Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

‘জামায়াতের শেষ খেলা’

 যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বন্ধে জামায়াত মরণকামড় দেবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। যুদ্ধাপরাধের বিচারের রায় কার্যকর না হওয়া পর্যন্ত দলের নেতা-কর্মীদের রাজপথে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। বলেছেন, এটা জামায়াতের শেষ খেলা আর আমাদের শুরু। গতকাল ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত ‘জামায়াত-শিবিরের সহিংসতা’র প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল-পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। সৈয়দ আশরাফ বলেন, বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়ার মদত ছাড়া জামায়াত-শিবিরের এ হামলা চালানো সম্ভব নয়। বিএনপি-জামায়াত এদেশের মানুষের আসল শত্রু। খালেদা জিয়ার প্রতি অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, আপনি আপনার অবস্থান পরিবর্তন করুন। স্বাধীনতার পক্ষের শক্তির পাশে দাঁড়ান। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবি এখন সর্বজনীন। এটা কারও ব্যক্তিগত দাবি নয়। তাই বিচারের শেষ পর্যায়ে আমাদের ঐক্য আরও প্রয়োজন। দলমত ভুলে গিয়ে ঐক্যবদ্ধ হোন।
আশরাফ বলেন, খালেদা জিয়া ভারত গিয়ে কথা দিলেন কোন জঙ্গিবাদীদের সমর্থন দেবেন না। তিনি ভারতের কাছে কথা দিলেন কিন্তু বাংলার মানুষের কাছে কথা দিলেন না। এ কারণে দেশে আসার পরপরই তার মদতে জামায়াত এ কাজ করতে সাহস পেয়েছে। কোন বিবেকবান মানুষ যুদ্ধাপরাধীদের পক্ষে অবস্থান নিতে পারে না বলে মন্তব্য করেন তিনি।
সভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মহিউদ্দিন খান আলমগীর বলেন, দুই দিনের ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সর্বোচ্চ সহনশীলতার পরিচয় দিয়েছে। এখন থেকে পুলিশ আর সহ্য করবে না এটা আমার নির্দেশ। এ ধরনের দেশদ্রোহিতা সরকার কোনভাবেই সহ্য করবে না। গত তিন দিনে জামায়াত-শিবিরের ১২শ’ নেতাকর্মী গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রয়োজনে আরও গ্রেপ্তার করা হবে। তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের নির্দেশ দিয়ে বলেন, একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে আপনাদেরও দায়িত্ব জামায়াত-শিবির কোন নৈরাজ্যমূলক কর্মকাণ্ড করলে তাদের ঘেরাও করে গ্রেপ্তার  করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা।
তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আজ আপনারা একটি মেসেজ নিয়ে যান। আর তা হলো- পাড়ায় মহল্লায় জামায়াত-শিবিরের কর্মীদের যেখানে পাবেন সেখানেই প্রতিরোধ করবেন।
এডভোকেট সাহারা খাতুন বলেন, জামায়াত-বিএনপির নেতাকর্মীদের ঢাকায় থাকতে দেয়া হবে না। তাদের নির্মূল করতে হবে।
যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা যেমন সত্য যুুদ্ধাপরাধীদের বিচার হবে এটাও তেমন সত্য। আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা বেঁচে থাকতে এ বিচার কেউ রুখতে পারবে না।
ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এমএ আজিজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, আহমদ হোসেন, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া প্রমুখ। পরে বায়তুল মোকাররমের দক্ষিণ গেইট থেকে মিছিল শুরু হয়ে শহীদ মিনারে গিয়ে শেষ হয়।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


One Response to ‘জামায়াতের শেষ খেলা’

  1. mazkurul

    November 27, 2012 at 10:41 pm

    রাজাকারদের বিচার হওয়া উচিত এরা দেশ ও জাতির শএ্ তাই এদের ন্যায্য বিচার চায় বাংলাদেশের জনগন ।