Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

কোনো গণতান্ত্রিক দেশে তত্ত্বাবধায়ক নেই, সংসদে প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর: সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, “বিশ্বের কোনো গণতান্ত্রিক দেশে তত্ত্বাবধায়ক সরকারব্যবস্থা চালু রয়েছে-এমন কোনো তথ্য আমাদের জানা নেই। বিশ্বের কোথাও গণতান্ত্রিক দেশে অনির্বাচিত ব্যক্তিদের দিয়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠন করা হয় না।”

বুধবার জাতীয় সংসদের সংসদের বৈঠকে মৌখিত উত্তরদানের জন্য টেবিলে উত্থাপিত ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিকের (নওগাঁ-৪) প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

এর আগে স্পিকার অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদের সভাপতিত্বে সংসদের নির্ধারিত দিনের কার্যক্রম শুরু হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পর জাতীয় সংসদের উপ-নির্বাচন, সিটি করপোরেশ, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। জনগণ পছন্দমতো প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করতে পেরেছে। যা গণতান্ত্রিক সংস্কৃতির পরিচায়ক। কাজেই বর্তমান সরকারের অধীনে যেকোনো নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে হওয়ার গণতান্ত্রিক পরিবেশ দেশে এসেছে। তাই তত্ত্বাবধায়ক সরকারব্যবস্থার কোনো প্রয়োজন নেই।”

তিনি বলেন,  “নির্বাচিত প্রতিনিধিদের মাধ্যমে রাষ্ট্র পরিচালনার বিধান রয়েছে বলে তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থা চালু নেই। সংবিধানের ১১ অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, প্রশাসনের সব পর্যায়ে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের মাধ্যমে সরকার পরিচালনায় জনগণের অংশগ্রহণে বিধান নিশ্চিত করতে হবে।”

তিনি বলেন, “গণতান্ত্রিকভাবে রাষ্ট্র পরিচালনার বিধান সমুন্নত রাখার জন্য সংবিধান (ত্রয়োদশ সংশোধন) আইন, ১৯৯৬ সুপ্রিম কোর্ট বাতিল করেছে। ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি বিএবনপি সরকার একটি বিতর্কিত নির্বাচন করে। যে নির্বাচন সব রাজনৈতিক দল ও বাংলাদেশের মানুষ বর্জন করেছে। সারাদেশে সেনা মোতায়েন করে নির্বাচনের নামে প্রহসন করা হয়েছে।”

শেখ হাসিনা বলেন, “কাজেই এ ব্যবস্থা ৩০ জুন ২০১১ সালে সংসদে পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে বিভক্তি ভোটে (পক্ষে-২৯১, বিপক্ষে-১ ভোট) সংবিধান সংশোধন করা হয়েছে বিধায় এ ব্যবস্থা আর চালু নেই।”

তিনি বলেন, “২০০৬ সালে ইয়াজউদ্দিন রাষ্ট্রপতি থাকাকালেই তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টা পদ গ্রহণ করে বিতর্ক সৃষ্টি করেছেন। এক কোটি ২৩ লাখ ভুয়া ভোটারকে ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে নির্বাচন করার চেষ্টা করেছেন। ফলে সরকারের উপদেষ্টারা পদত্যাগ করেন। এ পরিস্থিতিতেই এক এগারো’র ঘটনার সৃষ্টি হয়।”

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট