Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

ওআইসি থেকে সিরিয়াকে সাময়িক বরখাস্তের সিদ্ধান্ত

মক্কা, ১৪ আগস্ট: সিরিয়ার ওআইসি সদস্যপদ সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হচ্ছে৷ সোমবার ওআইসি পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে৷ তবে ইরান এর বিরোধিতা করছে৷

সৌদি আরবের মক্কায় আজ মঙ্গলবার থেকে ওআইসি’র শীর্ষ সম্মেলন শুরু হচ্ছে৷ আগামীকাল বুধবার সম্মেলনের শেষ দিন সিরিয়া নিয়ে সিদ্ধান্তের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হবে বলে জানা গেছে৷

এদিকে এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলি আকবর সালেহি বলেছেন, এর ফলে সিরিয়া সমস্যার কোনো সমাধানের চেষ্টা না করে বিষয়টাকে একেবারে বাদই দিয়ে দেয়া হলো৷ কিন্তু ইরান সমস্যার সমাধান চায় বলে জানান তিনি৷

বিশ্লেষকরা মনে করছেন, ৫৭টি ইসলামি রাষ্ট্রের সংস্থা ওআইসি’র সিদ্ধান্ত সিরিয়ার ওপর সরাসরি তেমন কোনো প্রভাব ফেলবে না৷ কেননা শুরু থেকেই সিরিয়া ধর্মকে খুব একটা গুরুত্ব দেয়নি৷ এছাড়া ইরান যে তাদের পক্ষেই থাকছে সেটাই সিরিয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ৷
তবে ওআইসি’র সিদ্ধান্তের একটা প্রতীকী গুরুত্ব থাকবে বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা৷

অন্যদিকে, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সিরিয়ার প্রভাবশালী বন্ধু রাষ্ট্র চীনের সঙ্গে আলোচনা করতে প্রেসিডেন্ট আসাদ তার একজন ‘বিশেষ উপদেষ্টা’কে চীন সফরে পাঠিয়েছেন৷

চীন বলছে, তারা সিরীয় সরকার ছাড়াও বিদ্রোহী নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করবে৷ চীন এর আগে সিরিয়ায় অবিলম্বে যুদ্ধবিরতি কার্যকর করার আহ্বান জানিয়েছে৷

এদিকে মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগনের এক মুখপাত্র বলেছেন, সিরিয়া বিদ্রোহীদের দমনে আগের চেয়ে অনেক বেশি বিমান ব্যবহার করছে৷ এর ফলে ‘নো-ফ্লাই জোন’ চালুর যে দাবি করছে বিদ্রোহীরা, সেই সম্ভাবনাকে উড়িয়ে দিচ্ছে না যুক্তরাষ্ট্র৷ এ প্রসঙ্গে হোয়াইট হাউজের এক মুখপাত্র জে কারনে বলেছেন, সিরিয়ায় রাজনৈতিক পরিবর্তনের চেষ্টায় যুক্তরাষ্ট্র যেকোনো উপায় অবলম্বন করতে পারে৷

সিরিয়ার বিদ্রোহীরা সোমবার দাবি করেছে যে, তারা সরকারি একটি বিমান ভূপাতিত করেছে এবং তার পাইলটকে আটক করেছে৷ তাদের এই দাবি যদি সত্যি হয় তাহলে এটাই হবে বিদ্রোহীদের দ্বারা কোনো বিমান ভূপাতিত করার প্রথম ঘটনা৷ তবে সিরিয়ার সরকারি গণমাধ্যম বলছে, বিমানটি যান্ত্রিক ত্রুটির জন্য বিধ্বস্ত হয়েছে৷

তবে সত্য যেটাই হোক, ওই ঘটনার পর সরকারি বাহিনী দুটি শহরে তাদের হামলা আরো জোরদার করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে৷

এদিকে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক সংস্থার প্রধান ভেলেরি আমোস আজ সিরিয়া সফরে যাচ্ছেন৷ সেখানকার ক্রমঅবনতিশীল মানবাধিকার পরিস্থিতি সম্পর্কে বিশ্ববাসীর মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করবেন তিনি৷

উল্লেখ্য, গত ১৭ মাসের বিদ্রোহে এখন পর্যন্ত প্রায় দশ লক্ষ মানুষ ঘরছাড়া হয়েছে৷ আর দেশ ছাড়তে বাধ্য হয়েছে প্রায় দেড় লক্ষ সিরীয় নাগরিক৷ এছাড়া নিহত হয়েছে ২১ হাজারেরও বেশি মানুষ৷সুত্র: ডিডব্লিউ।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট