Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

পদ্মা সেতুর অর্থায়নে সারচার্জ আরোপের প্রস্তুতি চলছে

ঢাকা, ২৫ জুলাই: জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান ড. নাসির উদ্দিন আহমেদ জানিয়েছেন, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু তৈরি করতে সারচার্জ আরোপের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। কোন কোন খাত থেকে এবং কত শতাংশ হারে সারচার্জ আদায় করা হবে এ নিয়ে কাজ করছে এনবিআর। এ নিয়ে চলতি মাসের ৩১ তারিখ ১১টায় সব মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বৈঠক হবে।

 

বুধবার এনবিআর কার্যালয়ে ২০১২-১৩ অর্থবছরের রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের কৌশল নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

 

পদ্মা সেতুতে বিশ্বব্যাংক ঋণ পুনর্বিবেচনা না করলে সরকারের নিজস্ব অর্থায়ন কার্যক্রম কী পদ্ধতিতে এগুবে এমন প্রশ্নের জবাবে ড. নাসির উদ্দিন আহমেদ বলেন, “চলতি মাসের ৯ তারিখের কেবিনেট মিটিং এ সারচার্জ আরোপের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এর পরে অর্থমন্ত্রণালয় থেকে সারচার্জ আরোপ করার বিষয়ে কাজ করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বর্তমানের বঙ্গবন্ধু সেতু তৈরিতে যেহেতু আমাদের সারচার্জ আরোপের অভিজ্ঞতা রয়েছে সে আলোকেই আমরা কাজ করছি। এ নিয়ে চলতি মাসেই আরেকটি আন্তমন্ত্রণালয় বৈঠক রয়েছে। সেখানে সারচার্জ আরোপের খাত এবং শতকরা হারে আদায়ের পরিমাণের বিষয়টি চূড়ান্ত করা হবে।

 

পদ্মা সেতুতে দান করলে আয়করের ক্ষেত্রে কোনো সুবিধা দেয়া হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, “বঙ্গবন্ধু সেতু তৈরির সময়ে একটি আয়কর অধ্যাদেশ জারি করা হয়েছিল। ওই আইন অনুযায়ী ১০ শতাংশ আয়কর মওকুফ (ট্যাক্স রিবেট)

করার বিধান রয়েছে। পূর্বের আইনটি এবারো বহাল থাকবে।”

 

চলতি অর্থবছরে এক লাখ ১২ হাজার ২৫৯ কোটি টাকার রাজ্বস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে যা স্বাধীনতার পরে সর্বোচ্চ। এত বড় লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে আমরা বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করেছি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কৌশল হচ্ছে-কর প্রশাসনের দক্ষতা বৃদ্ধি করা। কর বিষয়ে ব্যাপক প্রচার ও প্রচারণা চালানো, রাজস্ব আদায় ব্যবস্থাকে ডিডিটালাইজ করা, কর ফাঁকি রোধ করা, উৎসে কর আদায় নিশ্চিত করা এবং কর বিভাগের সম্প্রসারণ কার‌্যক্রম বাস্তবায়ন করা।

 

রাজস্ব কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে লোকবল সংকটের কথা উল্লেখ করে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, “মাঠপর্যায়ে যারা আমাদের লোকবল অত্যন্ত সংকট। বিশেষ করে শুল্ক বিভাগে ইন্সপেক্টরের খুবই স্বল্পতা রয়েছে। এজন্য আমরা পিএসিকে এক হাজার লোকের জন্য রিকুইজিশন দিয়েছি। অতি অল্প সময়ে আমরা এ লোকবল পেয়ে যাবো।”

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট