Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

স্বাধীনতায় অবদানের স্বীকৃতি, ভারতীয় উদ্যোক্তাদের জন্য বিশেষ এলাকা

ঢাকা, ২২ জুলাই: ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে অনবদ্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে’ ভারতের শিল্প উদ্যোক্তাদেরকে দেশের বিশেষায়িত শিল্পাঞ্চলে (এসইজেড) বিনিয়োগের জন্য বিশেষ এলাকা বরাদ্দ দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া।

তিনি বলেন, ‘‘আধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর শিল্পায়নের জন্য বাংলাদেশ ভারতের অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে আগ্রহী। ভারতের শিল্পখাতে অর্জিত অভিজ্ঞতা সরেজমিনে দেখতে খুব শীঘ্রই বাংলাদেশি শিল্পোদ্যোক্তা প্রতিনিধিদল ভারত সফর করবে।’’

বাংলাদেশ সফররত কনফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান ইন্ডাস্ট্রি এর প্রতিনিধিদলের সাথে আয়োজিত বৈঠকে শিল্পমন্ত্রী একথা বলেন। রোববার শিল্পমন্ত্রীর দফতরে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার তারিক আহমাদ করিম, শিল্পসচিব কে এইচ মাসুদ সিদ্দিকী, অতিরিক্ত সচিব এ বি এম খোরশেদ আলম, বাংলাদেশি শিল্পোদ্যোক্তা আবদুল মাতলুব আহমাদ, কনফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান ইন্ডাস্ট্রি এর সভাপতি আদি গোদরেজ, সাবেক সভাপতি শেখর দত্ত, মহাপরিচালক চন্দ্রজিৎ ব্যানার্জিসহ অন্যান্য প্রতিনিধি ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশের শিল্পখাতে ভারতীয় বিনিয়োগের সম্ভাবনা নিয়ে বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা হয়। এসময় ভারতীয় উদ্যোক্তারা বাংলাদেশে গ্যাস উত্তোলন, নবায়নযোগ্য জ্বালানি প্রযুক্তি, আইসিটি, উদ্যোক্তা প্রশিক্ষণ, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পখাতের উন্নয়নসহ সম্ভাবনাময় শিল্পখাতে বিনিয়োগের বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

ভারতীয় প্রতিনিধিদলের সদস্যরা বলেন, অভ্যন্তরীণ বিশাল বাজার এবং ভৌগোলিক অবস্থানের জন্য বাংলাদেশ ভারতীয় উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে পেরেছে। ভারতীয় বিনিয়োগ বাংলাদেশে ব্যাপকহারে কর্মসংস্থান সৃষ্টির পাশাপাশি গুণগত শিল্পায়নের ক্ষেত্রে সহায়তা করবে। তারা দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বাড়াতে দু’দেশের মধ্যে শিল্প উদ্যোক্তা প্রতিনিধিদলের সফর বিনিময়ের ওপর গুরুত্ব দেন এবং বাংলাদেশের টেকসই এসএমইখাতের বিকাশে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ ও প্রযুক্তি সহায়তার প্রস্তাব করেন।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, শিল্পখাতে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক সহায়তা পেতে বাংলাদেশ বহুমাত্রিক যোগাযোগ সম্পর্ক (Multidimentional Connectivity) স্থাপনের প্রতি গুরুত্ব দিচ্ছে। জ্বালানি ও বিদ্যুৎখাতে সক্ষমতা বাড়াতে বাংলাদেশ ইতোমধ্যে প্রতিবেশী দেশ নেপাল ও ভূটানের সাথে যৌথভাবে কাজ করছে। তিনি বাংলাদেশের শিল্পখাতে ভারতীয় বিনিয়োগ প্রস্তাবকে স্বাগত জানান। এর ফলে দু’দেশের জনগণই লাভবান হবে বলে তিনি অভিমত দেন। তিনি দেশের এসএমইখাতের উন্নয়নে ভারতের প্রশিক্ষণ ও প্রযুক্তিগত সহায়তার প্রস্তাবের প্রতি ইতিবাচক মনোভাব পোষণ করেন।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট