Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

১১ দিনের ছুটি!

ঢাকা, ১৫ আগস্ট: এবারের ঈদুল ফিতরে কার্যত ১১ দিনের লম্বা ছুটির ফাঁদে পড়তে যাচ্ছে দেশ। দীর্ঘ এ ছুটিতে বন্ধ থাকবে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো। ছুটির কারণে আমদানি-রফতানি কিছুটা বাধাগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা করছেন ব্যবসায়ীরা। আর ব্যাংকের স্বাভাবিক লেনদেন বন্ধ থাকার কারণে সাধারণ মানুষ ভোগান্তিতে পড়তে পারে বলে মনে করছেন ব্যাংকাররা।

জাতীয় শোক দিবসের ছুটির মধ্য দিয়ে কার্যত শুরু হয়ে গেল ঈদের ছুটি। এরই মধ্যে রাজধানী ছাড়তে শুরু করেছেন অনেকে। ১৬ আগস্ট শবে-কদর আর ১৭ ও ১৮ আগস্ট সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় এবার ঈদের আগেই পাওয়া যাচ্ছে চার দিনের ছুটি। আর ঈদের ছুটি থাকছে ১৯, ২০ ও ২১ আগস্ট। ২২ ও ২৩ আগস্ট নিজ কর্মস্থল থেকে ছুটি নিয়ে থাকলে সঙ্গে যোগ হবে ২৪ ও ২৫ আগস্টের সাপ্তাহিক ছুটি। অর্থাৎ সব মিলিয়ে কার্যত ছুটি পাওয়া যাবে ১১ দিনের।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, লম্বা এই ছুটির কারণে আমদানি-রফতানি কিছুটা বাধাগ্রস্থ হতে পারে। বেশির ভাগ শ্রমিক ছুটিতে থাকার কারণে এ সময় বন্দরের স্বাভাবিক কর্মকাণ্ডে ছেদ পড়বে। বিশেষ করে তৈরি পোশাকের ডেলিভারি সময়মতো বুঝিয়ে দেয়া যাবে না। অন্যদিকে, নতুন অর্ডার পেতেও বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে ঈদের লম্বা ছুটি। এমন আশঙ্কা করলেও ব্যবসায়ীরা বলছেন, নতুন কর্মস্পৃহা জোগাতে ঈদের ছুটি ভূমিকা রাখবে। তাই সাময়িক অসুবিধা মানতে তারা রাজি আছেন।

জানা গেছে, অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মতো ঈদ উপলক্ষে ব্যাংকের কার্যক্রমও তিন দিন পুরোপুরি বন্ধ থাকবে। তবে ১৭ ও ১৮ তারিখ আমদানি-রফতানি সংশ্লিষ্ট কিছু ব্যাংকের কার্যক্রম সীমিত পর্যায়ে চলবে। কিন্তু আগামী ২৬ আগস্টের আগে ব্যাংকগুলো তাদের স্বাভাবিক লেনদেনে ফিরে আসতে পারবে না। এতে করে বিপাকে পড়তে পারেন সাধারণ গ্রাহকরা। বিশেষ করে বিক্রেতা যাদের হাতে ঈদের আগের দিন রাতেও আসবে বেশ বড় অংকের নগদ টাকা।

সমস্যা সমাধানে ঈদের ছুটি মাথায় রেখে অন্যান্য ছুটি কমিয়ে আনার পরামর্শ দিয়েছেন ব্যাংকাররা। পাশাপাশি নিয়মিত ব্যাংকিং বন্ধ থাকায় বিকল্প ব্যাংকিং ব্যবস্থা আরো বেশি সম্প্রসারিত করারও পরামর্শ দিয়েছেন তারা।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট