Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

তুর্কি প্রতিনিধি দলের যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনাল পরিদর্শনের ঘটনায় উদ্বেগ

পূর্বানুমতি না নিয়ে তুর্কি প্রতিনিধি দলের আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনাল পরিদর্শনের ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়েছে সরকার। গতকাল ঢাকায় নিযুক্ত তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মেহমুত ভাকুর আর্কুলকে পররাষ্ট্র দপ্তরে তলব করে ভারপ্রাপ্ত সচিব মুস্তফা কামাল এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, নিজ দপ্তরে আলাপকালে ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্র সচিব রাষ্ট্রদূতের কাছে প্রতিনিধি দলের সঙ্গে তুর্কি সরকারের সংশ্লিষ্টতা ও তাদের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল পরিদর্শনের আগ্রহী হওয়ার বিষয়ে ব্যাখ্যা চান। জবাবে রাষ্ট্রদূত ঢাকা সফরকারী তুর্কি প্রতিনিধি দলকে দেশটির বেসরকারি সংস্থা (এনজিও) উল্লেখ করে এর সঙ্গে তার সরকারে কোন ধরনের সম্পৃক্ততা নেই দাবি করেন। একই সঙ্গে তিনি ট্রাইব্যুনালে চলমান মানবতা বিরোধী অপরাধের বিচারের ব্যাপারে তার সরকারের অবস্থানে কোন ধরনের পরিবর্তন না আসার বিষয়টি স্পষ্ট করেন। রাষ্ট্রদূত আশা করেন, ঘটনাটি আঙ্কারার সঙ্গে ঢাকার বিদ্যমান সম্পর্কে কোন প্রভাব ফেলবে না। প্রতিনিধি দলের ঢাকায় পৌঁছার দিনের (২০ ডিসেম্বর) আগে কেন বিষয়টি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে জানানো হয়নি রাষ্ট্রদূতের কাছে এমন জিজ্ঞাসা ছিল পররাষ্ট্র সচিবের। এ সময় অবহিত থাকলে সফরটি আরও ভাল হতো বলে মন্তব্য করেন তিনি। জবাবে রাষ্ট্রদূত বলেন, সফরটির বিষয়ে ওই দিন বিস্তারিত জানিয়ে তাকে বাংলাদেশ সরকারকে অবিহিত করার বিষয়ে আঙ্কারা থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। তুরস্কের সঙ্গে বিদ্যমান দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আগামী দিনে আরও সুদৃঢ় হওয়ার প্রত্যাশা করে পররাষ্ট্র সচিব রাষ্ট্রদূতকে বলেন, ঘটনাটি ‘অন অ্যারাইভাল ভিসা প্রাপ্তি’র সুযোগের অপব্যবহার বলে মনে করে ঢাকা। কাজটি সঠিক হয়নি বলেও মন্তব্য করে তিনি। সচিব বলেন, এ নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিব্রতকর অবস্থায় রয়েছে। সরকারের ভেতরে বাইরে সমালোচনা হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, কোন বিষয়ে বিভ্রান্তি কিংবা সমস্যা তৈরি করা বন্ধুপ্রতিম কোন রাষ্ট্রের কাজ হতে পারে না। বাংলাদেশ আশা করে ভবিষ্যতে অনাকাক্সিক্ষত যে কোন পরিস্থিতি এড়াতে যে কোন সফরের আগাম তথ্য সরবরাহ করবে তুর্কি সরকার। বৈঠকে বাংলাদেশ সরকারের অবস্থান উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূতকে একটি কূটনৈতিক পত্রও দেয়া হয়েছে। ১৪ সদস্যের তুর্কি প্রতিনিধি দল ২০-২৪শে ডিসেম্বর ঢাকা সফর করে। সফরকালে তারা যুদ্ধাপরাধের বিচার পর্যবেক্ষণের পাশাপাশি আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট্রবিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী, সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়েশন সভাপতি এডভোকেট জয়নুল আবেদীন, আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের প্রধান  কৌঁসুলি গোলাম আরিফ টিপু, আসামিপক্ষের আইনজীবী ব্যারিস্টার আবদুর রাজ্জাক এবং আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক এডভোকেট সুলতানা কামালের সঙ্গে বৈঠক করেন।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট