Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

‘মিথ্যা নাটক সাজাতে গিয়ে ফেঁসে যাবে পুলিশ’

বন্দর থানার ভেতর রহস্যজনক বিস্ফোরণে নিহত এসআই শাহজাহান পিপিএম’র কুলখানি গতকাল সম্পন্ন হয়েছে। নিহতের পরিবার আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই মৃত্যুর ঘটনায় হত্যা মামলা করবে। তারা শাহজাহানের মৃত্যুর পরে পুলিশের গঠিত তদন্ত কমিটির দেয়া প্রতিবেদনকে গোজামিলের প্রতিবেদন উল্লেখ করে বলেছেন, পুলিশ মিথ্যা নাটক সাজাতে গিয়ে ফেঁসে যাবে। কারণ প্রতিবেদনে মদ ও ইনহেলার নিয়ে যে কারণ শনাক্ত করা হয়েছে বিশেষজ্ঞরা সম্পূর্ণ এর বিরুদ্ধে তথা উল্টো কথা বলেছেন। তারা আরও বলেন, মৃত্যুর ৫দিন পেরিয়ে গেলেও সরকার ও পুলিশ প্রশাসন থেকে নিহত শাহজাহানের পরিবারের কোন খোঁজখবর নেয়নি বলে জানিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা। তাদের অভিযোগ, বীরত্বের জন্য এস আই শাহজাহান দুটি রাষ্ট্রীয় পদক পাওয়ার পরেও তার মৃত্যুর পর পুলিশ হাস্যকর এক তদন্ত প্রতিবেদন তৈরি করেছে। শুধু তাই নয়, পুলিশের কর্তাব্যক্তিরা শাহজাহানের মৃত্যুর ঘটনার জন্য দায়ি ওসি ও সেকেন্ড অফিসারকে বাঁচাতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।
নিহত এসআই শাহজাহানের একমাত্র পুত্র মোরশেদ জাহান শুভ জানান, বাবা মারা যাওয়ার ৫ দিন পেরিয়ে গেলেও পুলিশ প্রশাসন থেকে কেউ একটিবারের জন্যও আমাদের খোঁজ নেয়নি। এমনকি একটি ফোন করেও খোঁজ নেয়নি আমরা কেমন আছি। তিনি বলেন, বাবার শোকে আমার মা প্রায় বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছে। ছোট দুটি বোন বাবা বাবা বলে সারাক্ষণই কেঁদে কেঁদে বুক ভাসায়। শুভ্র বলেন, আমাদের পুরো পরিবার এখনও শোকাহত। তবে আমরা কোনভাবেই এটাকে সহজভাবে মেনে নিব না। বিবিএ ১ম বর্ষের ছাত্র মোরশেদ জাহান শুভ আরো জানান, বাবার কুলখানি গতকাল শুক্রবার দুপুরে সম্পন্ন হয়েছে। এতে বাবার অনেক শুভাকাঙক্ষী ও পরিবারের সকলে উপস্থিত ছিলেন। আমরা কুলখানির জন্য এতদিন আইনগত কোন পদক্ষেপে যাইনি। এখন পরিবারের সিনিয়র সদস্যরা এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিবেন। তবে আমরা হত্যা মামলা করবো এটা নিশ্চিত। কারণ আমরা নিশ্চিত আমার বাবাকে হত্যা করা হয়েছে। মৃত্যুর আগে তিনি তার মৃত্যুর কারণ বলে গেছেন। একজন মৃত্যু পথযাত্রী কখনই শেষ বেলাতে মিথ্যা বলতে পারেন না। শুভ আরও বলেন, বাবার মৃত্যুর পর অনেক শুভানুধ্যায়ী ও গ্রামবাসি সান্ত্বনা দিলেও সরকারের পক্ষ থেকে একটা সান্ত্বনার বাণীও শোনায়নি। তিনি বলেন, জানি না আমাদের কি অপরাধ। মীরপুর থানার মানুষ বাবাকে একজন ভাল অফিসার হিসেবে চিনে। সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার ও বিপুল অস্ত্র উদ্ধারে তার ভূমিকা পুলিশ বিভাগও জানে। বিভিন্ন পত্রিকায় ছবিসহ রিপোর্টও প্রকাশিত হয়েছে। অথচ আইজিপি ও পিপিএম পদক পাওয়া একজন পুলিশ কর্মকর্তা এভাবে রহস্যজনকভাবে নিহত হলেন? শেষাবধি তাকে মদখোর বলে অ্যাখ্যা দিলেন পুলিশেরই কর্মকর্তা। এটা পুলিশ বিভাগের জন্যও অবমাননাকর। শুভ জানান, আল্লাহ সত্যি হলে এর বিচার একদিন ঠিকই পাবে ওই সব অপপ্রচারকারীরা। শুভ অনেকটা ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, পুলিশ হাস্যকর একটি তদন্ত রিপোর্ট জমা দিয়েছে। ইনহেলার (অ্যাঁজমা রোগীর জন্য ব্যবহৃত হয়) বিস্ফোরণে নাকি এসআই শাহজাহান দগ্ধ হয়ে মারা গেছে। তিনি বলেন, শাক দিয়ে মাছ ঢেকে রাখা যাবে না। সত্য একদিন উদঘাটন হবেই। আমরা ঢাকায় ফিরেই প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নিব। নিহত এসআই শাহজাহানের স্ত্রী মিসেস লায়লা সাজু ক্ষীণকণ্ঠে শুধু জানান, আমার সন্তানদের ভবিষ্যত কি হবে? জানা গেছে, এসআই শাহজাহানের দুই মেয়ের একজন ফাতেমাতুজ জোহরা এসএসসি ও এইচএসসিতে গোল্ডেন জিপিএ ৫ পেয়েছে। ছোট মেয়ে সানজিদা জাহান ২য় শ্রেণীতে বার্ষিক পরীক্ষা দিয়েছে।
উল্লেখ্য, ১৩ই ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টায় থানা অভ্যন্তরে ভয়াবহ বিস্ফোরণে দগ্ধ হয়ে গুরুত্বর আহত হয় এসআই শাহজাহান পিপিএম। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে প্রথমে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হলে ১৭ই ডিসেম্বর সোমবার ভোররাত ৪টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট