Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

আওয়ামী লীগের কাউন্সিল: উৎসবমুখর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান

ঢাকা: ‘শান্তি, গণতন্ত্র, উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির লক্ষ্যে দিনবদলের প্রত্যয়ে এগিয়ে চলছে প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশ’। এই স্লোগানকে সামনে রেখে আর কিছু ক্ষণের মধ্যেই শুর হতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগের ১৯তম ত্রি-বার্ষিক জাতীয় কাউন্সিল।

সম্মেলনকে ঘিরে উৎসবমুখর হয়ে উঠেছে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও আশপাশের এলাকা। ইতিমধ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ করেছে আয়োজক কমিটি। সকাল থেকেই নেতা কর্মীরা আসতে শুরু করেছে সম্মেলন স্থলে। প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন। এজন্য গোটা  সোহরাওয়ার্দী উদ্যান এলাকা জুরে নেয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

৬৫ বছর বয়সী দলটি এবারই প্রথম কাউন্সিল করছে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। কাউন্সিলকে  ঘিরে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সুবিশাল এলাকাজুড়ে এখন সাজ সাজ রব। উদ্যানের প্রবেশপথগুলোও নানান রঙের পতাকা এবং রং দিয়ে আকর্ষণীয় করা হয়েছে। থাকছে নিরাপত্তা বেষ্টনীর পাশাপাশি স্বাস্থ্য ক্যাম্পও। দুপুরে খায়ার পর্ব।

ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের দক্ষিণ পাশে নৌকা সাদৃশ্য বিশাল আকৃতির মঞ্চ তৈরি করা হয়েছে। ১২০ ফুট নৌকার ওপর ৪৭ ফুট বিস্তৃত জাতীয় স্মৃতিসৌধ ও সুপ্রশস্ত জাতীয় সংসদ সংবলিত সভামঞ্চটি বর্ণিল সাজে সাজানো হয়েছে। প্রায় দুই হাজার ৫০০ স্বেচ্ছাসেবক সম্মেলনে সার্বিক নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবে। তাদের গায়ে থাকবে একই ধরনের অ্যাপ্রোণ, হাতে বাঁশি ও লাঠি।

এদিকে কাউন্সিলকে ঘিরে রাজধানী ঢাকাও সেজেছে বর্ণিল সাজে। সুবিশাল মঞ্চই শুধু নয়, নগরীর গুরুত্বপূর্ণ পথগুলোতে দিনের আলোয় এলিডিতে প্রদর্শিত হবে কাউন্সিল অনুষ্ঠান। নগরীর গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলোকেও সাজানো হয়েছে রং-বেরঙে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুবিশাল প্রতিকৃতি, স্বাধীনতা ও দলীয় পতাকা সংবলিত বিলবোর্ডগুলোতে শোভা পাচ্ছে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক উক্তিগুলো। যে কারণে প্রস্তুতিতে যোগ হয়েছে নতুন মাত্রা।

সকাল ১১টায় শান্তির প্রতীক পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৯তম কাউন্সিল উপলক্ষে ওড়ানো হবে ১৯টি পায়রা। এছাড়া জাতীয় সঙ্গীতের তালে তালে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। অনেকটা নিয়ম রক্ষার এই কাউন্সিলে নেতা কর্মিদের উদ্দেশ্যে আগামী নির্বাচনের প্রস্তুতি সম্পর্কে দিক নির্দেশনা মূলক বক্তব্য দেবেন দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা।

এবারই প্রথমবারের মতো দলীয় প্রধানের সঙ্গে ৭৩টি সাংগঠনিক জেলার সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকও দলীয় পতাকা উত্তোলন করবেন। ত্রিমুখী সভামঞ্চের সামনে থাকছে ৫০ হাজার চেয়ার। পাশে ১২টি টাওয়ারের ওপর থাকবে ১৪/১২ ফুট বিশিষ্ট মঞ্চ ছাউনি। তিন হাজার কাউন্সিলরদের সঙ্গে ডেলিগেট ছাড়াও লাখো নেতা-কর্মী সমর্থকের উপস্থিতি গোটা মহানগরীকেই জানান দেবে।

সম্মেলনকে কেন্দ্র করে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট সংলগ্ন গেট সংরক্ষিত রয়েছে বিশিষ্টজনদের জন্য। গাড়ি নিয়ে আসার প্রবেশপথ থাকবে তিন নেতার মাজার সংলগ্ন গেটের সামনে। হেঁটে সম্মেলনস্থলে প্রবেশের প্রধান পথ হবে টিএসসির গেট। এ ছাড়া রমনা কালীমন্দির গেট, চারুকলা ইনস্টিটিউট গেট দিয়েও প্রবেশ করা যাচ্ছে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট