Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

দেশের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালাচ্ছেন ইউনূস: অর্থমন্ত্রী

ঢাকা, ১২ আগস্ট: নোবেল বিজয়ী ড. ইউনূস দেশের বিরুদ্ধে ক্ষতিকর প্রচারণা চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।
রোববার সিরডাপ মিলনায়তনে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ আয়োজিত হিসাব মহানিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ে ‘সুশাসনের চ্যালেঞ্জ: উত্তরণের উপায়’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তবো অর্থমন্ত্রী এ অভিযোগ করেন।

 

অর্থমন্ত্রী বলেন, “ইউনূস সাহেব সঠিক কথা বলছেন না। তিনি বলছেন, সরকার গ্রামীণ ব্যাংক দখল করতে চায়। আমি প্রথম দিন থেকে বলে আসছি, সরকার গ্রামীণ ব্যাংক দখল করতে চায় না এবং এখন পর্যন্ত দখল করেনি। ইউনূস সাহেব আননেসেসারি ক্যাম্পেইন চালাচ্ছে। ইটস হার্মফুল ফর কান্ট্রি।”

অর্থমন্ত্রী দাবি করেন, মুহাম্মদ ইউনূস গ্রামীণ ব্যাংক থেকে চলে যাওয়ার পর প্রতিষ্ঠানটি এখন সবচেয়ে ভালো অবস্থায় আছে।
তিনি আরো অভিযোগ করেন, “ইউনূস সাহেব যাওয়ার পর গ্রামীণ ব্যাংক বন্ধ হয়ে গেছে এ রকম প্রপাগান্ডা চালানো হচ্ছে। কিন্তু গত ১০ বছরের মধ্যে গ্রামীণ ব্যাংকের এখন হাইয়েস্ট টাইম।”

গত ২ জুন গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) নিয়োগের বিধি পরিবর্তন করে ‘সংশোধিত গ্রামীণ ব্যাংক অধ্যাদেশ’ জারির সিদ্ধান্ত নেয় মন্ত্রিসভা। এছাড়া ৬১ বছর বয়স পার হওয়ার পরেও ইউনূসের গ্রামীণ ব্যাংকের এমডি থাকার বৈধতা ও এমডি থাকাকালে তার বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের বৈধতা খতিয়ে দেখার সিদ্ধান্তও নেয় সরকার। সরকারের এই পদক্ষেপকে গ্রামীণ ব্যাংকের ওপর পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ আরোপের চেষ্টা হিসেবে দেখছেন।

শনিবার তাকে সমর্থন জানিয়ে গ্রামীণ ব্যাংক বিষয়ে সরকারের পদক্ষেপের সমালোচনা করেছেন ২০১ জন বিশিষ্ট নাগরিক।

সেমিনারে বক্তব্য দেয়ার সময় দেশে ক্ষুদ্রঋণের বিস্তারে তিনি নিজে অবদান রেখেছেন বলেও দাবি করেন অর্থমন্ত্রী।

নিজেকে দেখিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, “ইউনূস সাহেব ক্ষুদ্র ঋণের জন্য নমস্য। কিন্তু ক্ষুদ্র ঋণের আরো একজন লোক আছে যিনি এখানে বসে আছেন। সেটা হচ্ছে আমি। ইউনূস সাহেব ক্ষুদ্র ঋণের প্রসারকে ৪, ১০ বা ১২ শতাংশ পর্যন্ত নিয়ে গেছেন। আমি সেটাকে ৩০ পর্যন্ত নিয়ে গেছি।”

 

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন টিআইবি চেয়ারম্যান সুলতানা কামাল। বিশেষ অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য তাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ মহা হিসাব নিরক্ষক নিয়ন্ত্রক আহমদ আতাউল হাকিম ও ড. ইফতেখারুজ্জামান।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট