Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

ইংলাক-দীপু মনি বৈঠক

২১ ডিসেম্বর : থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী ইংলাক সিনাওয়াত্রা দুই দিনের সফরে  শুক্রবার ঢাকায় এসেছেন। এদিন বিকেলে হজরত শাহজালাল বিমানবন্দরে পৌঁছালে তাঁকে লাল গালিচা সংবর্ধনা দেওয়া হয়।
শনিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কার্যালয়ে তাঁর সঙ্গে আনুষ্ঠানিক বৈঠক করবেন থাই প্রধানমন্ত্রী ইংলাক সিনাওয়াত্রা। দুই দেশের আনুষ্ঠানিক বৈঠক শেষে কৃষি খাতে সহযোগিতা এবং দুই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মধ্যে নিয়মিত বৈঠক অনুষ্ঠানের বিষয়ে দুটি সমঝোতা স্মারক সই হবে।
শুক্রবার বিকেল সাড়ে পাঁচটায় ইংলাক সিনাওয়াত্রাকে বহনকারী থাই এয়ারওয়েজের একটি বিশেষ ফ্লাইট দিল্লি থেকে হজরত শাহজালাল বিমানবন্দরে পৌঁছায়। বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর বিমানবন্দরের টারমার্কে সেনাবাহিনীর একটি সুসজ্জিত দল থাই প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অব অনার দেয়। একটি শিশু ইংলাক সিনাওয়াত্রাকে ফুলের তোড়া তুলে দেয়।
পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মন্ত্রিসভার জ্যেষ্ঠ সদস্য, তিন বাহিনীর প্রধান এবং ঊর্ধ্বতন সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে থাই প্রধানমন্ত্রীকে পরিচয় করিয়ে দেন। বিমানবন্দরে এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি, বাণিজ্যমন্ত্রী জি এম কাদের এবং বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটনমন্ত্রী ফারুক খান।
বিমানবন্দর থেকে মোটর শোভাযাত্রায় হোটেল সোনারগাঁওয়ে নিয়ে যাওয়া হয় ইংলাককে। সন্ধ্যায় থাই প্রধানমন্ত্রী ইংলাক সিনাওয়াত্রার সঙ্গে তাঁর হোটেল স্যুটে সৌজন্য সাক্ষাত্ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি। এরপর রাতে রাজধানীর একটি হোটেলে তাঁর সম্মানে ফেডারেশন অব চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (এফবিসিসিআই) আয়োজিত নৈশভোজে যোগ দেন ইংলাক সিনাওয়াত্রা।
দুই দিনের বাংলাদেশ সফরে থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হয়েছেন ৯৮ জন। এঁদের মধ্যে রয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী, শিল্পমন্ত্রী এবং কৃষি ও সমবায় উপমন্ত্রী।
দীপু মনির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত্: পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি আশা প্রকাশ করেছেন, থাই প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা সফর দুই দেশের সম্পর্ক আরও নিবিড় ও সম্প্রসারিত করতে গতিসঞ্চার করবে। আজ সন্ধ্যায় থাই প্রধানমন্ত্রী ইংলাক সিনাওয়াত্রার সঙ্গে বৈঠকের পর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে তাঁর এ আশাবাদের কথা জানানো হয়েছে।
অবশ্য বৈঠকের পর রাজধানীর একটি হোটেলে দীপু মনি সাংবাদিকদের বলেন, দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতার সব বিষয় নিয়ে থাই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। এ ছাড়া বিমসটেকের পাশাপাশি আসিয়ানের মতো জোটে বাংলাদেশকে সহায়তার জন্য তিনি ইংলাক সিনাওয়াত্রাকে ধন্যবাদ জানান।
দিনের কর্মসূচি: ঢাকা সফরের দ্বিতীয় দিনে কাল শনিবার ব্যস্ত দিন কাটাবেন ইংলাক সিনাওয়াত্রা। এদিন সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মধ্য দিয়ে শুরু হবে তাঁর কার্যসূচি। এরপর তিনি ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শনে যাবেন। জাদুঘর পরিদর্শনের পর তাঁর গন্তব্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। সেখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে প্রথমে একান্তে বৈঠক করবেন থাই প্রধানমন্ত্রী ইংলাক সিনাওয়াত্রা। এরপর তাঁরা আনুষ্ঠানিক বৈঠক করবেন। ওই বৈঠক শেষে সই হবে দুটি এমওইউ। এরপর তাঁর সম্মানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া মধ্যাহ্নভোজে যোগ দেবেন ইংলাক সিনাওয়াত্রা।
কাল বিকেল চারটায় ব্যাংককের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়ে যাওয়ার কথা রয়েছে ইংলাক সিনাওয়াত্রার।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট