Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

‘টাকা বড়, নাকি তোর পোলার জীবন’

‘হ্যালো বিমল? তুই কি ঠিক করেছিস? শালা এখনও টাকা ম্যানেজ করতে পারিসনি। এত বড় ব্যবসায়ী। টাকা বড়, নাকি তোর পোলার জীবন বড়? বস খুব খারাপ লোক। বেশি অপেক্ষা করা যাবে না। আমার কথা শুনতে কষ্ট হচ্ছে?’ এপাশে উদ্বিগ্ন বিমলের উত্তর, ‘ভাই,
ম্যানেজ করার চেষ্টা করছি। নগদ এত টাকা হাতে নেই। তোমাদের জমি লিখে দিই।’ এরপর পাল্টা উত্তর এলো, ‘জমি দিয়া বস কী করব? বসের নগদ টাকা দরকার। টাকা নিয়ে একা চলে আসবি। কোনো চালাকি করবি না। আধঘণ্টা পর আবার ফোন দেব।’ এটা কোনো নাটক বা সিনেমার সংলাপ নয়। খোদ অপহরণকারী চক্রের সঙ্গে মোবাইল ফোনে এভাবেই কথা বলছিলেন কেরানীগঞ্জের শুভাঢ্যা থেকে অপহৃত শিশু পরাগ মণ্ডলের বাবা বিমল মণ্ডল। একটি গোয়েন্দা সংস্থার হাতে থাকা মোবাইল ফোনের কথোপকথনের রেকর্ড থেকে  এমন তথ্য নিশ্চিত হয়।
অপহরণকারীরা একটি বাংলালিংক নম্বর থেকে মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে পরাগের বাবাকে ফোন করে বলে, ‘৫০ লাখ টাকা নিয়ে চলে আসবি। এক হাজার টাকা নোটের বান্ডিল আনবি। একটি স্কুলব্যাগে ভরে টাকা আনবি?’ পরাগের বাবা বলে, ‘৩০ লাখ টাকা ম্যানেজ করেছি। স্বর্ণালঙ্কার বিক্রির চেষ্টা করছি।’ ওপাশ থেকে অপহরণকারীরা বলতে থাকে, ‘তুই ঊর্ধ্বতন প্রশাসনকে ব্যাপারটি জানাচ্ছিস? এতে তোর কী লাভ হবে? তুই সন্তানকে জীবিত চাস?’ এপাশ থেকে পরাগের বাবার উত্তর, ‘ভাই, ছেলেটার সঙ্গে একটু কথা বলতে চাই। ও কেমন আছে?’ পাল্টা উত্তর, ‘তোর পোলা ভালো আছে। এখন ঘুমের ওষুধ খাওয়ানো হয়েছে। তুই টাকা নিয়ে দ্রুত রওনা দে।’ এর কিছু সময় পর অপহরণকারীরা ফের ফোন করে বলে, ‘সিএনজি অটোরিকশা নিয়ে একা আসবি। মোটরসাইকেল নিয়ে এলে ভালো।’ পরাগের বাবার উত্তর, ‘ভাই, আমি ড্রাইভিং জানি না।’ অপহরণকারীরা ফের পরাগের বাবাকে কল করে জানায়, ‘এরপর তোর সঙ্গে বেশি কথা বলা যাবে না। পুলিশ-র‌্যাব তোর ফোন রেকর্ড করছে। আমাগো জানের মায়া আছে। টাকা না দিয়ে চালাকি করলে পোলার শেষ রক্ষা হবে না।’ পরাগের বাবা বলেন, ‘ভাই, টাকা ম্যানেজ করেছি। কোথায় আসতে হবে?’ ওপাশ থেকে বলা হয়, ‘তুরাগ ব্রিজের কাছে চলে আয়।’ পরাগের বাবা বলেন, ‘দ্রুত রওনা হচ্ছি।’ এরপর অন্য মোবাইল অপারেটরের একটি নম্বর থেকে ফোন করে অপহরণকারী বলে, ‘তোর ছেলের মুখটা দেখলে মায়া হয়। টাকা দিয়ে দ্রুত ফেরত নে। আমাগো বসের মেজাজ ভালো নাই। টাকা দেওয়া নিয়ে কোনো চালাকি করবি না।’
গত রোববার স্কুলে যাওয়ার পথে মা লিপি ম ল, বোন পিনাকি মণ্ডল ও গাড়িচালক নজরুল ইসলামকে গুলি করে শুভাঢ্যা বাংলাবাজার হীড ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের প্রথম শ্রেণীর ছাত্র পরাগকে (৬) তুলে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। রোববার রাতেই প্রথমে মুক্তিপণ চেয়ে পরাগের বাবার কাছে ফোন করে অপহরণকারীরা। অপহরণকারীরা একাধিক মোবাইল ফোন নম্বর ব্যবহার করে পরাগের বাবার সঙ্গে কথা বলে প্রথমে দুই কোটি টাকা দাবি করে। এরপর এক কোটি টাকা চায়। পরে ৫০ লাখ টাকায় রফা হয়।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


One Response to ‘টাকা বড়, নাকি তোর পোলার জীবন’

  1. S.M.Shamsuzzaman Mukul

    November 17, 2012 at 12:58 pm

    the matter proved that, police administration is so o o o o o o o o o loose….

    [WORDPRESS HASHCASH] The poster sent us ’0 which is not a hashcash value.