Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

লায়লাকে আমি বিয়ে করতে চেয়েছিলাম জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকারোক্তি

অভিনেত্রী লায়লা খানকে আমি ভালবাসতাম। তাকে বিয়ে করতে চেয়েছিলাম আমি। কিন্তু এতে বাধা হয়ে দাঁড়ায় আমার পিতা কামাল যাদব। বলিউডের অভিনেত্রী লায়লা খান হত্যাকাণ্ডে পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে এসব কথা বলেছে সোনু ওরফে ওয়াফি খান। সমপ্রতি লায়লা খান, তার মা সেলিনা খানসহ মোট ৬ জনকে হত্যা করা হয়। এ নিয়ে নানা রকম কথা চালু আছে। সোনু জিজ্ঞাসাবাদে বলেছে, ২০১০ সালে লায়লা খানের সঙ্গে তার সাক্ষাৎ। তারপর থেকে সে তার পেছনে কয়েক লাখ রুপি খরচ করে। কিন্তু লায়লা ছিলেন সোনুর চেয়ে ৭ বছরের বড়। এতেই বেঁকে বসেন সোনুর পিতা কামাল। এর ফলে ২০১১ সালের ১২ই ফেব্রুয়ারি পিতা কামালের সম্মতিতে নয়া মুম্বইয়ের জুহু এলাকায় তার নিজের অফিসের এক ম্যানেজারকে বিয়ে করেন সোনু। তিনি বলেছেন, প্রথমে তিনি এমটিভি’র এক ভিডিও জোকারকে বিয়ে করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তখনই তার সঙ্গে সাক্ষাৎ হয়ে যায় লায়লার এবং তিনি তার প্রেমে পড়ে যান। ওড়িশায় কসবা হোটেলে এই যুগলের প্রথম বৈঠক হয়। কয়েক দিন আগে যখন খবর ছড়িয়ে পড়ে যে, লায়লা নিখোঁজ। তিনি পালিয়ে দুবাই চলে গেছেন দাউদ ইব্রাহিমের কাছে- তখন পিতা কামাল তার ছেলে সোনুকে বিদেশ চলে যেতে নির্দেশ দেন। কারণ, সোনু এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত নন। লায়লার সঙ্গে তার যোগসূত্র থাকায় তাকে নিয়েও টানাহেঁচড়া হতে পারে। তাই সোনু তার পিতার পরামর্শ মেনে নেয়। নিজের অফিস বন্ধ করে চলে যান বিদেশে। লায়লা খান যখন নিখোঁজ হলেন ঠিক সেই সময়েই বিয়ে করেন সোনু। এখন পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ সোনুকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে, লায়লা নিখোঁজের সময়কালেই কেন তিনি বিয়ে করলেন। পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেছেন, সোনু চলে গিয়েছিলেন দুবাই। সেখান থেকে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে আনা হয়েছে। লায়লা নিখোঁজ হওয়ার পর পরই তিনি কেন দুবাই পাড়ি জমালেন তা জানতে চাইছে পুলিশ। এছাড়া গত এক বছরে তিনি ঘন ঘন মোবাইলের নাম্বার পাল্টেছেন। কেন তা করেছেন তা-ও বের করার চেষ্টা করছে পুলিশ।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট