Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

জীবননগরে আ’লীগ সমর্থদের তান্ডব , বিএনপি নেতাদের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ

বিএনপির ডাকা দেশব্যাপি অবরোধ চলাকালে চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে বিএনপি-জামাত নেতাদের তান্ডবের পর শেষ বিকালে এবার আওয়ামীলীগ নেতাকর্মিরাও তান্ডব চালিয়েছে।  বিকাল ৩টা থেকে সশস্ত্র অবস্থায় দলের শত শত নেতাকর্মিরা বিএনপি- জামাত নেতাকর্মিদের ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানে ও বাড়িতে ব হামলা চালিয়ে ভাংচুর লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করেছে বলে প্রাপ্ত খবরে জানা গেছে

এ ঘটনার পর চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার ছালেহ উদ্দীন আহম্মেদের নেতৃত্বে অতিরিক্ত দুই পস্নাটুন দাঙ্গা পুলিশ ও দুই জন ম্যাজিস্টেট মোতায়েন করা হয়েছে। চুয়াডাঙ্গার নবাগত জেলা প্রশাসক দেলোয়ার হোসেনও জীবননগরের ঘটনা সর্বক্ষনিক মনিটরিং করছেন।

 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিএনপি- জামাতের অবরোধ চলাকালে সকাল ১১ টার দিকে উপজেলা শহরের বাসষ্ট্রান্ড মোড়ে বিএনপির নেতাকর্মিরা পিকেটিং করার সময় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মিরা পুলিশের সহযোগিতায় তাদের ওপর হামলা চালায় এবং বিএনপির অফিস ভাংচুর করে।

 

এরপর জামাতসহ ১৮ দলের নেতাকর্মিরা সংঘবদ্ধ হয়ে আওয়ামীলীগসহ পুলিশের উপর পাল্টা হামলা চালালে গোটা উপজেলা শহর রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। পুলিশ এ সময় কয়েক রাউন্ড শটগানের গুলি করলে পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ হয়ে ওঠে। সংঘর্ষ চলাকালে জীবননগর থানার ওসি শাহাজান খাঁন এবং তিন জন পুলিশ কনস্টেবলসহ উভয় দলের ২৫ জন আহত হয়েছে।

 

সংঘর্ষের সময় গোটা উপজেলা শহরের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে ১৮ দলের নেতাকর্মিরা আওয়ামীলীগ অফিস ও  নেতাকর্মিদের ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর করে। এ সময় একটি ট্রাকসহ আওয়ামলীগ নেতাকর্মিদের ১৮টি মটর সাইকেল আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়। দুপুর ২টা পর্যমত্ম গোটা উপজেলা শহর বিএনপি- জামাত নেতাকর্মিদের দখলে থাকলেও বিকাল ৩টার পর শহরের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় আওয়ামলীগ। এ সময় আওয়ামলীগের নেতাকর্মিরা সশস্ত্র অবস্থায় জামাত নেতার ওয়ালটনের শো রুমে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে। শোরুমে থাকা অন্তত ২৫টি মোটর সাইকেল ও ৩০টি ফ্রিজ ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়। এপরপর তারা হাজী ক্লথ স্টোরে হামলা চালিয়ে লুটপাট করে। সবশেষে জীবননগর পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ড সদস্য বিএনপি নেতা নাসির উদ্দীন ঠান্ডুর বাড়িতে হামলা চালিয়ে তাতে আগুন দেয়।

 

চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার ছালেহ উদ্দীন আহম্মেদের সাথে বিকালে  যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, জীবননগরে অতিরিক্ত দাঙ্গা পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি এখন কিছুটা শামত্ম রয়েছে।জেলা প্রশাসক দেলোয়ার হোসেন জানান, জীবননগরের ঘটনা মনিটরিং করতে দুই জন ম্যাজিষ্ট্রেটকে জীবননগরে পাঠানো হয়েছে।

 

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট