Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

জয়ের বিকল্প নেই পাকিস্তানের

কলম্বো, ২ অক্টোবর: সুপার এইটে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের কাছে রীতিমতো নাকাল হয়েছে পাকিস্তান। আইসিসি ওয়ার্ল্ড টি২০ টুর্নামেন্টে টিকে থাকতে হলে এই মুহূর্তের হট ফেভারিট দল অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে জয়ের বিকল্প নেই উপমহাদেশের দলটির। বাঁচা-মরার লড়াইয়ে ‘আনপ্রেডিক্টিবল’ পাকিস্তান সুপার এইটে আজ মুখোমুখি হচ্ছে ‘রেড হট’ অস্ট্রেলিয়ার।

 

চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের কাছে সবদিক দিয়েই নাকানি চুবানি খেয়েছে পাকিস্তান। টুর্নামেন্টে এ পর্যন্ত অপরাজিত থাকা দল অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জয় পেতে হলে সব ধরনের ত্রুটি সারিয়ে আজ তাদের মাঠে নামতে হবে। অস্ট্রেলিয়ানরা এই মুহূর্তে চাপের মধ্যে নেই। কারণ নিজেদের সর্বশেষ ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আট উইকেটের বড় জয়ে তারা সেমির টিকিট প্রায় নিশ্চিত করেছে। অন্যদিকে আজকের ম্যাচে পাকিস্তান হেরে গেলে এবং দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ভারত জিতে গেলে সেমিফাইনালে খেলা নিশ্চিত হবে ধোনিদের।

 

দুই নম্বর গ্রুপ থেকে সেমিফাইনালে যাওয়ার সম্ভাবনা ভারত এবং পাকিস্তান প্রায় সমান। অন্যদিকে রান রেটের ভিত্তিতে অনেক এগিয়ে অস্ট্রেলিয়া। রান রেটের বিচারে পাকিস্তান দল ভারতের চেয়ে সামান্য এগিয়ে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আজ পাকিস্তান জিতে গেলে সেমিফাইনালে ওঠার জন্য দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ভারতকে বড় ব্যবধানে জয় পেতে হবে। মোহাম্মদ হাফিজের নেতৃত্বাধীন দলটা অসিদের কাছে পরাজয় বরণ করলে ধোনিদের শেষ চারের যোগ্যতা অর্জন করতে শুধুমাত্র প্রোটিয়াদের বিপক্ষে জয় পেলেই চলবে।

 

সুপার এইটে দক্ষিণ আফ্রিকানরা দুটো ম্যাচেই হেরে গেছে। পাকিস্তানের কাছে প্রায় জেতা ম্যাচ হারলেও অস্ট্রেলিয়ার কাছে আট উইকেটের বড় ব্যবধানে পরাজয় বরণ করেছে প্রোটিয়ারা। ভারতের বিপক্ষে আজকের ম্যাচে জিতলেও তাদের জন্য শেষ চারের টিকিট প্রায় অনিশ্চিতই বলা  যায়।

 

টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত অপরাজিত থাকা জর্জ বেইলির নেতৃত্বাধীন অস্ট্রেলিয়ানরা এবারের টি২০ টুর্নামেন্টের শিরোপার অন্যতম দাবিদার দক্ষিণ আফ্রিকাকে নিঃসন্দেহে বড় একটা ধাক্কা দিয়েছে সুপার এইটে।

অন্যদিকে সুপার এইটে ভারতের কাছে মাত্র ১২৮ রানে অলআউট হওয়া পাকিস্তান দলকে সবকিছুই নতুন করে সাজাতে হচ্ছে। বিরাট কোহলির ব্যাটিংয়ের কাছে পাকিস্তানী বোলারদের অনেকটা সাধারণ মানের বলে মনে হয়েছে।

 

চলতি টুর্নামেন্টে শিরোপার দিকে বেশ দাপটের সাথেই এগোচ্ছে অস্ট্রেলিয়া। তাদের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানরা সেরা ফর্মে আছেন। স্ট্রাইক বোলাররা সময়মতো উইকেট পাচ্ছেন। পাকিস্তানের জন্য আজকের ম্যাচে  দুশ্চিন্তার প্রধান কারণ হয়ে উঠতে পারেন দুর্দান্ত ফর্মে থাকা দুই ওপেনার শেন ওয়াটসন এবং ডেভিড ওয়ার্নার। চলতি টি২০ বিশ্বকাপে এই দু’জন সবচেয়ে সফল জুটি হিসাবে নিজেদেরকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

 

গত রোববার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচটা শেন ওয়াটসন একাই বের করে নিয়ে যান। ৪৭ বলে ৭০ রানের ইনিংসের আগে ২৯ রানে দু’জন প্রোটিয়াস ব্যাটসম্যানের প্রাণ সংহার করেন তিনি ।  পাকিস্তানের কোচ ডেভ হোয়াটমোরও শেন ওয়াটসনকে নিয়ে উদ্বিগ্ন। তিনি বলেছেন, হয় ওয়াটসনকে আটকাতে হবে, নতুবা দিনটা তাদের খারাপ যাবে। এ পর্যন্ত চারটি ম্যাচে সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার পেয়েছেন ওয়াটসন। টুর্নামেন্টে এ পর্যন্ত ২৩৪ রান নিজের নামের পাশে জমা করা ছাড়াও উইকেট শিকার করেছেন ১০টি।

 

অভিজ্ঞ মাইক হাসিও প্রয়োজনের সময়ে নিজের দায়িত্বটা যথাযাথভাবে পালন করেছেন। প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ওয়ানডাউনে নেমে তার ৩৭ বলে ৪৫ রানের ইনিংসটা দায়িত্বশীলতার কথাই বলছে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচে প্যাট কামিন্স এবং মিচেল স্টার্ক উইকেটের দেখা না পেলেও ভারতের বিপক্ষে প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামের মরা পিচ থেকেও যথেষ্ট পেস এবং বাউন্স আদায়ে সক্ষম হন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে  বিপক্ষে ম্যাচে কৃপণের মত বল করে ২০ রানের বিনিময়ে চারটি উইকেটের দেখা পান অজি বাঁহাতি স্পিনার জ্যাভিয়ার ডোহার্টি। তিন ম্যাচে ব্র্যাড হগ মাত্র দুটো উইকেটের দেখা পেলেও তার ওভারগুলোতে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানরা তেমন সুবিধা করে উঠতে পারেননি। পিচ থেকে ধীরগতির বোলাররা সুবিধা পেলে এই দু’জনে আজকের ম্যাচে জ্বলে উঠতে পারেন।

 

অস্ট্রেলিয়ানদের জন্য একমাত্র উদ্বেগের বিষয় মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরা। কারণ টপ অর্ডার ভালো করায় এখন পর্যন্ত প্যাড পরিধান করতে হয়নি তাদের।

 

অন্যদিকে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে পাকিস্তানকে একেবারেই বিবর্ণ মনে হয়েছে। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে স্নায়ুর চাপে ভুগলেও ইমরান নাজির, নাসির জামশেদ এবং মোহাম্মদ হাফিজের মতো ব্যাটসম্যানরা নিজেদের দিনে যেকোনো বোলিং লাইনআপকে ছিন্নভিন্ন করতে সক্ষম।

পাকিস্তানী বোলার উমর গুল, সাঈদ আজমল, শহীদ আফ্রিদি এবং ইয়াসির আরাফাতকে ভারতীয় ব্যাটিং লাইনআপের বিপক্ষে নখরদন্তহীন মনে হয়েছে। ব্যাট হাতে আফ্রিদির ফর্মহীনতাও পাকিস্তানের উদ্বেগের কারণ। অনেক কিছুই নির্ভর করছে পাকিস্তানের নবীন ব্যাটিং প্রতিভা উমর আকমলের ওপর। নিজের দিনে যে কোনো বোলিং আক্রমণকে সীমানার দড়ি দেখাতে কসুর করেন না তিনি।

 

স্কোয়াড:

 

পাকিস্তান: মোহাম্মদ হাফিজ (অধিনায়ক), আব্দুল রাজ্জাক, আসাদ শফিক, ইমরান নাজির, কামরান আকমল, মোহাম্মদ সামি, নাসির জামশেদ, রাজা হাসান, সাঈদ আজমল, শহীদ আফ্রিদি, শোয়েব মালিক, সোহেল তানভীর, ওমর আকমল, উমর গুল ও ইয়াসির আরাফাত।

 

অস্ট্রেলিয়া: জর্জ বেইলি (অধিনায়ক), ড্যানিয়েল ক্রিশ্চিয়ান, প্যাট কামিন্স, জ্যাভিয়ার ডোহার্টি, বেন হিলফেনহস, ব্র্যাড হগ, ডেভিড হাসি, মাইকেল হাসি, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, ক্লিন্ট ম্যাকে, মিচেল স্টার্ক, ম্যাথু ওয়েড, ডেভিড ওয়ার্নার, শেন ওয়াটসন ও ক্যামেরন হোয়াইট।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট