Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

পদ্মা সেতু মামলা : ‘আগাম জামিনের সুযোগ নেই’

২৬ ডিসেম্বর : পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের অভিযোগে করা মামলার আসামিদের আগাম জামিনের সুযোগ নেই বলে দাবি করেছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রধান কৌঁসুলি আনিসুল হক।
তিনি বলেন, “দুর্নীতি প্রতিরোধ আইন ১৯৪৭ এর ৫(২) ধারায় ক্রিমিনাল মিসকন্ডাক্ট নামে একটি টার্ম রয়েছে । এই বিষয়টিকে ভিত্তি করেই মামলাটি দায়ের করা হয়েছে । ওই ধারায় এ সংক্রান্ত অপরাধের বিপরীতে আগাম জামিনের কোনো বিধান নেই।”
আনিসুল হক বলেন, “আইনত এই ধরনের অপরাধের সর্বোচ্চ শাস্তি ৭ বছরের কারাদণ্ড । এ কারণেই এটা জামিনঅযোগ্য মামলা।”
গত ১৭ ডিসেম্বর মামলা দায়েরের পর প্রধান আসামি সেতু বিভাগের সাবেক সচিব মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া ইতোমধ্যে আগাম জামিন চেয়ে আদালতে আবেদন করেছেন।
মামলা দায়েরের পরদিন ১৮ ডিসেম্বর অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেয় দুদক কর্তৃপক্ষ । তবে এখনো কেউ গ্রেপ্তার হননি।
গ্রেপ্তারের নির্দেশের মধ্যেই ২২ ডিসেম্বর উচ্চ আদালতে মোশাররফের পাশাপাশি জামিনের আবেদন করেন সেতু কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (নদী শাসন) কাজী মো. ফেরদাউস । আজ এর শুনানি হবে।
পদ্মা সেতু প্রকল্পে পরামর্শক প্রতিষ্ঠান হিসেবে কানাডীয় কোম্পানি এনএনসি লাভালিনকে নিয়োগ দিতে অর্থ লেনদেনের ‘ষড়যন্ত্রের’ অভিযোগে মোট সাতজনকে আসামি করে মামলা করেছে দুদক।
বাকি পাঁচ আসামি হলেন- সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) নির্বাহী প্রকৌশলী রিয়াজ আহমেদ জাবের, ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড প্ল্যানিং কনসালটেন্ট লিমিটেডের উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বাংলাদেশে কানাডীয় পরামর্শক প্রতিষ্ঠান এসএনসি লাভালিনের স্থানীয় প্রতিনিধি মোহাম্মদ মোস্তফা, এসএনসি-লাভালিনের সাবেক পরিচালক মোহাম্মদ ইসমাইল, এই সংস্থার আন্তর্জাতিক প্রকল্প বিভাগের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট রমেশ শাহ ও সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট কেভিন ওয়ালেস।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট