Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ নিরসনে সরকারের উদ্যোগ

গ্রামীণ ব্যাংকের ভবিষ্যৎ নিয়ে মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টের উদ্বেগ নিরসনে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি
জানিয়েছেন, ওই প্রতিষ্ঠানের এমডি নিয়োগের বিষয়ে আগের অবস্থানেই ফিরে গেছে সরকার। সোমবারের মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনার পর আগের আইন বলবৎ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। একই সঙ্গে মন্ত্রী জানান, গ্রামীণ ব্যাংকের বিষয়ে
সরকারের অবস্থান ব্যাখ্যা করে মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টে একটি চিঠি পাঠানো হবে শিগগিরই। গতকাল সাংবাদিকদের সঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ইফতার পর্বের সমাপনীতে একান্ত আলাপচারিতায় বিষয়গুলো স্থান পায়। চায়ের টেবিলে একটি বাংলা জাতীয় দৈনিকের সিনিয়র কূটনৈতিক প্রতিবেদক গ্রামীণ ব্যাংকের ভবিষ্যৎ নিয়ে মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টের উদ্বেগের বিষয়টি মন্ত্রীর সমীপে উত্থাপন করেন। জবাবে দীপু মনি সরকারের অবস্থান ব্যাখ্যা করেন। বলেন, দু’একদিনের মধ্যে ওয়াশিংটনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে তা পরিষ্কার করা হবে। আশা করি, দেশ-বিদেশে যে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে তা-ও নিরসন হবে। এদিকে সন্ধ্যায় বিবিসি’র সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারেও গ্রামীণ ব্যাংক প্রসঙ্গে কথা বলেন ডা. দীপু মনি। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্কের কোন অবনতি ঘটবে না বলে দাবি করেন তিনি। গত ২রা আগস্ট মন্ত্রিসভার বৈঠকে গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিয়োগের জন্য তিন জনের একটি প্যানেল তৈরির সিদ্ধান্ত হয়। একই সঙ্গে গ্রামীণ ব্যাংক অধ্যাদেশ সংশোধন করে ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিয়োগে পারিচালনা বোর্ড মনোনীত সিলেকশন কমিটি গঠন করার বিধান বাতিলের নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়। মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষ হওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এ নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়। দেশ-বিদেশে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় ওঠে। নোবেলজয়ী বিশ্বনন্দিত ওই প্রতিষ্ঠানটি সরকার গ্রাস করতে চাইছে বলেও অভিযোগ উঠে। সরকারের সিদ্ধান্তে প্রতিষ্ঠানটি ভবিষ্যৎ হুমকির মুখে পড়বে বলে উল্লেখ করে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বিবৃতি দেয় মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট। উদ্বেগ জানান মার্কিন সিনেট সদস্যরাও। সমালোচনার মুখে এক সপ্তাহের ব্যবধানে অবস্থান বদল করতে বাধ্য হয় সরকার। গত সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিয়োগের বিষয়ে আগের অবস্থানেই ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূঁইঞা সিদ্ধান্ত বদলের খবর দেন। সাংবাদিকদের জানান, চেয়ারম্যান নন, আগের আইন মতে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদই নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক খুঁজবে। সরকার কোনভাবেই ব্যাংকের কার্যক্রমে হস্তক্ষেপ করছে না বলেও দাবি করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট