Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

ডিসিদের বিচারিক ক্ষমতা দেয়া যুক্তিসঙ্গত নয় : আইনমন্ত্রী

জেলা প্রশাসকদের  অপরাধ আমলে নেয়ার এখতিয়ার ও সংক্ষিপ্ত বিচার পরিচালনার ক্ষমতা দেয়ার দাবি নাকচ করে দিয়েছেন আইনমন্ত্রী শফিক আহমেদ। তিনি বলেন, জেলা প্রশাসকদের এ ক্ষমতা দেয়া যুক্তসঙ্গত নয়। আইনে তাদের এমন কোন ক্ষমতা দেয়ার বিধানও নেই।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলনের শেষ দিনে আইন ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সভা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী এ কথা বলেন।

শফিক আহমেদ বলেন, ফৌজদারি দন্ডবিধি সংশোধন করে পূর্বে ডিসিদের ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার ক্ষমতা দেয়া হয়েছিল। এ ক্ষমতা আর বাড়ানো কোনভাবেই সম্ভব নয়। সংবিধান ও ফৌজদারি কার্যবিধির সর্বশেষ সংশোধনের মাধ্যমে বিচার বিভাগকে নির্বাহি বিভাগ থেকে সম্পূর্ণ আলাদা করা হয়েছে। এতে বিচার বিভাগকেই বিচারিক ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। এ অবস্থায় নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেটদের বিচারিক ক্ষমতা দেয়া সম্ভব নয়। এজন্য ফৌজদারি কার্যবিধি সংশোধনের উদ্যোগ নেওয়া হলে তা সুপ্রিম কোর্টের আদেশের লঙ্ঘন হবে।

তিনি বলেন, সভায় জেলা প্রশাসকরা আদালত অবমাননা আইনের অধীনে তাদের আদালতের নোটিশ দেয়ার বিষয়টি উল্লেখ করেন। ডিসিদের আদালতে হাজির হতে হয়। তারা হেনস্তা হন। তাদের জানানো হয়েছে, আদালত অবমাননা আইনটি যুগোপযোগী করা হচ্ছে। এখন এটি আইন মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পর্যালোচনা  করা হচ্ছে।

কোন কোন কাজের জন্য আদালত অবমাননা হয় এ আইনে তা নির্দিষ্ট করে দেয়া হয়েছে। এতে ডিসিরা এখন যে ভয় নিয়ে কাজ করেন তা আর থাকবে না। আইনটি আগামী সংসদ অধিবেশনে পাস হবে বলেও জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, খাসজমি সংক্রান্ত আদালতে থাকা মামলার বিষয়ে সরকারি কৌসুলিদের তদারকি এবং নথিপত্র দিয়ে সহায়তার করতেও ডিসিদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। খাস জমি যাতে বেহাত না হয় এজন্য তাদের আরো কার্যকর ভূমিকা রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

শফিক আহমেদ আরো বলেন, বিভিন্ন সময়ে উচ্চ আদালত থেকে বিভিন্ন বিষয়ে ডিসিদের প্রতি আদেশ দেওয়া হয়ে থাকে। যা অনেক সময় ঠিকমতো পালন করা হয় না। এসব আদেশ যাতে যথাযথভাবে পালন করা হয় সে ব্যাপারে ডিসিদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার সম্পর্কিত কোন নির্দেশনা ডিসিদের দেওয়া হয়েছে কিনা এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, না এমন কোন আলোচনা হয়নি।

জেলা প্রশাসকদের বয়স্ক ভাতা দেয়ার ক্ষেত্রে বয়স ৬০ করার দাবি প্রসঙ্গে সমাজকল্যাণমন্ত্রী এনামুল হক মোস্তফা শহীদ বলেন, দেশে বর্তমানে মৃত্যুহার কমেছে, তাই বুড়োদের সংখ্যাও বেড়েছে। এ অবস্থায় এসব বয়স্ক ব্যক্তিদের কিভাবে পারিবারিক বলয়ে রেখে সহায়তা দেওয়া যায়, তা সরকারের বিবেচনায় রয়েছে।

এনজিওদের কার্যক্রম তদারকি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিদেশ থেকে টাকা এনে অনেক এনজিও রাষ্ট্রবিরোধী তৎপরতা চালাচ্ছে। এ ধরণের তৎপরতায় জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ায় সরকার ইতোমধ্যে ৫ হাজারের বেশি এনজিও’র নিবন্ধন বাতিল করেছে। এ অবস্থায় এনজিওগুলোর কর্মকান্ড নিয়ন্ত্রণে সব এনজিওকে একটি ছাতার নিচে আনার প্রক্রিয়া চলছে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট