Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

গার্মেন্ট দুর্ঘটনায় নিহত শ্রমিকদের ৫০ লাখ করে ক্ষতিপূরণ দিতে মালিকদের বাধ্য করুন : অধ্যাপক আসিফ নজরুল

গার্মেন্ট দুর্ঘটনায় শ্রমিক নিহত হলে জনপ্রতি ৫০ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে মালিকদের বাধ্য করতে আইন করার প্রস্তাব দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক আসিফ নজরুল।

প্রধানমন্ত্রী এবং বিরোধীদলের নেত্রীর উদ্দেশ্যে আসিফ নজরুল বলেন, ‘যদি মানুষের প্রতি এতটুকু মায়া থাকে তাহলে আপনারা আইন করুন যে যদি এরকম দুর্ঘটনায় কেউ মারা যায় তাহলে মালিকদের প্রত্যেক শ্রমিককে ৫০ লাখ টাকা করে দিতে হবে। এ ধরনের আইন করলে গার্মেন্ট মালিকরা অবশ্যই সতর্ক হয়ে যাবেন।’

সোমবার বাংলাভিশনের মধ্যরাতের নিউজ অ্যান্ড ভিউজ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
আসিফ নজরুল বলেন, গার্মেন্টের মালিকরা প্রচুর টাকার মালিক। গার্মেন্ট যদি বন্ধ হয়ে যায় তাহলে তাদের তেমন কিছু যায় আসে না। এতে ক্ষতি হবে শ্রমিকের। তা না হলে তারা এতটা অবহেলা করেন কিভাবে। এখানে জরুরি নির্গমন ব্যবস্থা, অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা নেই। ফটকে তালা লাগানো থাকে। এগুলো অবশ্যই অবহেলাজনিত মৃত্যু। এই অবহেলাজনিত মৃত্যুর কারণে মালিকদের কমপক্ষে পাঁচ বছরের জেল হতে পারে। কিন্তু আজ পর্যন্ত কারো শাস্তি হয়েছে বলে জানা নাই।
বিশিষ্ট রাজনৈতিক বিশ্লেষক আসিফ নজরুল বলেন, গার্মেন্টসগুলো বিল্ডিং কোড মেনেছে কিনা রাজউক সেটা দেখে না। ফ্যাক্টরী আইন মানা হয়েছে কিনা কিংবা শ্রম আইন মানা হয়েছে কিনা শিল্প মন্ত্রণালয় তা দেখে না। যেন কারও কোনো দায় নাই।
তিনি আক্ষেপ করে বলেন, টকশোতে এসব আলোচনা অর্থহীন। এগুলোর কোনো ফলাফল নাই। যতদিন এই মানুষ সংগঠিত না হবে কিংবা ব্যাপক চাপ সৃষ্টি করে তাদের অধিকার আদায় না করবে ততদিন এভাবেই চলতে থাকবে।
আসিফ নজরুল বলেন, একটি ফ্লাইওভার দু’বার ভেঙ্গে পড়ে। মারা গেল অসংখ্য মানুষ। যেহেত ফ্লাইওভার ধসে পড়েছে। এর জন্য অবশ্যই যিনি কন্ট্রাক্ট পেয়েছে তিনিই দায়ী। এখানে তদন্ত কমিটি করার কি আছে। প্রথমে তাকে গ্রেফতার করুন তারপর তদন্ত করুন।
তিনি বলেন, এই রাষ্ট্র প্রমাণ করছে এদেশে যতো অসত বাজে লোক আছে তাদের নির্মাণ এবং বিকাশের পেছনে রাষ্ট্র বিরাট ভূমিকা রাখে। আমরা গরিব মানুষেরা সঞ্চয়ের টাকা ব্যাংকে রাখি আর সেই টাকা ব্যাংক যাচ্ছেতাই ব্যবহার করে, তানভীর নামক একজন মুদি দোকানদারকে দিয়ে দেয়। এই লেনদেনের সাথে যদি একজন উপদেষ্টা প্রত্যক্ষভাবে জড়িত না থাকতো তাহলে এটা কখনও সম্ভব হতো না। এই রাষ্ট্র গরিবের শেয়ারের টাকা বড়লোকদের দিয়ে দেয়।
আসিফ নজরুল বলেন, দেশে এক কোটি লোকের থাকার জায়গা নাই। তাদের জমি বড় বড় ব্যবসায়ীদের দিয়ে দেয় রাষ্ট্র। এভাবে প্রতিনিয়ত রাষ্ট্র অর্থাত সরকার নব্য ধনিক শ্রেণী তৈরী করে। সরকার তাদেরই, সেই ধনিকদেরই। মনে হচ্ছে সরকার লুটেরা শ্রেণীর প্রতিনিধি। সরকারে যারা আছেন তারা হয়তো বুঝতে পারছেন না। জনগনের রোষ বেশিদিন আটকে রাখা যাবে না। ওটা যখন ভয়ঙ্করভাবে বিস্ফোরিত হবে সেদিন সরকারকে জবাব দিতে হবে।

গ্রন্থণা : মোশাররফ হোসেন

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট