Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

মীর কাসেমকে সেফ হোমে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি

ঢাকা, ৮ জুলাই: মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে আটক জামায়াতের নির্বাহী পরিষদের সদস্য ও দিগন্ত মিডিয়া করপোরেশনের ম্যানেজিং কমিটির চেয়ারম্যান মীর কাসেম আলীকে সেফ হোমে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তদন্ত কর্মকর্তাদের অনুমতি দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

 

রোববার ট্রাইব্যুনাল-১ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি নিজামুল হকের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনালে এ বিষয়ে  আদেশ দেন।

 

তাকে কবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে এ সংক্রান্ত তারিখ নির্ধারণ করবেন তদন্ত কর্মকর্তারা এবং জিজ্ঞাসাবাদের দুদিন আগে আসামিপক্ষের আইনজীবীকে তারিখ জানাবেন।

 

তদন্ত কর্মকর্তারা সকাল ১০টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য সময় পাবেন। তবে দুপুরে এক ঘণ্টার বিরতি দিতে হবে। ওই সময় তিনি তার খাবার ও অন্যান্য কাজ শেষ করবেন।

 

মীর কাসেম আলীকে সেভ হোমে জিজ্ঞাসাবাদ করার সময় ট্রাইব্যুনালের তদন্ত কর্মকর্তার সঙ্গে ওইদিন তার আইনজীবী ও একজন ডাক্তার পাশের কক্ষে উপস্থিত থাকবে বলে আদেশে বলা হয়েছে।

 

একই সঙ্গে ট্রাইব্যুনালের আদেশে মীর কাসেম আলীর বিরুদ্ধে ফরমালচার্জ অথবা তদন্তের অগ্রগতি প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

 

এর আগে গত বৃহস্পতিবার সকালে ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রারের কাছে মীর কাসেম আলীকে সেফ হোমে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রসিকিউশনের মাধ্যমে ট্রাইব্যুনালে আবেদন করে তদন্ত সংস্থা।

 

গত ১৭ জুন মীর কাসেম আলীকে মতিঝিলে দৈনিক নয়া দিগন্তের অফিস থেকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর ১৮ জুন তার জামিন আবেদন করা হয়। পরে ১৯ জুন ওই আবেদনের ওপর শুনানি শেষে তা খারিজ করে তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়।

 

একই সঙ্গে মীর কাসেম আলীর বিষয়ে তার তদন্তকারী কর্মকর্তার করা তদন্তের অগ্রগতি প্রতিবেদন ১২ আগস্টের মধ্যে ট্রাইব্যুনালে দাখিল করতে বলা হয় আদেশে। আজ ওই বিষয়ে শুনানির আগে সকালে মীর কাসেম আলীকে ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়।

 

অন্যদিকে জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের (ওপেনিং স্টেটমেন্ট) উপস্থাপনের দিন ধার্য ছিল। রোববার অন্যান্য মামলার শুনানির কারণে তার মামলার কার্যক্রম সোমবার পর্যন্ত মুলতবি করেছেন।

 

জামায়াতের আরেক নেতা নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর বাসা থেকে আনা খাবারের বিষয়ে শুনানি হলেও আদেশ দেবেন পরে। তাকে কুরআন হাদিস পড়তে দেয়ার অনুমতি চেয়ে আবেদনের বিষয়ে জেল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে একটি লিখিত আনতে বলা হয়েছে।

 

সাঈদীর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিনকে জেরা করছেন তার আইনজীবী মিজানুল ইসলাম।

 

 

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট