Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

আইনী ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হচ্ছি-সুরঞ্জিত

 দপ্তর বিহীন মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত বলেন, আমার এবং আমার নিরাপরাধ পরিবারকে রক্ষার জন্য কতিপয় সংবাদ মাধ্যমের বিরুদ্ধে আমি আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হচ্ছি। রেলের অর্থ কেলেঙ্কারি নিয়ে গাড়ি চালক আজম খানের বিস্ফোরক বক্তব্য সম্প্রচারকারী সংবাদ মাধ্যমের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ারও ইঙ্গিত করেন। আজ সংসদ ভবনের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে দফতরবিহীন মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেছেন, আজমের ভাষা ও বেশভুষা দেখে মনে হচ্ছে, তাকে কেউ শিখিয়ে-পড়িয়ে এনে মিডিয়ার সামনে কথা বলিয়েছে। আজম খান রাজনৈতিক ভাষায় কথা বলছে। আজ দুপুর ১২টায় জাতীয় সংসদ ভবনের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেছেন। আজম খান রেলের অর্থ কেলেঙ্কারির দায়ভার সুরঞ্জিতের ওপর চাপিয়ে টিভিতে যে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন, তার প্রতিক্রিয়ায় সুরঞ্জিত এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। তিনি বলেন, ৬ মাস আগেই তো আমি রেলমন্ত্রী পদ থেকে পদত্যাগ করেছি। ৬ মাস পরে কোন পদ থেকে পদত্যাগ করবো? আমার কি পদ আছে? দফতরবিহীন মন্ত্রীর পদ থেকে কিভাবে পদত্যাগ করবো? তিনি বলেন, এখন হয়তো বলা হবে, একটাই ত্যাগ করার পথ সামনে বাকি রয়েছে, সেটি হচ্ছে দেশত্যাগ। গত ৯ এপ্রিল রাতে সাবেক রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিতের ব্যক্তিগত সহকারী ওমর ফারুকের গাড়িতে বিপুল অর্থ পাওয়ার খবর প্রকাশের পর তা নিয়ে দেশজুড়ে শোরগোল শুরু হয়। ঘটনার পর আজম খানের কোনো হদিস পাওয়া যাচ্ছিল না। দুর্নীতি দমন কমিশন ও রেল কর্তৃপক্ষ পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে তলব করলেও হাজির হননি। ছয় মাস নিখোঁজ থাকার পর ৪ অক্টোবর বেসরকারি চ্যানেল আরটিভির এক প্রতিবেদনে সাক্ষাৎকার দেন।  সেখানে আজম বলেন, সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের সাবেক এপিএস ওমর ফারুক পিলখানায় যে অর্থসহ আটক হয়েছিলেন তার উৎস ছিল রেলের নিয়োগ বাণিজ্য। ওই টাকা সাবেক মন্ত্রীর বাড়িতে পৌঁছানোর সময়ই ফারুক আটক হন। বৃহস্পতিবার বেসরকারি টেলিভিশন আরটিভিতে প্রচারিত সাক্ষাৎকারে আজমকে বলতে দেখা যায়, আমার জানা মতে ফারুকের মাধ্যমে সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের সঙ্গে রেলের জিএম-এর কন্ট্রাক্ট হয়েছে। গাড়িতে তারা আলাপ-আলোচনা করেছে রেলের নিয়োগের ব্যাপারে সুরঞ্জিত সেনগুপ্তকে ১০ কোটি টাকা দেবে, আর সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের ছয়শ লোক পার্সোনালি ঢোকাতে হবে। পুরো ঘটনাকে ষড়যন্ত্র দাবি করে সংবাদ সম্মেলনে সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেন, ড্রাইভার যা বলেছে তা আপনারা জানেন। এটা যদি এক সেকেন্ডের জন্যও প্রমাণিত হয়, তাহলে আমার বিরুদ্ধে যে কোনো আইনে ব্যবস্থা নেয়া যেতে পারে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট