Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসবাদ বিরোধী লড়াই শেষের পথে: পেন্টাগনের শীর্ষ কমকর্তার মন্তব্য

১ ডিসেম্বর : যুক্তরাষ্ট্রের বিতর্কিত সন্ত্রাসবাদ বিরোধী লড়াইয়ের সমাপ্তি টানার ইঙ্গিত দিলেন একজন শীর্ষ মার্কিন কর্মকর্তা। পেন্টাগনের প্রধান আইনজীবী জে জনসন এক ভাষণে বলেছেন, আল কায়দার বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক অভিযান শেষ হবার নয় বলে মনে করা ঠিক হবে না। এতে স্পষ্ট যে বিষয়টি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের মধ্যে আলোচনা হচ্ছে।
বৃহস্পতিবার এক ভাষণে জনসন ওই মন্তব্য করার পর মনে করা হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের তথাকথিত সন্ত্রাসবাদ বিরোধী লড়াই শেষ হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। নিউ ইয়র্ক ও ওয়াশিংটনে নাইন ইলেভেনের সন্ত্রাসী হামলার পর সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ বুশ ‘সন্ত্রাসবাদ বিরোধী লড়াই’ ঘোষণা করেন।
ওই তত্ত্বের ওপর ভিত্তি করে যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বব্যাপী ইসলামী জঙ্গীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ পরিচালনা এবং পাকিস্তান ও ইয়েমেনের মত দেশে ড্রোন হামলা চালিয়ে আসছে। এর আগে একই অজুহাতে আফগানিস্তান ও ইরাকে আগ্রাসন চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।
শুক্রবার পেন্টাগন জনসনের ওই ভাষণ প্রচার করে। ধারণা করা হচ্ছে, এ নিয়ে তীব্র বিতর্ক শুরু হবে।
তবে ঠিক কখন এই লড়াই শেষ হবে সে সম্পর্কে কোনো ইঙ্গিত দেননি জনসন। অক্সফোর্ড ইউনিয়নের ভাষণে তিনি বলেন, ‘ইয়েমেন ও অন্যত্র এখনো আল কায়দা ও তার সহযোগিরা বিপজ্জনক রয়ে গেছে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর আল কায়দা বিরোধী অভিযান যেহেতু ১২ বছরে পদার্পণ করেছে কাজেই আমাদের আত্ম জিজ্ঞাসা করতে হবে যে এই লড়াই কবে শেষ হবে?’
প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা  নিয়োজিত এই কর্মকর্তা তার দ্বিতীয় মেয়াদে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি জেনারেল নিযুক্ত হবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
২০০৯ সালে পেন্টাগনের জেনারেল কাউন্সেল হিসেবে নিযুক্ত হবার পর থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার ক্ষেত্রে তার বিভিন্ন মন্তব্য নিয়ে বিতর্ক হয়েছে।
নিউ ইয়র্কের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে ও পেন্টাগণের হামলায় ৩ হাজার লোক নিহত হওয়ার পর সাবেক প্রেসিডেন্ট বুশ  সন্ত্রাসবাদ বিরোধী লড়াইয়ের ঘোষণা দেন। তখন কংগ্রেস ওই হামলার সঙ্গে জড়িত ও মদতদাদা ব্যক্তি, সংগঠন ও দেশের বিরুদ্ধে শক্তি প্রয়োগের অনুমতি দেয় বুশকে।
সূত্র : আল জাজিরা

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট