Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

বর্জ্য থেকে ৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন

অবশেষে আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রকল্প। রাজধানীর বর্জ্য থেকে ৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য আগামী ৩ ডিসেম্বর ইতালির প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চূড়ান্ত চুক্তি স্বাক্ষর করতে যাচ্ছে সরকার। চুক্তির ১৮ মাসের মধ্যে শুরু হবে বিদ্যুৎ উৎপাদন। এ প্রকল্প থেকে বিদ্যুতের সঙ্গে সঙ্গে উপজাত পণ্য হিসেবে মিলবে জৈব সার।

এ বিষয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব আবু আলম মো. শহিদ খান বলেন, ‘রাজধানীর বর্জ্য থেকে ৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনে বিজয়ের মাসের ৩ তারিখ আমরা সর্বনিম্ন দরদাতা ইতালিয় প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হতে যাচ্ছি।’

বাংলাদেশে প্রথম বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের ফাইলটি দীর্ঘ ২৭ বছর ধরে চালাচালি হচ্ছে জানিয়ে সচিব বলেন, ‘আমরা এখন সফলতার দ্বারপ্রান্তে। এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে আমরা পরিচ্ছন্ন ও সবুজ ঢাকা গড়তে পারব।’

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ১৩ নভেম্বর সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের প্রস্তাবটি অনুমোদন দেওয়া হয়। এরপর প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সম্মতির পর চূড়ান্ত চুক্তি করা হচ্ছে।

এর আগে গত ২২ নভেম্বর স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে চূড়ান্ত চুক্তির প্রস্তুতি নিয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সভায় ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন, বিদ্যুৎ বিভাগসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। আগামী ৩ ডিসেম্বর ইতালিয় প্রতিষ্ঠান ম্যানেজমেন্ট এনভায়রনমেন্ট ফাইন্যান্স-এসআরএলের সঙ্গে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে। সেখানে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, সচিব, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী, সচিব, ইতালির রাষ্ট্রদূতের উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

প্রকল্পের আওতায় ঢাকার বর্জ্য ফেলার দুটি স্পট আমিনবাজার ও মাতুয়াইলে বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করবে ম্যানেজমেন্ট এনভায়রনমেন্ট ফাইন্যান্স। চুক্তি অনুযায়ী সরকার প্রতি ইউনিট বিদ্যুৎ ৮ টাকা ৭৫ পয়সা দরে প্রতিষ্ঠানটির কাছ থেকে কিনবে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ৬ হাজার ৮৮২ কোটি টাকার এ প্রকল্পে সরকারের কোনও বিনিয়োগ থাকবে না। উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান ‘নির্মাণ মালিকানা পরিচালনা ও হস্তান্তর (বিওওটি)’ পদ্ধতিতে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে। ইতালিয় প্রতিষ্ঠানটি ৬ হাজার ৮৮২ কোটি টাকা বিনিয়োগ তুলে নিতে ২০ বছর বিদ্যুৎ কেন্দ্র দুটি পরিচালনা করবে।

প্রতিষ্ঠানটি চুক্তি স্বাক্ষরের তারিখ থেকে দেড় বছরের মধ্যে ২০ শতাংশ, দুই বছরের মধ্যে ৫০ শতাংশ এবং তিন বছরের মধ্যে ১০০ শতাংশ কাজ বাস্তবায়ন করবে। বিদ্যুতের সঙ্গে সঙ্গে দুটি প্ল্যান্ট থেকে উপজাত পণ্য হিসেবে ৯ লাখ টন জৈব সার পাওয়া যাবে।

স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব কেএম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘দুটি কেন্দ্রে উৎপাদিত বিদ্যুতের মধ্যে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি) ৩০ মেগাওয়াট ও ঢাকা ইলেক্ট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি (ডেসকো) ২০ মেগাওয়াট কিনবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঢাকা শহরে প্রতিদিন প্রায় ৫ হাজার টন বর্জ্য উৎপন্ন হয়। এ বর্জ্যের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা না হওয়ায় পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। অপচয় হচ্ছে জমি। দুটি বিদ্যুৎকেন্দ্রে ৪ হাজার টন বর্জ্য প্রয়োজন হবে।’ একই সঙ্গে দুটি বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ৩ থেকে ৪ হাজার লোকের কর্মসংস্থান করা হবে বলেও জানান তিনি।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট