Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

সিলেটে জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদকের প্রকৌশলীপুত্র খুন

সিলেটে বাসা থেকে ডেকে এনে চাইনিজ কুড়াল দিয়ে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে প্রকৌশলী সজীব সিদ্দিকীকে। তার পিতা জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ সিদ্দিকী। সজীব সিদ্দিকী সিলেটের ছাত্রদলের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলো। সিলেট নগরীর খরাদিপাড়ার আব্দুল্লাহ সিদ্দিকীর বাসার সামনে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সজীবের পিতা আব্দুল্লাহ সিদ্দিকী রাত ৯টায় মানবজমিনকে জানিয়েছেন, গতকাল সন্ধ্যায় একই এলাকার মিল্টনের নেতৃত্বে কয়েকজন সন্ত্রাসী তার বাসায় যায়। এ সময় তারা সজীবকে বাসা থেকে ডেকে বের করে। এ সময় তারা সজীবের সঙ্গে কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে কথা বলছিলো। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীরা চাইনিজ কুড়াল দিয়ে সজীবকে উপর্যুপরি কোপাতে থাকে। এসময় বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার শুরু করে সজীব। তিনি জানান, সজীবের চিৎকার শুনে তিনি বাসা থেকে বের হয়ে দেখেন তার রক্তাক্ত দেহ পাড়ার গলিতে পড়ে আছে। এ সময় তিনি চিৎকার দিলে মিল্টন সহ সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে সজীবকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসেন। এ সময় হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ডাক্তার সজীবকে মৃত ঘোষণা করেন। স্থানীয় লোকজন জানান, ছাত্রদলের উপদলীয় কোন্দলের কারণে খুন হয়েছে সজীব। একই দলের কর্মীরা পাড়ায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে তার ওপর হামলা চালায়। এতে সজীব নিহত হয়েছেন। এদিকে, খবর পেয়ে পুলিশ হাসপাতাল ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। নিহত সজীবের বয়স ২৮ বছর। সে পেশায় প্রকৌশলী হলেও পিতার ব্যবসা দেখাশোনা করতো। একই সঙ্গে সে ছাত্রদলের মীরাবাজার গ্রুপের কর্মী ছিলো বলে জানা গেছে। সজীব সিদ্দিকী খুনের ঘটনা সিলেট শহরে ছড়িয়ে পড়লে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা হাসপাতালে ভিড় জমান। আব্দুল্লাহ সিদ্দিকী জানান, আমার চোখের সামনেই ছেলেকে খুন করা হয়েছে। যারা এসেছিলো তাদের সবার হাতে অস্ত্র ছিলো বলে দাবি করেন আব্দুল্লাহ সিদ্দিকী। এবং তারা একই পাড়ায় বসবাস করে। কয়েকজন বহিরাগত ছিলো বলেও জানান তিনি।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট