Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

উনি আসলে চেহারা পাল্টে দিয়ে বাংলাদেশকে আবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন করবেন : খালেদা জিয়াকে ইঙ্গিত করে প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিরোধী দলীয় নেতা আবারো ক্ষমতায় যাওয়ার সুযোগ পেলে বর্তমান সরকারের করা উন্নয়ন ও অর্জনের ধারাও পাল্টে দেবেন, দেশকে নিয়ে যাবেন পেছনের দিকে।
বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া ‘বাংলাদেশের চেহারা পাল্টে দিতে’ তার দলকে আরেকটি সুযোগ দেয়ার জন্য ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানানোর পর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা এই মন্তব্য করলেন।
গত সোমবার বরিশালের ১৮ দলীয় জনসভায় খালেদা জিয়া বলেন, “আরেকবার জনগণের সমর্থন ও সুযোগ চাই। আমি এদেশের চেহারা পাল্টে দেব। বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে একটি মডেল দেশ হিসেবে উপহার দেব।”
বৃহস্পতিবার দুপুরে গণভবনে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময়ের আগে প্রারম্ভিক বক্তৃতায় শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, অর্থনীতি, তথ্য-প্রযুক্তিসহ বিভিন্ন খাতে বর্তমান সরকারের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “চেহারা পাল্টে দেওয়া বলতে উনি কী বুঝাতে চেয়েছেন? আবার দেশব্যাপী বোমা হামলা হবে? গ্রেনেড হামলা হবে ? উনি তো বলেছেন, চেহারা পাল্টে দেবেন।”
“উনি আসলে চেহারা পাল্টে দিয়ে বাংলাদেশকে আবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন করবেন।… উনি আবার আসলে চেহারা পাল্টে বাংলাদেশকে জঙ্গীবাদের দেশ করে দেবেন”, বলেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আরেকবার সুযোগ দেয়ার আগে দেশের জনগণ বিএনপি নেতৃত্বাধীন বিগত চারদলীয় জোট সরকারের ‘হত্যা, খুন, নির্যাতন ও দুর্নীতির’ বিচার করবে।
বক্তব্যের শুরুতেই তিনি চারদলীয় জোট সরকারের সময়ে শাহ এ এম এস কিবরিয়ার হত্যা, সিলেটে শাহজালালের (রা.) মাজারে বৃটিশ রাষ্ট্রদূত আনোয়ার চৌধুরীর ওপর বোমা হামলা, ২০০৪ সালের ২১ জুলাই সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ও সিলেটের মেয়র বদর উদ্দিন কামরানের ওপর গ্রেনেড হামলার বিষয়গুলো মনে করিয়ে দেন।
২০০১ সালে নির্বাচনের সময় দেশে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর নিপীড়নের ঘটনা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, “তখন হিন্দুদের বাড়িতে তালা দিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তাদের ভোট দিতে যেতে দেবে না।”
এ সময় বিএনপি চেয়ারপার্সনের সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “উনি থাকতে পাঁচশ জায়গায় বোমা হামলা হয়েছিল। উনি আসলে ৬৩ নয়, ৬৪ জেলায় আবার পাঁচশ জায়গায় বোমা হামলা হবে। উনি তো বলেছেনই, চেহারা পাল্টে দেবেন।”
খালেদা জিয়া আবারো সরকারপ্রধান হলে ফের বিরোধী দলের ওপর নির্যাতন শুরু হবে মন্তব্য করে শেখ হাসিনা বলেন, “উনি ক্ষমতায় এসে আবার হত্যাকাণ্ড চালিয়ে যাবেন। উনার চেহারা পাল্টানোর এটাই ইচ্ছা- আমরা যা মনে করি।”
শেখ হাসিনা বলেন, “উনি সব চেহারা পাল্টে দেবেন বলেছেন। উনি বিনা মূল্যে বই দেওয়া বন্ধ করে দেবেন।… উনার কাছে তো পড়াশোনার দরকার নেই। পড়াশোনা ছাড়াই তো প্রাইম মিনিস্টার হওয়া যায়।”
“যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বন্ধ করে দিয়ে তিনি বাংলাদেশের এ চেহারা রাখবেন না। রাজাকার আল-বদরদের প্রতিষ্ঠিত করে- আবার এই দেশের চেহারা পাল্টে দেবেন”, বলেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী।
দেশের চেহারা পাল্টে দিতে গিয়ে খালেদা জিয়া আন্তর্জাতিক আদালতের রায়ে পাওয়া সমুদ্রসীমা মিয়ানমারকে দিয়ে দেবেন কি না- এমন প্রশ্নও তোলেন শেখ হাসিনা।
তিনি বলেন, “উনাদের এই চলাফেরা, এই বাহারি চালচলন কোথা থেকে এলো? ক্ষমতায় থাকতে ব্যাংক ঋণের ওপর সুদই ৪০ কোটি টাকা মওকুফ করিয়েছেন। আমেরিকা, সিঙ্গাপুর আর মালয়েশিয়ায় যে টাকা ধরা পড়ল- তা কোথা থেকে এলো।”
“দুর্নীতিকে নীতি হিসাবে দেখাই উনার নীতি। এভাবেই উনি চেহারা পাল্টে দেবেন।”
এটা জনগণ চায় কি না- সে বিষয়ে তারাই সিদ্ধান্ত নেবে বলেও মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।
আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যদের মধ্যে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা আলাউদ্দিন আহমেদ, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও বস্ত্রমন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও মেসবাহ উদ্দিন সিরাজ, উপ-দপ্তর সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাস এবং কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য সুজিত রায় নন্দী ও এনামুল হক শামীম এই মতবিনিময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট