Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

পানি, গ্যাস ও বিদ্যুৎ ব্যবহারে মিতব্যয়ী হোন: প্রধানমন্ত্রী

পানি, গ্যাস, বিদ্যুৎসহ সব নাগরিক সুযোগ-সুবিধার পরিমিত ও সঠিক ব্যবহারের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বলেছেন, এসবের ব্যবহারে সবাইকে মিতব্যয়ী হলে সঙ্কট ও খরচ কমে যাবে। তিনি গতকাল দুপুরে সায়েদাবাদ পানি শোধনাগারের দ্বিতীয় ফেইজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ আহ্বান জানান। প্রধানমন্ত্রী এ সময় বলেন, নদীমাতৃক দেশ বলে আগে আমরা মিতব্যয়ী ছিলাম না। কিন্তু সময়ের প্রয়োজনে আমাদের এখন অবশ্যই মিতব্যয়ী হতে হবে। এজন্য সচেতনতা সৃষ্টি করতে ওয়াসার প্রতি আহ্বান জানান তিনি। সরকারের পাশাপাশি ঢাকার উন্নয়নে নগরবাসীকে এগিয়ে আসার তাগিদ দিয়ে শেখ হাসিনা
বলেন, সবাই মিলে ঢাকাকে বাসযোগ্য নগরীতে পরিণত করতে হবে। ঢাকা মহানগরীর উন্নয়নের প্রতিটি ক্ষেত্রে আমরা অগ্রাধিকার দিয়েছি। বৃষ্টির পানি সংরক্ষণ করে ব্যবহার করার জন্যও নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি। সরকার শিগগিরই প্রকল্পের তৃতীয় পর্যায়ের কাজ শুরু করতে পারবে আশা প্রকাশ করে শেখ হাসিনা বলেন, তৃতীয় পর্যায় বাস্তবায়িত হলে দৈনিক আরও অতিরিক্ত ৪৫ কোটি লিটার পানি সরবরাহ করা সম্ভব হবে। এর ফলে ভূ-গর্ভস্থ পানির ব্যবহার অনেকাংশে কমে যাবে। আমরা এবার দায়িত্ব গ্রহণের পর ঢাকা ওয়াসার পানি সরবরাহ বৃদ্ধির স্থায়ী সমাধানের জন্য একটি দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। গভীর নলকূপের পাশাপাশি এ পরিকল্পনায় রয়েছে পদ্মার পানি ব্যবহার করে মাওয়া ঘাট সংলগ্ন জশলদিয়া এলাকায় পানি শোধনাগার নির্মাণ এবং মেঘনার পানি ব্যবহার করে খিলক্ষেত এলাকায় পানি শোধনাগার নির্মাণ। ঢাকার চারপাশের নদীর দূষণ রোধে তলদেশের বর্জ্য অপসারণ এবং বুড়িগঙ্গাকে দূষণমুক্ত রাখতে তীরের অবৈধ স্থাপনা অপসারণের পাশাপাশি শুষ্ক মওসুমে পানির প্রবাহ বাড়ার লক্ষ্যে যমুনা থেকে পানি আনার প্রকল্প হাতে নেয়ার কথাও বলেন প্রধানমন্ত্রী। শেখ হাসিনা তার বক্তব্যের শুরুতেই বলেন, ওয়াসার লোকেরা সব পারে। এই ওয়াসার মেয়েই তো নিশাত। বাংলাদেশের প্রথম মেয়ে হিসেবে সে এভারেস্টে উঠেছে।
অনুষ্ঠানে বলা হয়, সায়েদাবাদ পানি শোধনাগার ফেজ-২ উদ্বোধনের ফলে ঢাকা নগরবাসী দৈনিক সাড়ে ২২ কোটি লিটার অতিরিক্ত সুপেয় পানি পাবে। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত ভেন্ড অলিং পরের পর্যায়ের কাজের জন্য ১০০ মিলিয়ন ডলার দেয়ার ঘোষণা দেন। সভাপতিত্ব করেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী আশরাফুল ইসলাম। বক্তৃতা করেন স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক, আওয়ামী লীগের স্থানীয় সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান মোল্লা, ডেনমাকের রাষ্ট্রদূত ভেন্ড অলিং। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাকসিম এ খান।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট