Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক রণক্ষেত্র, দুই সাংবাদিকসহ আহত চার

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে এক ছাত্রলীগ নেতার ওপর হামলার অভিযোগে এক ছাত্রকে আটকের পর পুলিশের সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়েছে ছাত্ররা। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বুধবার মধ্যরাত থেকে ক্যাম্পাস সংলগ্ন ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ছাত্রদের অবরোধ চলছে। অন্যদিকে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের উপায় খুঁজতে সকাল ৯টায় বসেছে সিন্ডিকেট সভা। স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে পূর্ব নির্ধারিত ডীন নির্বাচন। জানা যায়, বুধবার রাতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের একাংশের নেতা তাহমিদুল ইসলাম লিখনকে কুপিয়ে আহত করে দুর্বৃত্তরা। রাত সোয়া ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের কাছে এ ঘটনা ঘটে। আহত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে কয়েকজন শিক্ষার্থী তাকে প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা কেন্দ্র এবং পরে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। এদিকে লিখনের ওপর হামলার ঘটনার পর মীর মোশাররফ হোসেন হলের নৃ-বিজ্ঞান বিভাগের ৩৯তম ব্যাচের ছাত্র নাহিদকে আটক করে পুলিশ। এ সময় পুলিশের ছাত্রদের বাগবিতণ্ডা হয় এবং এক পর্যায়ে তারা ক্ষোভে ফেটে পড়ে। ছাত্ররা হল সংলগ্ন প্রাধ্যক্ষের বাড়িতে ভাংচুর চালায় এবং প্রাধ্যক্ষ এমদাদুল হককে লাঞ্ছিত করে। এরপর তারা পুলিশ ভ্যান ভাংচুর করতে গেলে পুলিশ রাবার বুলেট ছোড়ে। এতে ফার্মাসি বিভাগের ৩৯তম ব্যাচের রাকিব, গণিত বিভাগের ৪১তম ব্যাচের রবিন, ইনস্টিটিউট অব ইনপরমেশন টেকনোলজির ৩৯তম ব্যাচের মারুফ, ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ৩৯তম ব্যাচের নাহিদ এবং পরিসংখ্যান বিভাগের ৪০তম ব্যাচের ছাত্র বশির আহত হয়। এদিকে গুলির ঘটনার পরপরই ছাত্ররা ঢাকা-আরিচা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে। তারা কয়েকটি গাড়ি ভাংচুর করে। কিছু শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক, ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্র, জহির রায়হান মিলনায়তন, নতুন ও পুরাতন প্রশাসনিক ভবনের কাচ ভাংচুর করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন রাতেই ঘটনাস্থলে যান। তবে ছাত্রদের বোঝাতে না পেরে তিনি ফিরে আসেন। বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীদের তিনি বলেন, এই পরিস্থিতি চলতে থাকলে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে দেয়া হতে পারে। এদিকে, ঢাকায় অবস্থানকারী শিক্ষকরা রাস্তা বন্ধ থাকায় ভোট দিকে ক্যাম্পাসে আসতে না পারায় নির্বাচন কমিশনার ও রেজিস্ট্রার আবু বকর সিদ্দিক নির্বাচন স্থগিতের ঘোষণা দেন।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট