Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

দাফন সম্পন্ন : কান্নায় ভারী ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাতাস

মালয়েশিয়ায় নিহত ৫ বাংলাদেশির লাশের দাফন সম্পন্ন হয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে। শুক্রবার বাদ জুমা বড়িকান্দির নুরজাহানপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে নামাজে জানাজা শেষে তাদের নিজ নিজ বাড়িতে দাফন করা হয়।

নিহতরা হলেন- নুরজাহানপুর গ্রামের প্রবাসী জয়নাল মিয়ার ছেলে সজিব (২৮), ধরাভাঙ্গা গ্রামের কৃষক কিবরিয়ার ছেলে গোলাম সারোয়ার বাবু (৩০), বড়িকান্দির কৃষক গাজিউর রহমানের ছেলে বাছির মিয়া (২৫) ও ফারুক মিয়া (২২) এবং চুনু মিয়ার ছেলে হাফেজ (২৮)।

বেলা সাড়ে ১২টায় পিক আপ ভ্যান ও এ্যাম্বুলেন্সে করে কফিনে ভরা লাশ নুরজাহানপুর বিদ্যালয় মাঠে আনার পর হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। লাশ দেখার জন্য হাজার হাজার মানুষ ছুটে আসেন।

লাশগুলো বিকৃত হওয়ায় দেখতে দেয়া না হলে কাউকে শান্তনা দেয়ার ভাষা ছিলনা। নিহতদের স্বজন ও এলাকাবাসীর কান্নায় ভারি হয়ে ওঠে বড়িকান্দির বাতাস। সবাই অঝোরে কেঁদেছেন। ঘটনাস্থলে উপস্থিত মন্ত্রী, জাতীয় সংসদরাও বক্তব্য দেয়ার সময় আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন।

জুম্মার নামাজের পর একই সঙ্গে নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। পরে নিজ নিজ পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়। পরিবারিক কবর স্থানে প্রত্যেক লাশ দাফন সম্পন্ন হয়।

জানাজার অংশ নেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ আসনের সংসদ সদস্য ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন (অব.) এ বি তাজুল ইসলাম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসনের সংসদ সদস্য জিকরুল আহামেদ খোকন, জনশক্তি রফতানী ব্যুরোর কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সামসুল আলম হেমেদী, নবীনগর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জিয়াউল হক সরকারসহ প্রশাসনের কর্মকর্তা ও রাজনীতিবিদসহ সমাজের সর্বস্তরের মানুষ।

প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন (অব.) এবি তাজুল ইসলাম তার বক্তব্যে বলেন, আমার কাছে এ মৃত্যু আমার ভাইয়ের মৃত্যু। পরিবারকে সমবেদনা জানানোর ভাষা আমার জানা নেই।

মন্ত্রী প্রত্যেক পরিবারকে ১ লাখ টাকা করে দেয়ার ঘোষণা দেন। সেই সাথে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকেও প্রত্যেক পরিবারকে ২ লাখ টাকা করে দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

মালয়েশিয়ায় নিহতদের কর্মস্থল থেকেও প্রত্যেক পরিবারকে সহযোগিতা করার বিষয়ে যোগাযোগ করা হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে সংসদ সদস্য জিকরুল আহামেদ খোকন তার এক মাসের বেতন পরিবারগুলোকে দিয়ে দেন।

এদিকে জনশক্তি রফতানী ব্যুরো থেকে লাশ দাফনের জন্য প্রতি পরিবারকে ৩৫ হাজার টাকা করে প্রদান করা হয়।

জানাজায় ৫ হাজারেরও বেশি মানুষ অংশ নেন।

উল্লেখ্য, মালয়েশিয়ায় বৈদ্যুতিক শর্ট সাকির্টে লাগা আগুনে পুড়ে সোমবার রাতে ৫ বাংলাদেশি শ্রমিক নিহত হন। তারা সবাই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বড়িকান্দি ইউনিয়নের বাসিন্দা।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


One Response to দাফন সম্পন্ন : কান্নায় ভারী ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাতাস

  1. মাসিক বালুচর

    July 7, 2012 at 11:45 am

    আমরা শোকাহত