Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

প্রথম ১০ সেকেন্ড পালস চালু করলো টেলিটক

ঢাকা, ১৮ আগস্ট: নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি’র নির্দেশনা মেনে গ্রাহকদের জন্য কল প্রতি ১০ সেকেন্ড পালস সুবিধা চালু করলো দেশী মোবাইল অপারেটর টেলিটক। শনিবার দিবাগত রাত ১২টার পর গ্রাহকদের এ সম্পর্কিত একটি ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়েছে।

ইংরেজি অক্ষরে বাংলায় লেখা ওই বার্তায় বলা হয়েছে, ‘সম্মানিত গ্রাহক, টেলিটক সবার আগে সব প্যাকেজে চালু করেছে ১০ সেকেন্ডের পালস। তাই এই ঈদে প্রিয়জনকে শুভেচ্ছা জানাতে সবচাইতে চিপ রেট’র সুযোগ নিন-টেলিটক।’

অবশ্য মুঠোফোনে ক্ষুদে বার্তা দেয়া হলেও এ প্রতিবেদন লেখা সময়ে টেলিটক’র ওয়েবসেইটে এ সংক্রান্ত কোনো বিজ্ঞপ্তি পাওয়া যায়নি।

এদিকে টেলিটক চালু করলেও বেধে দেয়া ১৫ আগস্টের মধ্যে কল পত্রি ১০ সেকেন্ড পালস সুবিধা চালু না করায় আবারও জরিমানার কবলে পড়তে যাচ্ছে বেসরকারি মোবাইলফোন অপারেটররা। বিটিআরসি সূত্রে জানা গেছে, ঈদের ছুটিশেষে কমিশনের বৈঠকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

বিটিআরসির নির্দেশনা অনুযায়ী, ১৫ আগস্টের মধ্যে কলপ্রতি ১০ সেকেন্ড পালস চালু করার কথা থাকলেও সিডিএমএ প্রযুক্তিতে সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান সিটিসেল একটি প্যাকেজে পালস চালু করতে প্রচারণা শুরু করেছে। তবে শেষ খবর পর্যন্ত চালু করেনি।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ (সংশোধন) আইন ২০১০-এর ৬৩ ধারা অনুযায়ী, টেলিযোগাযোগ সেবার লাইসেন্সধারী প্রতিষ্ঠান তাদের পরিচালিত ব্যবস্থা বা সেবার ক্ষেত্রে বাধ্যতামূলক বাস্তবায়ন আদেশ দিতে পারবে বিটিআরসি। আর নির্দেশ অমান্যের দায়ে অনধিক ৩০০ কোটি টাকা প্রশাসনিক জরিমানা করতে পারবে প্রতিষ্ঠানটি। একই সঙ্গে আদেশ দেয়ার পর তা লঙ্ঘন করলে প্রতিদিনের জন্য এক কোটি টাকা করে জরিমানা করতে পারবে। যথাযথ ক্ষেত্রে লাইসেন্স বাতিল বা স্থগিত করা বা অতিরিক্ত শর্ত আরোপের ক্ষমতাও রয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থার।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালের পর চলতি বছরের ২ আগস্ট কলপ্রতি ১০ সেকেন্ড পালস চালু করতে সেলফোন অপারেটরদের প্রথম দফায় চিঠি দেয় বিটিআরসি।

দ্বিতীয় দফায় পাঠানো চিঠিতে বলা হয়, গ্রাহকরা কল করার পর নেটওয়ার্কের ত্রুটি বা অন্য কোনো কারণে কল ড্রপ হলে পুনঃসংযোগে প্রতিবার এক মিনিট বা পূর্ণ পালস হিসেবে কলচার্জ দিতে হয়। এ ছাড়া নির্ধারিত পালসের অংশবিশেষ কথা বললেও পুরো মিনিটের জন্য টাকা দিতে হয়। অনেক ক্ষেত্রে গ্রাহককে একটি কলের জন্য একাধিকবার সংযোগ পেতে চেষ্টা করতে হয় এবং এ জন্য প্রতিবার ১ মিনিট বা পূর্ণ পালসের চার্জ দিতে হচ্ছে। ফলে গ্রাহকরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। এ ছাড়া অনেক গ্রাহকই সংক্ষিপ্ত কথোপকথনে অভ্যস্ত। এ ক্ষেত্রেও অতিরিক্ত সময়ের চার্জ প্রদান বাস্তবসম্মত নয়। এ জন্যেআগামী ১৫ আগস্ট থেকে ১০ সেকেন্ড হারে পালস নির্ধারণের নির্দেশ দেয়া হচ্ছে।

এদিকে বিটিআরসির প্রথম চিঠি পাওয়ার পর অ্যাসোসিয়েশন অব মোবাইল টেলিকম অপারেটরস অব বাংলাদেশের (অ্যামটব) মাধ্যমে ১০ সেকেন্ড পালস চালুর সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার অনুরোধ করে অপারেটররা। এ ব্যবস্থা খাতের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলবে বলে জানায় অপারেটররা। পাশাপাশি ১০ সেকেন্ড পালস চালুর একাধিক প্রস্তাবনা দেয়া হয়। এর মধ্যে একটি নির্দিষ্ট প্যাকেজে ১০ সেকেন্ড পালস চালুর প্রস্তাব দেয় তারা। এ ছাড়া বিটিআরসির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে এ জন্য আট সপ্তাহের সময় চায় তারা। তবে অপারেটরদের এ আপত্তি আমলে নেয়নি বিটিআরসি। ১৪ আগস্ট এ বিষয়ে ছয় অপারেটরকে চূড়ান্ত চিঠি দেয়া হয়। এতে ১৫ আগস্টের মধ্যে প্যাকেজ নির্বিশেষে কলপ্রতি ১০ সেকেন্ড পালস চালু করতে নির্দেশ দেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

বিভিন্ন প্যাকেজের আওতায় বর্তমানে প্রতি মিনিট হিসেবে বিল দিতে হচ্ছে মুঠোফোন গ্রাহকদের।এক্ষেত্রে ২৬ সেকেন্ড কথা বললেও গ্রাহকদের যেখানে পুরো এক মিনিটের জন্য টাকা দিতে হচ্ছে সেখানে বিটিআরসি’র নির্দেশনা অনুযায়ী ২৬ সেকেন্ডের জন্য ৩০ সেকেন্ডের বিল দিতে হবে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট