Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

পদোন্নতি দিয়ে স্বপদে পুনর্বাসন বঞ্চিত কর্মকর্তারা মুষড়ে পড়েছেন

দীন ইসলাম: পদোন্নতি পেলেও আগের পদ ছাড়ছেন না সদ্য পদোন্নতি পাওয়া অতিরিক্ত সচিব, যুগ্ম-সচিব ও উপ-সচিবরা। বিভিন্ন বিভাগ, দপ্তর ও অধিদপ্তরে সংযুক্ত করার পাশাপাশি মন্ত্রণালয়গুলোতেও তাদের সংযুক্ত করা হচ্ছে। তবে স্বাক্ষর করার অনুমতি দিতে নতুন করে একটি পরিপত্র জারি করা হবে। আগামী রোববার বা সোমবার এ ধরনের পরিপত্রটি জারি হতে যাচ্ছে। এতে কয়েক ধরনের শর্ত জুড়ে দেয়া হচ্ছে। যাতে বলা হচ্ছে, অতিরিক্ত সচিব পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা আগের পদে থেকেই দায়িত্ব পালন করবেন। এক্ষেত্রে যুগ্ম-সচিবের পদটি শূন্য হবে না। এছাড়া যুগ্ম-সচিব পদে পদোন্নতিপ্রাপ্তরা আগের পদে থেকেই দায়িত্ব পালন করবেন। তাদের উপ-সচিবের পদটি শূন্য হবে না। উপ-সচিব পদে পদোন্নতিপ্রাপ্তরা আগের পদে থেকেই দায়িত্ব পালন করবেন। তাদের সিনিয়র সহকারী সচিবের পদটি শূন্য হবে না। পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা আগের মতো নিয়ম অনুযায়ী ফাইল পাঠাবেন। পরিপত্রের শেষদিকে বলা হচ্ছে, এটি একটি সাময়িক ব্যবস্থা। কর্মকর্তাদের সঠিক পদে পদায়ন করার পর এ আদেশ বহাল থাকবে না। ওদিকে পদোন্নতি বঞ্চিত কর্মকর্তারা মুষড়ে পড়েছেন। অনেক কর্মকর্তা পদোন্নতি না পেয়ে গতকাল অফিস করেননি। বাসায় বসেই নিজের পদোন্নতি না পাওয়ার কারণ খোঁজার চেষ্টা করেছেন। অনেকে হিসাব মেলাতে পারেননি। তারা বলছেন, পদোন্নতি বঞ্চনার ধারাবাহিক রীতিনীতি থেকে সরকার এবারও বেরিয়ে আসতে পারেনি। এ ধারা অব্যাহত থাকলে সব সময় পদোন্নতিপ্রাপ্তরা কাজের বদলে সরকারকে তোয়াজ করতে ব্যস্ত সময় পার করবেন। অন্যদিকে বঞ্চিতরা দেশের জন্য পুরো সেবা দেবেন না। এছাড়া, অতিরিক্ত সচিব ও যুগ্ম সচিব পদে পদোন্নতি বঞ্চনার লম্বা মিছিলসহ এই প্রথমবার যারা পদোন্নতির স্বাদ গ্রহণ করে উপ-সচিব হতে চেয়েছিলেন তাদের কাছেও ভুল বার্তা পৌঁছে দেয়া হয়েছে। ১৫তম ব্যাচের অর্ধেকের বেশি কর্মকর্তাকে পদোন্নতি থেকে বাদ দেয়া হয়েছে। সিনিয়রদের অনেকে চতুর্থবারের মতো পদোন্নতি বঞ্চিত হয়েছেন। পদোন্নতি বঞ্চনার ক্ষেত্রে প্রশাসন ক্যাডারের বাইরে অন্য ক্যাডার কর্মকর্তাদেরও প্রত্যাশিত সংখ্যায় পদোন্নতি দেয়া হয়নি। কিছু কিছু ক্যাডারকে একেবারে বিবেচনায় আনা হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। গতকাল জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বারান্দায় দাঁড়িয়ে প্রশাসনে দলমত নিরপেক্ষ বলে পরিচিত কর্মকর্তাদের অনেকে তাদের প্রতিক্রিয়ায় বলেন, প্রতিটি সরকার ক্ষমতায় এসে প্রশাসনকে দলীয়করণমুক্ত ও মেধাবী প্রশাসন গড়ে তোলার অঙ্গীকার করে। বলা হয়, প্রকৃত যোগ্য ও দক্ষদের মূল্যায়ন করা হবে। এবার সেক্ষেত্রে উল্টোটা হয়েছে। তারা বলেন, দলবাজ, দুর্নীতিবাজ, সুযোগ সন্ধানী ও সুবিধাবাদী কর্মকর্তাদের কোন সমস্যা নেই। যত সমস্যা নিরীহ কর্মকর্তাদের। প্রতিটি পদোন্নতির সময় তাদের অনেককে পদোন্নতি বঞ্চনার বলি হতে হচ্ছে। এর আগে গতকাল জনপ্রশাসনের তিন স্তরে রেকর্ড সংখ্যক ৬৮২ জন কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ৩৩ জন কর্মকর্তা বিদেশ থেকে ফেরত এলে তাদের পদোন্নতির আদেশ জারি হবে। তবে গত বুধবার ৬৪৯ জন কর্মকর্তার পদোন্নতির আদেশ জারি করা হয়। পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের মধ্যে ১২৭ জন যুগ্ম-সচিব থেকে পদোন্নতি পেয়ে অতিরিক্ত সচিব, ২৬৪ জন উপ-সচিবকে পদোন্নতি দিয়ে যুগ্ম-সচিব এবং ২৫৮ জন সিনিয়র সহকারী সচিব বা সমমানের কর্মকর্তাকে উপ-সচিব পদে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে। এসব পদোন্নতির ফলে জনপ্রশাসনের ৮৪ ব্যাচ, ৮৫ ব্যাচ, ১৩তম, ১৫ তম ব্যাচের বেশির ভাগ কর্মকর্তা পদোন্নতি পেলেন। ওদিকে সদ্য পদোন্নতি পাওয়া ৬৪৯ জন অতিরিক্ত সচিব, যুগ্ম-সচিব ও উপ-সচিবের পদায়ন শুরু হয়েছে। পদোন্নতির পর গত বুধবার রাতেই অনেক কর্মকর্তাকে পদায়ন ও পদোন্নতির পূর্বপদে বহাল রাখার আদেশ জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। গতকাল বিকাল পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, অতিরিক্ত সচিবদের মধ্যে ছয় জন বিভাগীয় কমিশনার এবং তিন জন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনারকে তাদের আগের পদেই রাখা হয়েছে। বিভিন্ন প্রেষণ পদে কর্মরত ৪৪ জন অতিরিক্ত সচিবকেও আগের পদে বহাল রাখা হয়েছে। যুগ্ম-সচিবদের মধ্যে ১৮ জন জেলা প্রশাসক, একজন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার, ছয় জন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, পাঁচ জন আঞ্চলিক সেটেলমেন্ট কর্মকর্তা ও একজন স্থানীয় সরকার বিভাগের বিভাগীয় পরিচালককে তাদের পদোন্নতির পূর্বপদে বহাল রাখা হয়েছে। পদোন্নতি পাওয়া ১৪৬ জন যুগ্ম-সচিবকে তাদের পদোন্নতির আগে কর্মরত মন্ত্রণালয়ে সংযুক্ত করা হয়েছে। প্রেষণে থাকা ৫২ জন যুগ্ম-সচিবকে তাদের পূর্বপদেই প্রেষণে রাখা হয়েছে। উপ-সচিবদের মধ্যে ৮৪ জনকে পদোন্নতির আগে কর্মরত মন্ত্রণালয়ে সংযুক্ত করা হয়েছে। উপ-সচিব পদে পদোন্নতি পাওয়া বিভিন্ন জেলার ৬০ জন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এডিসি) ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) এবং তিন জন জেলা পরিষদের সচিবকেও তাদের পূর্ব পদে রাখা হয়েছে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট