Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

এগিয়ে যাওয়ার লড়াই আজ

 গতকাল ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের ৭ জন ক্রিকেটার অনুশীলনে এসেছেন। সাংবাদিকদের পাশ কাটিয়ে তারা মেতে উঠলেন ফুটবল নিয়ে। এর পর দীর্ঘক্ষণ চলে তাদের টানা ব্যাটিং অনুশীলন। ক্রিস গেইল, স্যামুয়েলস, ব্রেভোরা কেউ মাঠে আসেননি। তবে অধিনায়কসহ মাঠে তাদের অনুশীলন দেখে বোঝা গেল ব্যাটিং ব্যর্থতায় প্রথম পরাজয় ভুলে ঘুরে দাঁড়াতেই প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা। সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে হেরে ১-০ ব্যবধানে এখন পিছিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল। আজ দ্বিতীয় ম্যাচে সেই  ব্যবধান কমাতে চান তারা। অন্যদিকে বাংলাদেশ দল প্রথম ওয়ানডে জয়ের পর প্রতিটি ম্যাচকে চ্যালেঞ্জই মনে করেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। তবে তা অতিরিক্ত চাপ নেই বলেও তিনি দাবি করেন গতকাল সংবাদ সম্মেলনে। তিনি বলেন, আমাদের জন্য আসলে প্রত্যেকটি ম্যাচই চ্যালেঞ্জ। এমনকি অনুশীলন ম্যাচগুলোও চ্যালেঞ্জের। আমার মনে হয় না একটা ম্যাচ জিতেছি; এ জন্য বাড়তি একটা চ্যালেঞ্জ আছে আমাদের। দ্বিতীয় ম্যাচের জন্য আমরা আগামীকালের (আজ) ম্যাচ জিতলেও যেমন চ্যালেঞ্জ থাকবে হারলেও চ্যালেঞ্জ থাকবে। তবে মনে হচ্ছে না বাড়তি কোন চাপ বা চ্যালেঞ্জ আমাদের আছে।’ আজ খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে সাকাল ৯টায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ৫ ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচটিই খুলনায় শেষ ওয়ানডে। এর পর বাকি তিনটি ওয়ানডে ঢাকায় মিরপুর শের-ই বাংলা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে।
শুক্রবার প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে বাংলাদেশ ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৭ উইকেটে হারিয়ে জয় তুলে নিয়েছে। ২৬৩তম ওয়ানডে ম্যাচে এইটি ছিল বাংলাদেশের ৭৩তম জয়। আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৫ম জয়। আজ বাংলাদেশ ২৬৪ তম ওয়ানডে খেলতে নামবে। আর জয় তুলে নিতে পারলে সিরিজে তারা এগিয়ে যাবে সিরিজ জয়ে লক্ষ্যে। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলও ছেড়ে কথা বলবে না। আর তা প্রথম ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে এমন ঘোষণা করেছিলেন ক্যারিবীয় অধিনায়ক। তাদের লক্ষ্য ছিল পাঁচটি ম্যাচেই বাংলাদেশকে হারানো। আর র‌্যাঙ্কিংয়ের উন্নতির  জন্য পয়েন্ট সংগ্রহ করা। কিন্তু প্রথম ম্যাচটি হেরে তাদের সেই লক্ষ্য কিছুটা হুমকির মুখে পড়েছে। উল্টো বাংলাদেশ ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে গতকালই নিউজিল্যান্ডকে পিছে ফেলে এখন ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ের ৮ম স্থানে উঠে এসেছে। তাই বাকি চারটি ম্যাচ ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল কোন ছাড় দিতে চাইবে না। সেই হিসেবে আজ দ্বিতীয় ওয়ানডে তারা জয়ের জন্য মরিয়া হয়েই মাঠে নামবে। আর দলে আনতে পারেন ছোট কোন পরিবর্তনও। তবে জয়ের আনন্দে ফুরফুরে মেজাজে থাকা বাংলাদেশ প্রথম ওয়ানডে জয়ী দলের কোন পরিবর্তন আনছেন না বলেই জানা গেছে। গতকাল বাংলাদেশ দলের সবাই অনুশীলন করলে মাঠে আসেননি প্রথম ম্যাচ জয়ের নায়ক ম্যাচ সেরা অফস্পিনার সোহাগ গাজী। তবে দলের সবাই নিজেদের মতো করেছেন ব্যাটিং বোলিং অনুশীলন। তবে দলের সবাই ফিট আছে বলেই জানা যায়।
ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে জয়ের পর বড় দলগুলোর মধ্যে কোন দলকে সর্বাধিক ৫ বার হারানোর গৌরব অর্জন করেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের সঙ্গে নিউজিল্যান্ডও হেরেছে ৫ বার। এছাড়া ভারত, শ্রীলঙ্কা ৩ বার করে, ইংল্যান্ড দু’বার এবং দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে একবার করে জিততে পেরেছে বাংলাদেশ। শেখ আবু নাসের স্টেডিয়াম এবার চতুর্থ ম্যাচ জয় করে শতভাগ পয়মন্ত করে তোলার সুযোগ বাংলাদেশের সামনে থাকলেও পরিসংখ্যান বলছে সেটাও বাংলাদেশের পক্ষে নেই। কারণ জিম্বাবুয়ে বাদে এর আগে ২০০৯ সালে ভাঙাচোরা ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ৩-০ এবং ২০১০ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৪-০ এ দু’টি ছাড়া আর কোন দ্বিপক্ষীয় সিরিজে কোন বড় দলের বিরুদ্ধে টানা দুটি জয় পায়নি বাংলাদেশ। লক্ষ্য করলে দেখা যায় টানা দুই ম্যাচ বাংলাদেশ যেমন জিতেনি, এ সিরিজগুলোয় তেমনি প্রথম ম্যাচে জয় পেয়েছে দুই বার। সেদিক থেকে আজ দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ক্যারিবীয়দের আবার হারিয়ে দিলে নতুন একটি রেকর্ড হবে মুশফিক বাহিনীর। দলের বেশির ভাগ জয়ের সাক্ষী হওয়া বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে ছাড়াই বাংলাদেশ দল খেলছে এ সিরিজ। কিন্তু প্রথম ওয়ানডেতে তাকে ছাড়া নতুন চারটি মুখ নিয়ে খেলে জিতেও সব আশঙ্কা উড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। কিন্তু আবারও জিতবে বাংলাদেশ এমনটা আগে থেকেই মনে করেন না মাশরাফিও। তিনি বলেন, প্রতিটি দলই ম্যাচ জয়ের জন্য নামে। আমরাও নামবো। তবে আমি মনে করি ক্রিকেটে ভাগ্যের সহায়তা লাগে শতভাগ। ভাগ্য আমাদের পক্ষে থাকলে আমরাই জিতব। আর প্রথম ম্যাচ হারের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের অন্যতম বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান বেশ প্রত্যয়ের সঙ্গেই বলেছেন, আমরা অবশ্যই ভালভাবে ঘুরে দাঁড়াবো। এখনও চার ম্যাচ বাকি আছে এবং আমরা এখনও সিরিজ জিততে আশাবাদী। তবে বাংলাদেশের জন্য ভাল সংবাদ হচ্ছে আগের ম্যাচটির মতোই থাকছে আজকের উইকেটও। প্রথম ম্যাচে তিন নম্বর উইকেটে ছিল ধীর গতি এবং বলও ব্যাটে গেছে দেরিতে আর সেইসঙ্গে টার্নও ছিল। আজকের জন্য প্রস্তুত করা ৬ নম্বর উইকেটের আচরণও একই থাকছে। আগের ম্যাচে তাই দলকে সাফল্য এনে দেয়ার মূল কারিগর দুই স্পিনার সোহাগ গাজী ও আবদুর রাজ্জাকের দিকেই থাকছে সবার নজর। টাইগার শিবিরও তাদের দিকে তাকিয়ে থাকবে- এটাই স্বাভাবিক।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট