন হয়নি তা আগামী ৯ জানুয়ারির মধ্যে সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশ প্রদান করেন। পরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী স্থানীয় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরে বলেন, টঙ্গীতে এবারের ৪৭তম বিশ্ব ইজতেমা আয়োজনে সরকারের পক্ষ থেকে সার্বিক প্রস্তুতি ও সেবামূলক কাজের পর্যাপ্ত সহযোগিতা রয়েছে। সভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মুসল্লিদের সার্বিক নিরাপত্তাদানের জন্য সার্বক্ষণিক বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পর্যাপ্ত সংখ্যক সদস্য নিয়োজিত থাকবে। বিদেশী মুসল্লিদের বিশ্ব ইজতেমায় অংশগ্রহণের জন্য ৩০ দিনের সাধারণ ভিসা প্রদান ও বিশেষ ক্ষেত্রে ৪৫ দিনের ভিসা প্রদানের সিদ্ধান্ত রয়েছে বলে জানান। বিদেশী কোন অপশক্তি ইজতেমার সুযোগ নিয়ে কোন অপঘাতমূলক কর্মকান্ড যাতে না করতে পারে, পররাষ্ট্র ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় সেদিকে সার্বক্ষণিক নজর রাখছে। তিনি আরো বলেন, ইজতেমা মাঠে মুসল্লিদের পানি সরবরাহ, প্রাথমিক চিকিতসা, সার্বক্ষণিক বিদ্যুত সরবরাহ, বাংলাদেশ রেলওয়ে মুসল্লিদের যাতায়াতে অতিরিক্ত ট্রেন সার্ভিস চালু, বিআরটিসি অতিরিক্ত বাস সার্ভিস চালু, মুসল্লিদের ওযু ও গোসলের পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধাসমূহ বৃদ্ধি করা হয়েছে।
স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমা আয়োজন, সমাবেশে মুসল্লিদের সার্বিক সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ইজতেমা মাঠের অবকাঠামোগত উন্নয়ন ৯৪ কোটি টাকা বরাদ্ধ দিয়েছেন। টঙ্গী পৌর মেয়র এড. আজমত উল্লা খান বলেন, টঙ্গী পৌরসভা প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের পানি সরবরাহসহ সার্বিক প্রস্তুতিমূলক কাজে নিয়োজিত রয়েছে। গাজীপুর জেলা প্রশাসক মোঃ নূরুল ইসলাম বলেন, গাজীপুর জেলা প্রশাসন টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের সার্বিক সেবাদানে দিন রাত কাজ করে যাচ্ছে। গাজীপুর জেলা পুলিশ সুপার আব্দুল বাতেন বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের সার্বিক নিরাপত্তার দিকটি সার্বক্ষণিক মাথায় নিয়ে ইজতেমা মাঠে দায়িত্ব পালন করবেন।