Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

জনগণ হরতাল প্রত্যাখান করেছে : হানিফ

যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচানোর হরতাল জনগণ প্রত্যাখান করেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে বিএনপির ডাকা হরতালের বিরোধীতা করে আয়োজিত এক সমাবেশে তিনি সাংবাদিকদের একথা বলেন।

এদিকে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের কর্মীরা বিভিন্ন এলাকা থেকে হরতালবিরোধী মিছিল নিয়ে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে আসতে থাকেন।

কর্মী পরিবেষ্টিত মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, ‘বিএনপির হরতাল ও অবরোধের আসল উদ্দেশ্য যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করা। তারা এসব নৈরাজ্যকর কর্মসূচির মাধ্যমে দেশকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যেতে চাচ্ছে। তাদের এ হরতালের আরেকটা কারণ এ সরকারের উন্নয়ন অগ্রগতিকে ব্যহত করে দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করা।

আগামী নির্বাচন নিয়ে সমাধানে পৌছানোর লক্ষ্যে সংসদের ভিতরে বাইরে আলোচনা হতে পারে উল্লেখ করে হানিফ বলেন, সাংবিধানিকভাবে অবৈধ তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা নিয়ে আওয়ামী লীগ আলোচনা করতে চায় না। প্রধানমন্ত্রী প্রস্তাবিত অন্তরবর্তীকালীন সরকার নিয়ে আলোচনা হতে পারে। এজন্য তিনি বিএনপিকে নৈরাজ্যকর কর্মকান্ড থেকে দূরে সরে সংসদে আসার আহ্বান জানান।

আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বিরোধী দলের নৈরাজ্য দমন করবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে। আওয়ামী লীগ পাল্টা কর্মসূচিতে যাবে না। আওয়ামী লীগ তার পরিকল্পনা মত সামনে এগিয়ে যাবে।

এদিকে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আওয়ামী লীগ ও এর বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ের কার্যালয়ের সামনে জড়ো হতে থাকে। সকাল সাড়ে নয়টার পর থেকে মিছিল নিয়ে জড়ো হতে শুরু করে তারা। আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের ব্যানারে রাজধানীর বিভিন্নস্থান থেকে মিছিল বঙ্গবুন্ধু এভিনিউতে জড়ো হয়।

মিছিলগুলো পল্টন, প্রেসক্লাব, হাইকোর্ট, মতিঝিল, দৈনিক বাংলা, বঙ্গমার্কেট, কাপ্তানবাজারসহ বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ করে।

সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত যুবলীগ সহ অন্যান্য সংগুলো সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে। এতে সহযোগী সংগঠনের নেতারা বক্তব্য রাখেন।

এছাড়া যুবলীগ ও ছাত্রলীগ বৃহস্পতিবার হরতালের দিন শান্তিনগর, মালিবাগ, মিরপুর, পল্লবী, ধানমন্ডিসহ পুরান ঢাকার  বিভিন্ন এলাকায় হরতাল বিরোধী মিছিল করে।

বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ের কর্মীদের সঙ্গে আরো উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক  সম্পাদক আহমদ হোসেন, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এমএ আজিজ, সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও আইন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. সেলিম, যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি মোল্লা আবু কাওছার, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি লিয়াকত শিকদার, সাবেক সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলাম কোতোয়াল, জহির উদ্দিন লিপ্টন, ছাত্রলীগ দপ্তর সম্পাদক শেখ রাসেল প্রমুখ।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট