Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

পদ্মা সেতু করতে বিদেশী সাহায্য লাগবে: অর্থমন্ত্রী

কলকাতা, ৭ জুলাই: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মহিত মনে করেন বাংলাদেশের অর্থ দিয়ে পদ্মা সেতুর করা গেলেও অবশ্যই সেখানে বিদেশী সাহায্যেরও প্রয়োজন আছে। অর্থমন্ত্রীর আরো দাবি, বিশ্বব্যাংক যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেটিও প্রত্যাহার করা সম্ভব হবে। এবং তিনি তারই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। শুক্রবার রাতে কলকাতা থেকে আনুমানিক তিনশো কিলোমিটার দূরের বর্ধমানের টাউন হলে সাংবাদিকদের এই কথা বলেন।

গত ৪ জুলাই সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষ মিলেই পদ্মা সেতু নির্মান করা হবে। শুধু তিনিই নন, সংসদের বাইরে সরকারের শীর্ষ স্থানীয় মন্ত্রীরাও নিজেদের অর্থায়নের পদ্মা সেতু গড়ার দৃঢ় অবস্থানের কথা বলছেন।

ঠিক এমন এক বাস্তবতায় বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত কিন্তু খানিকটা ভিন্নমত পোষণ করলেন। অর্থনীতিতে এই উদ্যোগ ভালো হবে না বলে ৪ জুলাই রাতেই দাবি করেছিলেন অর্থমন্ত্রী। সেদিন এ নিয়ে তার যুক্তি ছিল, নিজেদের অর্থায়নে করতে গেলে বাংলাদেশের উন্নয়ন, শিক্ষা, পরিকাঠামো খাত থেকে ব্যয় সংকোচন করতে হবে। এর জন্য বাংলাদেশকে কষ্ট করতে হবে। অর্থনীতির জন্য এই উদ্যোগ সুখকর হবে না।

প্রধানমন্ত্রী দৃঢ় অবস্থানের পরও অর্থমন্ত্রী গত দুদিনের তার অবস্থান বদল করেনি বলে বর্ধমানের স্পষ্ট মত বোঝা গেল।

গতকাল শুক্রবার রাতে কাজি নজরুল ইসলামের বিদ্রোহী কবিতার ৯০ বছর পূর্তির অনুষ্ঠান ছিল। সেখানে এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, “আমি বিশ্বব্যাংকের এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেনি। বিশ্বব্যাংকের সিদ্ধান্তও প্রত্যাহার করার চেষ্টা চলছে। পদ্মা সেতু হবে। আমরা নিজেরা অর্থ দিতে পারবো ঠিক-ই। কিন্তু বৈদেশিক সাহায্যের প্রয়োজন আছে। আমরা সেই সাহায্য আদায় করবো।”

বর্ধমানের চুরুলিয়ার কাজী নজরুল ইসলাম জন্মগ্রহণ করেন। ওই শহরের টাউন হলে শুক্রবারের এই অনুষ্ঠানে কলকাতার বাংলাদেশ উপদূতাবাসের ডেপুটি হাইকমিশনার আবিদা ইসলাম এবং নজরুল ইনস্টিটিউটের পরিচালক কবি রশিদ হায়দার এবং রাজা রাম মোহন ইনস্টিটিউটের পরিচালক কে কে মুখার্জি উপস্থিত ছিলেন।

কেন্দ্রীয় সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ৪ জুলাই থেকে ৬ জুলাই পর্যন্ত তিনদিন সল্টলেক, কলকাতা ও বর্ধমানের পৃথক তিনটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের শিল্পী-সাহিত্যিক-আবৃত্তিকাররাও যোগ দিয়েছেন।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট