Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

পদ্মা প্রকল্পে লুণ্ঠনের কথা ফাঁস হয়েছে : মির্জা ফখরুল ইসলাম

৫ ডিসেম্বর : বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, পদ্মা সেতু প্রকল্পে লুণ্ঠনের কথা ফাঁস হয়ে গেছে। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) এত দিন পদ্মা সেতুতে কোনো দুর্নীতি হয়নি বললেও আজ তারা বাধ্য হয়ে নতুন প্রতিবেদন দিয়েছে।
বুধবার ‘গণতন্ত্র মুক্তি’ দিবস উপলক্ষে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন। নব্বইয়ের ডাকসু ও সর্বদলীয় ছাত্র ঐক্য এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।
গত ২৮ নভেম্বর বিএনপির নেতৃত্বাধীন ১৮-দলীয় জোটের সমাবেশ থেকে ৬ ডিসেম্বরকে ‘গণতন্ত্র মুক্তি’ দিবস হিসেবে পালনের ঘোষণা দেওয়া হয়।
আলোচনা সভায় বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘তবে দুর্নীতিতে সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী আবুল হোসেন ও প্রধানমন্ত্রীর অর্থবিষয়ক উপদেষ্টা মসিউর রহমানের নাম বাদ দিয়ে অভিযোগ দায়েরের চেষ্টা চলছে।’ তিনি বলেন, ‘কিন্তু আমাদের বিশ্বাস, শেষ পর্যন্ত এ মামলায় আবুল হোসেনকে ঢোকাতেই হবে।’
মির্জা ফখরুল বলেন, দুদকের প্রতিবেদনে সাবেক মন্ত্রী আবুল হোসেনসহ ১০ জন জড়িত বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এই একটি কারণেই প্রধানমন্ত্রী ও সরকারের পদত্যাগ করা উচিত।
যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বিজয়ের মাসে কর্মসূচি দিয়েছেন কি না—প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, আমরা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার অবশ্যই চাই। তবে সেটি হতে হবে ন্যায়বিচার। বিচারের নামে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা এবং বিরোধী দলকে নির্মূল করা নয়।’
গত সোমবার প্রধানমন্ত্রী বিজয়ের মাসে বিরোধী দলের কর্মসূচির তীব্র সমালোচনা করে বলেন, ‘যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু হয়েছে। দুঃখের সঙ্গে বলতে হয়, বিরোধীদলীয় নেত্রী এই বিজয়ের মাসে আন্দোলনের কর্মসূচি দিয়েছেন। কিসের আন্দোলন? কার বিরুদ্ধে আন্দোলন? এটা কি যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষার জন্য? পরাজিত শক্তি ডিসেম্বর মাসে আত্মসমর্পণ করায় উনি কি ব্যথা পেয়েছেন? পরাজিত শক্তির সঙ্গে হাত মেলাতে আন্দোলনের কর্মসূচি দিয়েছেন? উনি কি বিজয় চাননি? আর এ কারণেই ডিসেম্বরকে আন্দোলনের মাস হিসেবে বেছে নিয়েছেন?’
মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, বিভিন্ন সমস্যা থেকে জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন খাতে সরিয়ে নিতে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের নেতারা ‘ভিন্ন ভাষায়’ কথা বলছেন।
অবিলম্বে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি জানিয়ে বিএনপির এই নেতা সরকারের উদ্দেশে বলেন, ‘এক দলের আঘাতেই পালাচ্ছে। এখনো ১৮ দল আছে। জনগণ আছে। আন্দোলন শুরু হলে পালানোর পথ থাকবে না।’
বিএনপির মহাসচিব আরও বলেন, ‘১৯৯০ সালের ৬ ডিসেম্বর গণতন্ত্র মুক্ত হয়েছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্য, সেই গণতন্ত্রকে বেশি দিন ধরে রাখা যায়নি। ২২ বছর পর ২০১২ সালে এসে গণতন্ত্র আবার অবরুদ্ধ হয়ে গেছে।’

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট