Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

‘ওয়ান-ইলেভেনে আর হবে না, হলে হয়তো এর চেয়েও বড় কিছু ঘটতে পারে’

ভবিষ্যতে রাষ্ট্রীয় রোগ-ব্যাধি কোন পর্যায়ে যাবে তা বলা কঠিন বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টি (জেপি) চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু। তিনি বলেছেন, গণতন্ত্র চাইলে নির্বাচন করতে হবে। যে কোন মূল্যে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে লালন-পালন করতে হবে। অনেকে আবার ওয়ান-ইলেভেনের আশঙ্কা করছেন। কিন্তু ওয়ান-ইলেভেনে আর হবে না। হলে হয়তো এর চেয়েও বড় কিছু ঘটতে পারে। আজ রাজধানীর কাকরাইলে ইনস্টিটিউট অব ডিপোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইডিইবি)-এ অনুষ্ঠিত জাতীয় যুব সংহতির দ্বি-বার্ষিক কাউন্সিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, যখনই নির্বাচন কাছে আসে তখনই রাজনীতির তাপমাত্রা বেড়ে যায়। শুরু হয় সংঘাত-রক্তপাত। এর অন্যতম কারণ হচ্ছে পাঁচ বছরে যে অত্যাচার, অন্যায় ও অবিচার করা হয়- সেগুলোর বিরুদ্ধে যে শক্তি দাঁড়িয়ে যায় তা প্রথম সাড়ে তিন বা চার বছরে সরকারগুলো উপলব্ধি করতে পারে না। যখন প্রশাসন একটু গাছাড়া দেয়, যখন আইন-শৃঙ্খলা রাকারী বাহিনী একটু দূরে সরে দাঁড়ায় তখন নিজ দল দিয়ে আর রক্ষা করা সম্ভব হয় না। তিনি বলেন, নির্বাচন নিয়ে ম্যাকানিজম করবেন না। সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের পরিবেশ সৃষ্টি করুন। তা না হলে দেশে সংঘাত হবে, রক্তপাত হতে পারে, এমনকি তখন সত্যিসত্যিই জঙ্গিবাদও চলে আসতে পারে। মতায় থেকে দুর্নীতি, অনিয়ম বা সম্পদের পাহাড়  যা কিছুই করুন-আপত্তি নেই। কিন্তু নির্বাচন ঠিকভাবে করতে হবে। প্রশাসনে দলীয়করণ বন্ধ করতে হবে। প্রতিটি সরকারই আইন-শৃঙ্খলা রাকারী বাহিনীসহ প্রশাসনে নিজেদের লোক বসিয়ে দিয়ে যায়। তখনই অন্যরা এই নির্বাচন বয়কট করতে চায়। কারণ দলীয়করণের কারণে তারা ইতিমধ্যেই খাঁচাবন্দি হয়ে যায়।  সংবিধান সম্পর্কে জেপি চেয়ারম্যান বলেন, আমাদের সংবিধান নিয়ে বৈপরীত্য এত বেশি, এই সংবিধান চলমান রাখা সম্ভব হবে কিনা তা নিয়ে আমার ভয় ও আশঙ্কা হয়। আমার জীবদ্দশাতেই যদি দেখি এই সংবিধান বাতিল হয়ে গেছে তাহলে আশ্চর্য হব না। জাতীয় যুব সংহতির আহ্বায়ক এম এ কাইয়ুমের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব মো. নজরুল ইসলামের পরিচালনায় সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন-জেপির মহাসচিব শেখ শহীদুল ইসলাম, অতিরিক্ত মহাসচিব সাদেক সিদ্দিকী, ভান্ডারিয় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মহিবুল হাসান মাহিম, এজাজ আহমেদ মুক্তা, আবু সাঈদ খান, এটিএম রফিক প্রমুখ। সম্মেলনে এম এ কাইয়ুমকে সভাপতি ও নজরুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক করে জাতীয় যুব সংহতির ১০১ সদস্য বিশিষ্ট কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হয়।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট