Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

মালয়েশিয়ায় জনশক্তি রপ্তানি : ১৩ জানুয়ারি থেকে ইউনিয়ন তথ্য কেন্দ্রে নিবন্ধন

 ঢাকা, ০১ জানুয়ারি : মালয়েশিয়ায় সরকারি পর্যায়ে (জিটুজি) কর্মী পাঠানোর জন্য আগ্রহীদের নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হচ্ছে আগামী ১৩ জানুয়ারি । মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে ১০ হাজার কর্মীর জন্য আনুষ্ঠানিক অনুরোধপত্র পেয়েই নিবন্ধনের তারিখ ঘোষণা করে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। প্রতারণার সুযোগ বন্ধ করতে কেবল ইউনিয়ন তথ্য ও সেবাকেন্দ্রে এ নিবন্ধনের নিয়ম করা হয়েছে।
সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন জানান, ১৩ জানুয়ারি থেকে তিন ধাপে মালয়েশিয়ায় যেতে ইচ্ছুক শ্রমিকদের নিবন্ধন করা হবে। সকাল ১০টা থেকে শুরু হবে নিবন্ধনপ্রক্রিয়া। শুধু সারা দেশের প্রতিটি ইউনিয়ন তথ্য কেন্দ্র থেকেই নিবন্ধন করতে হবে। ইউনিয়ন তথ্যকেন্দ্রের বাইরে থেকে নিবন্ধন করার কোনো সুযোগ নেই।
মন্ত্রী জানান, ঢাকা ও বরিশাল বিভাগে ১৩ থেকে ১৫ জানুয়ারি নিবন্ধনকাজ সম্পন্ন করা হবে। এ দুই বিভাগে নিবন্ধিতদের মধ্যে কারা মালয়েশিয়ায় যাওয়ার সুযোগ পাবেন, কম্পিউটারের সাহায্যে স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে লটারির মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের জন্য জনসংখ্যার অনুপাতে বরাদ্দকৃত কোটা অনুযায়ী সেই কর্মীদের তালিকা করা হবে ১৬ জানুয়ারি। একইভাবে রাজশাহী, রংপুর ও সিলেট বিভাগে ১৪ থেকে ১৬ জানুয়ারি নিবন্ধন এবং ১৭ জানুয়ারি লটারি হবে। খুলনা ও চট্টগ্রাম বিভাগে নিবন্ধন করা হবে ১৫ থেকে ১৭ জানুয়ারি। লটারি হবে ১৮ জানুয়ারি। নিবন্ধন করতে আগ্রহীদের যেতে হবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রকল্পের অধীন প্রায় সাড়ে চার হাজার ইউনিয়ন তথ্যকেন্দ্রে। সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী আরো বলেন, এসব তথ্যকেন্দ্রে ‘আগে এলে আগে নিবন্ধন’ ভিত্তিতে নিবন্ধন করা হবে। একবার নিবন্ধন করলেই চলবে। পরে চাহিদাপত্র পাওয়া গেলে তালিকাভুক্তদের মধ্য থেকেই আবেদন নেওয়া হবে। নিবন্ধনের জন্য ৫০ টাকা করে ফি দিতে হবে বলেও মন্ত্রী জানান।
লটারির মাধ্যমে নির্বাচন : নিবন্ধন করার পর ইউনিয়ন তথ্যকেন্দ্রের কম্পিউটারেই উপস্থিত সবার সামনে স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে লটারির মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের জন্য জনসংখ্যা অনুপাতে বরাদ্দকৃত কোটা অনুযায়ী কর্মীদের তালিকা প্রকাশ করা হবে। সারা দেশের সব ইউনিয়ন তথ্যকেন্দ্র থেকে প্রাপ্ত কর্মীর তালিকা সমন্বয়ে আপাতত ৩৫ হাজার কর্মীর একটি প্রাথমিক ডেটাবেইস তৈরি করা হবে। মালয়েশিয়ায় যেতে বিমান ভাড়া, স্বাস্থ্য পরীক্ষা, প্রশিক্ষণ ও অন্যান্য খরচসহ মোট ৪০ হাজার টাকার বেশি খরচ হবে না বলে জানান মন্ত্রী।
প্রতারণা বন্ধের উদ্যোগ : মালয়েশিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশের সমঝোতা স্মারক সই হওয়ার পর এক শ্রেণীর দালাল সিন্ডিকেট সক্রিয় হয়ে উঠেছে। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে কিছু অসাধু কর্মকর্তা ও দালাল দুষ্টচক্র মালয়েশিয়ায় গমনেচ্ছু কর্মীদের অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্নকরণ এবং চূড়ান্তভাবে মালয়েশিয়ায় নিয়োগ পাইয়ে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। ওই দালালদের প্রতারণা বন্ধ করতেই ইউনিয়ন তথ্যকেন্দ্রে নিবন্ধনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে মন্ত্রী জানান।
কর্মীদের যেসব যোগ্যতা থাকতে হবে : মালয়েশিয়ায় যেতে আগ্রহীদের কৃষিকাজে অভিজ্ঞতা থাকতে হবে এবং দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় রাবার বাগানে কাজ করতে আগ্রহী হতে হবে। কর্মীদের বয়স ১৮ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যে হতে হবে। গ্রাম এলাকার প্রকৃত বাসিন্দা হতে হবে। কর্মীর উচ্চতা কমপক্ষে পাঁচ ফুট হতে হবে। ওজন কমপক্ষে ৫০ কেজি এবং মেডিক্যাল ফিটনেস থাকতে হবে। এমনকি সর্বনিম্ন ২৫ কেজি ওজনের সামগ্রী হাতে করে বহনের সক্ষমতা থাকতে হবে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট