Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

আবারও বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সুপারিশ

গ্রাহক পর্যায়ে দুটি বিতরণ কোম্পানির বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সুপারিশ করেছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনে কারিগরি মূল্যায়ন কমিটি। এ বিষয়ে গণশুনানির পর মূল্যায়ন কমিটি জানিয়েছে, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের বর্তমান মূল্যহার ৪ দশমিক ৮৪ শতাংশ বাড়ালে প্রতিষ্ঠানটির পে লোকসান থেকে উঠে আসা সম্ভব হতে পারে। আর ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (ওজোপাডিকো) লোকসান কাটানোর জন্য ৪ দশমিক ১৫ শতাংশ মূল্য বৃদ্ধির সুপারিশ করেছে কমিটি। সর্বশেষ গত ১লা সেপ্টেম্বর থেকে বিদ্যুতের দাম খুচরা পর্যায়ে প্রায় ১৫ শতাংশ এবং পাইকারিতে ১৭ শতাংশ বাড়ানো হয়। এরপর বিদ্যুত বিতরণকারী সংস্থাগুলো আবারো দাম বাড়ানোর প্রস্তাব পাঠায় বিইআরসিতে। এতে গ্রাহক পর্যায়ে গড়ে ১২ শতাংশ পর্যন্ত বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দেয় পিডিবি। আর ওজোপাডিকো ৯ দশমিক ৫৯ শতাংশ মূল্যবৃদ্ধির প্রস্তাব করে।
পিডিবির প্রস্তাবে বলা হয়, ১২ শতাংশ মূল্য বৃদ্ধি করা না হলে তাদের এ বছর ৫১৬ কোটি টাকা লোকসান গুনতে হবে। আর ওজোপাডিকো বলছে, তাদের প্রস্তাবিত মূল্য না বাড়ালে লোকসান দাঁড়াবে প্রায় ৯৬ কোটি টাকা।
ওই প্রস্তাবের ওপর গতকাল গণশুনানির আয়োজন করে বিইআরসি। শুনানিতে কারিগরি মূল্যায়ন কমিটির আহ্বায়ক ও কমিশনের পরিচালক (বিদ্যুৎ) আবুল কাশেম এ দুই কোম্পানির বিদ্যুতের খুচরা মূল্য বাড়ানোর প্রয়োজন রয়েছে বলে মত দেন।
গণশুনানিতে বিদ্যুতের মূল্য ফের বাড়ানোর প্রস্তাবের বিরোধিতা করেন কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) জ্বালানি উপদেষ্টা অধ্যাপক শামসুল আলম।
তিনি বলেন, সরকারের শেষ সময়ে এসে বিদ্যুতের দাম বাড়ালে রাজনৈতিক অস্থিরতা সৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া বিদ্যুতের দাম আরেক দফায় বাড়লে বিভিন্ন সেবা ও পণ্যের দাম বাড়বে। এতে প্রভাব পড়বে সরাসরি ভোক্তাদের ওপর।
তাই ব্যয় ও মুনাফার মধ্যে ঘটতি থাকলে দাম না বাড়িয়ে অন্য কোন পদ্ধতিতে তার সমাধান করা উচিৎ বলে মত দেন তিনি।
বর্তমান সরকার মতায় আসার পর বিদ্যুতের দাম এ পর্যন্ত সাত বার বাড়ানো হয়েছে। গত ২০শে সেপ্টেম্বর বিদ্যুতের দাম সর্বশেষ বাড়ানো হয়।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট