Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

আওয়ামী লীগ না থাকলে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বন্ধ হবে: ড. মিজান

ঢাকা, ১৪ জুলাই: জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মিজানুর রহমান বলেছেন, “সরকারের মাঝেই জামায়াতের এজেন্ট লুকিয়ে রয়েছে। যারা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বানচাল করার জন্য ষড়যন্ত্র করছে।”

 

শনিবার সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটেতে সেক্টর কমান্ডার্স ফোরাম  আয়োজিত ‘যুদ্ধাপরাধীদের বিচার: অগ্রগতি ও সমস্যা’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে তিনি এ মন্তব্য করেন।

 

তিনি বলেন, “সরকারের ও প্রশাসনের মধ্যে লুকিয়ে থেকে তারা এই বিচারকে বানচাল করার জন্য ষড়যন্ত্র করছে। এদের চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনতে হবে। কারণ, আওয়ামী লীগ সরকার যদি আবার ক্ষমতায় না আসতে পারে, তাহলে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চিরকালের জন্য বন্ধ হয়ে যাবে।”

 

ট্রাইব্যুনালে পাবলিক প্রসিকিউটররা হোম ওয়ার্ক করে আসেন না অভিযোগ করে তিনি বলেন, “আমি বিচারের সময় ট্রাইব্যুনালে গিয়েছিলাম। সেখানে দেখেছি আসামি পক্ষের আইনজীবীরা তদন্ত রিপোর্ট সম্পর্কে অনেক হোম ওয়ার্ক করে আসেন। কিন্তু সে তুলনায় পাবলিক প্রসিকিউটররা হোম ওয়ার্ক করেন না।”

 

লিমন নিরপরাধ দাবি করে ড. মিজান বলেন, “লিমনের মতো নিরপরাধ ছেলের পেছনে সরকার সময় ও অর্থ ব্যয় করছে। অথচ বাচ্চু রাজাকার সবার চোখ ফাঁকি দিয়ে পালিয়েছে। তাই লিমনের মতো নিরপরাধ ছেলের পেছনে সময় ব্যয় না করে বাচ্চু রাজাকারদের মতো চিহ্নিত অপরাধীদের বিচার করতে হবে।”

 

তিনি বলেন, “নিরাপত্তার অভাবে অনেকে সাক্ষী দিতে চায় না। তাই সাক্ষীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য ভিক্টিম উইটনেস প্রটেকশন অ্যাক্ট প্রণয়ন করতে হবে।”

 

সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব হারুন হাবীবের সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন আর্ন্তজাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আদালতের চিফ প্রসিকিউটর গোলাম আরিফ টিপু, প্রধান তদন্ত কর্মকর্তা আব্দুল হান্নান খান, লে. কর্লেন আবু ওসমান, অ্যাডভোকেট মুঞ্জুর মোর্শেদ প্রমুখ।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট