Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

যুক্তরাষ্ট্রের তিন রাজ্যে সমকামী বিয়ের হিড়িক

নতুন বছরকে বরণ করতে মঙ্গলবার রাতভর সারা বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ছিল নানা মাত্রিক আয়োজন। এ রাতে খুব কম মানুষই ঘুমিয়ে কাটিয়েছেন। তারা নতুন বছরে জীবনকে উৎফুল্ল আর আনন্দের মাঝে কাটানোর যেন দীক্ষা নিয়েছে। তবে ইংরেজি নতুন বছরকে বরণ করতে যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ডে বসেছিল অন্যরকম এক আনন্দ আয়োজন। এদিন থেকেই সেখানে সমকামীতে অর্থাৎ পুরুষের সঙ্গে পুরুষের আবার নারীর সঙ্গে নারীর বিয়ে বৈধতা পেয়েছে। গত ৬ই নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সময় এর স্বপক্ষে ভোট দিয়ে এ ধারাকে বৈধতা দিয়েছে জনগণ। তাই ম্যাসন-ডিক্সন লাইনে প্রথম বিয়ের পিড়িতে বসলেন দুই পুরুষ জেমস স্কেল (৬৮) ও তার বন্ধু উইলিয়াম তাসকার (৬০)। সিটি হলে এ বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাল্টিমোরের মেয়র স্টিফানি রাউলিং-ব্লেক। জেমস স্কেল ও উইলিয়াম তাস্কারের মধ্যে ৩৫ বছর ধরে সমকামিতা চলছে। তবে এবারই তারা বৈধতা পেলেন। তাই বিয়ের ঠিক পূর্ব মুহূর্তে জেমস স্কেলস বলেন, বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে যে আমাদের বৈধতা দেয়া হয়েছে। আমরা প্রকাশ্যে বিয়ে করতে পারছি। এ সিটি হলেই ওই রাতে বিয়ে করেন আরও ৬ জোড়া পুরুষ। ওই রাজ্যের এইতো শুধু একটি অংশের খবর। এর বাইরে রাজ্যজুড়ে কতগুলো সমকামীর বিয়ে হয়েছে তার সঠিক হিসাব কেউ বলতে পারেন না আপাতত। তবে এ বিয়ে বৈধতা পাওয়ায় সামাজিক রীতিতে পরিণত হয়েছে সমকামীতে বিয়ে। তাই প্রকাশ্যে সাধারণ বিয়ের অনুষ্ঠানের মতো আয়োজন করা হয় এ বিয়ে। বাল্টিমোর থেকে এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা এপি। এতে আরও বলা হয়, জেমস স্কেল ও উইলিয়াম তাসকারের বিয়ের অনুষ্ঠানে মেয়র রাউলিং ব্লেক বলেছেন, সত্যিকার বিয়ে হলো বিশ্বের সবচেয়ে পবিত্র সম্পর্ক। এ রাতে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন ব্রিজিত রোনেত। তিনি বয়ে করেছেন লিসা ওয়ালথার নামে আরেক নারীকে। তিনি বিয়ের পর বলেছেন, আমি এতদিন স্বপ্ন দেখতাম কেন্দ্রীয়ভাবে সমকামী বিয়েকে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। নভেম্বরের নির্বাচনে মেরিল্যান্ড, মেইনে ও ওয়াশিংটনে সমকামীতে বিয়েকে বৈধতা দিয়েছেন ভোটাররা। এর ফলে মঙ্গলবার মধ্যরাতের পর পরই ওই তিন রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় শুরু হয় সমলিঙ্গে বিয়ের উৎসব। ব্রিজিত রোনেত (৫১) বিয়ে করেছেন লিসা ওয়ালথার (৫১)কে। তাদের বিয়েও সম্পন্ন হয়েছে সিটি হলে। এরপর ব্রিজিত রোনেত বলেছেন, ৬ই ডিসেম্বর থেকে সমকামী দম্পতিরা বিয়ে করার লাইসেন্স পাচ্ছেন। তবে তা কার্যকর হয়নি নতুন বছর না আসা পর্যন্ত। ২০১১ সালে এ রাজ্যে সমকামী বিয়ের প্রস্তাব রাজ্যের সিনেটে পাস হয়। কিন্তু হাউজ অব ডেলিগেশনে তা স্থগিত ছিল। বাল্টিমোরের আর্চবিশপ এডউইন ও’ব্রাইন একটি চিঠিতে লিখেছিলেন গভর্নরের বিশ্বাসের বিপরীত ধারণা হলো সমলিঙ্গে বিয়ে। তারপর থেকেই তা আটকে যায়।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট