Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে জুয়ার আসর ! ২০ জনকে আটক করেও ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ

 ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে দিনে তুখোড় পড়ালেখা হলেও রাতে বসছে জুয়ার আসর। যাতে করে নষ্ট হচ্ছে প্রাচীন এই বিদ্যাপীঠের ভাবমূর্তি আর সুনাম।

সর্বশেষ শুক্রবার রাতে এমনি এক জুয়ার আসর থেকে ১৫ থেকে ২০ জনকে আটক করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। প্রক্টরিয়াল টিমের সহায়তায় শাহবাগ থানা পুলিশ তাদেরকে আটক করে।

জুয়ারীরা সবাই প্রভাবশালী হওয়ায় তাদেরকে থানায় নেয়া সম্ভব হয়নি। এসময় উপস্থিত সাধারন শিক্ষার্থীরা তাদের প্রাইভেটকার ভাংচুরের চেষ্টা চালায়। তবে আটকের সময় জুয়ারিরা নিজেদেরকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র বলে দাবি করে। তারা জানায়, একসময় তারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র-রাজনীতি করতো। সেসময় তারা প্রতিপক্ষকে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া করতো। এখন কর্মজীবনে তারা এখানে এসে কোন মারামারি নয়। তবে নিয়মিত জুয়া খেলছে। লাইফটাকে এনজয় করছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, লাইব্রেরির সামনের অংশে বা পুরাতন আর্কাইভে যাওয়ার রাস্তায় প্রতিদিন বিকালে, সন্ধায় ও রাতে বসে জুয়ার আসর। এসময় তাদের সামনে রাখা হয় টাকার বান্ডেল। আর দর্শক সংখ্যাও মোটামুটি হয়ে থাকে। দর্শকদের মধ্যে অনেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান শিক্ষার্থী। কেবল লাইব্রেরির আশে পাশেই নয়, ঢাবি ক্যাম্পাসে এরকম চিত্র বর্তমানে হরহামেশাই দেখতে পাওয়া যায়।

শুধু লাইব্রেরিই নয়, ঢাবির বিভিন্ন হলে ছাত্রলীগের নেতাদের সহায়তায় বহিরাগতদেরকে নিয়ে নিয়মিত জুয়ার আসর বসানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। যাতে সংক্ষুব্ধ সাধারণ শিক্ষার্থিরা। তবে ভয়ে তারা কিছু বলতে পারছেন না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষার্থী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, নানান কারনে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশের চরম বিপর্যয় ঘটছে। ক্যম্পাসে যার যা ইচ্ছা তাই করছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক আমজাদ আলী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এর আগে আমরা চারবার ওয়ার্নিং দিয়েছি। তবে সবাই তাদেরকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র বলে দাবি করছে। অন্যদিকে সাথে তাদের দামি গাড়ি থাকায় তাদেরকে প্রভাবশালী বলে মনে হয়েছে। তাই পুলিশও তাদেরকে আটক করতে সাহস পায়নি। তবে আমরা তাদেরকে সতর্ক করে দিয়েছি।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট