Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

বিশ্ববিদ্যালয়ে লাশ হওয়ার জন্য আসিনি

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার: আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া করার জন্য এসেছি, লাশ হওয়ার জন্য আসিনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র হিসেবে এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের বিচার চাই। আর কোন মায়ের বুক যেন খালি না হয়। কোন বাবার স্বপ্ন যেন অঙ্কুরেই বিনষ্ট না হয়। গতকাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরসি মজুমদার অডিটরিয়ামে শহীদ আবু বকরের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা ও দোয়া মাহফিলে শিক্ষার্থীরা এসব মন্তব্য করেন। আলোচনা সভা হলেও সভাটি রূপ নিয়েছিল শোক সভায়। এ সময় শিক্ষার্থীরা বলেন, হত্যাকাণ্ডের তিন বছর পার হলেও কারও শাস্তি নিশ্চিত হয়নি। অনেকে এখন রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠিত। আবু বকরের রক্তের সিঁড়ি বেয়ে প্রতিষ্ঠিত ছাত্রনেতাদের ধিক্কার জানিয়ে সভায় তাদের বিচার দাবি করা হয়। ঢাকা ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন অব মধুর শহীদ স্মৃতি (ডিইউশামস) এই আলোচনা সভার আয়োজন করে। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, আবু বকরের হত্যাকাণ্ডই যেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শেষ হত্যাকাণ্ড হয়। আর কোন মেধাবীর রক্তে যেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পবিত্র অঙ্গন রঞ্জিত না হয়। তিনি বলেন, আমরা তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশের মাধ্যমে অপরাধীদের কথা জনগণের কাছে তুলে ধরেছি। পুলিশ চার্জশিট দিয়েছে ও তদন্ত করছে। যারা সন্ত্রাসী তারা এই তদন্ত কমিটিকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে।  দোষীদের শাস্তি হোক আমি এটা চাই। ভিসি বলেন, আমাদের মতপার্থক্য বা বিরোধ থাকবে। তবে এতে জীবন দিতে হবে- এটা বন্ধ করতে হবে। সংগঠনের সভাপতি মো. আসলাম হোসেনের সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান,  সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো. রাসেল খান, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মফিজুর রহমান সুমন। ২০১০ সালের ১লা ফেব্রুয়ারিতে রুমে ছাত্র তোলাকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্যার এএফ রহমান হলে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষ থামাতে পুলিশ হলে অভিযান চালালে আবু বকর আহত হন। ৩রা ফেব্রুয়ারি ঢাকা  মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট