Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

‘ইত্যাদি’ যেন এমনই থাকে যুগ যুগ

 ‘ইত্যাদি’ যেন এমনই থাকে যুগ যুগ। পরিবেশবান্ধব, সমাজসুখকর, জনকল্যাণমূলক আর অনাবিল আনন্দে ভরপুর। যেমনটা বরাবরের মতো দেখা গেল এই শুক্রবারেও। ‘ইত্যাদি’ মানেই যেন সঠিক, সুন্দর পথ দেখায় ভুল পথে চলাচলকারীকে। নতুন আলোর প্রদীপ জ্বালে অন্ধকারের জাল ছিন্ন করে। আমাদের জাতীয় সংগীতের প্রথম কলি ‘আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি’। দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে নানা অসঙ্গতি যেন বড় মধুর এ বাণীকে ক্রমশ উল্টে দিচ্ছে। এসব অসঙ্গতি নিত্যই জন্ম দিয়ে চলেছে বিরামহীন অশান্তি আর বেদনার হিংস্র হায়েনা। যার আঘাতে জর্জরিত আমাদের দৈনন্দিন স্বাভাবিক জীবনযাপন। এসবের মাঝে ‘ইত্যাদি’ যেন এক অনিমেষ সুখ। দীর্ঘ বছর ধরেই এক তালে, এক মানে এ অনুষ্ঠানটি যেমন জোরালোভাবে সমাজ-সংসারের নানা অসঙ্গতি চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে চলেছে, তেমনই দারুণ মুন্সিয়ানার সঙ্গে সেসব অসঙ্গতি দূরীকরণে পথপ্রদর্শকের ভূমিকাও পালন করছে নিরলসভাবে। আর এ সবই সম্ভব হচ্ছে আকাশছোঁয়া জনপ্রিয় এ অনুষ্ঠানটির প্রাণপুরুষ হানিফ সংকেতের দুর্দান্ত সব পরিকল্পনা আর সেসবের যথার্থ গাঁথুনির এক একটি ‘ইত্যাদি’ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে। আমাদের সভ্যতা, সংস্কৃতি, ইতিহাস, ঐতিহ্য ও বিভিন্ন প্রত্নতাত্ত্বিক গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে গিয়ে ‘ইত্যাদি’র মূল অনুষ্ঠান ধারণ করার ধারাবাহিকতায় এবাবের পর্বটি ধারণ করা হয়েছিল ময়মনসিংহের প্রাচীন ও ঐতিহাসিক নিদর্শন শশীলজে। এ উপলক্ষে বর্ণিল আলোয় সেজেছিল শশীলজ। চোখধাঁধানো লাইটিং আর আকর্ষণীয় সেট অন্যরকম মাত্রা যোগ করেছে পুরো আয়োজনে। আর এর সঙ্গে অনুষ্ঠানের আইটেম বিন্যাসে সুদক্ষ পরিকল্পনার বাস্তবায়ন দারুণ লেগেছে। বিশেষ করে পরিবেশ দূষণ ও ট্রেনযাত্রীদের নিরাপত্তা বিঘ্নকারী একটি ঘটনা নিয়ে সচেতনতামূলক প্রতিবেদন দু’টি ছিল ব্যতিক্রমের মোড়কে মোড়ানো। ‘ইত্যাদি’তে বরাবরই ভিন্ন আঙ্গিকে গান প্রচার করার প্রয়াস থাকে। এজন্য অনুষ্ঠানটিতে অধিকাংশ ক্ষেত্রে বিষয়ভিত্তিক, লোকসংগীত ও দেশাত্মবোধক গানকে প্রাধান্য দেয়া হয়। এবারের ইত্যাদিতেও ছিল তেমন একটি গান। যেটি দ্বৈতকণ্ঠে গেয়েছেন দেশীয় সংগীতের জনপ্রিয় দুই শিল্পী ফাহমিদা নবী ও সামিনা চৌধুরী। ময়মনসিংহের লোকধারায় নবজাত শিশুকে নিয়ে দাদা-দাদী, নানা-নানী যে আনন্দগীতি গেয়ে উৎসব করতেন সেই বিষয় নিয়েই ছিল গানটির আয়োজন। কথা, সুর আর শিল্পীদ্বয়ের জাদুকরী কণ্ঠ ও গায়কীগুণে গানটি হৃদয় ছুঁয়ে গেছে। সে সঙ্গে স্থানীয় শিল্পীদের কোরিওগ্রাফিও ছিল উপভোগ্য। আজকাল বিভিন্ন লাইভ অনুষ্ঠানে যেসব স্বঘোষিত শিল্পী আত্মপ্রশংসা, আত্মপ্রচার করে থাকেন, তাদের নিয়ে ‘ইত্যাদি’র নিয়মিত শিল্পী অর্জুন ও চান্নুর পরিবেশিত গানটিও ছিল ভাল লাগার উপাদানে ভরপুর। মহুয়ার গান, গারো সমপ্রদায়ের গান এবং ময়মনসিংহের মৌলিক গানের অংশ নিয়ে স্থানীয় তিন শতাধিক নৃত্যশিল্পীর পরিবেশিত নাচটি মুগ্ধতার পরশ ছড়িয়েছে দারুণভাবে। এছাড়াও ইত্যাদির নিয়মিত মামা-ভাগ্নে, নানা-নাতি, দর্শক পর্ব এবং বিভিন্ন সামাজিক অসঙ্গতিকে কটাক্ষ করে পরিবেশিত নাটিকা পর্বগুলোও বরাবরের মতো ছিল শিক্ষণীয় এবং সচেতনতামূলক। সব মিলিয়ে এমন একট সমৃদ্ধ ‘ইত্যাদি’ উপহার দেয়ায় অনুষ্ঠানটির জনক হানিফ সংকেতকে আন্তরিক ধন্যবাদ। সেই সঙ্গে এর স্পন্সরকারী প্রতিষ্ঠান কেয়া কসমেটিকস লিমিটেডকে সাধুবাদ ইত্যাদি’র মতো পরিবেশবান্ধব, সমাজ সচেতনতামূলক ও বিনোদনে ভরপুর একটি অনুষ্ঠান দীর্ঘ বছর ধরে পৃষ্ঠপোষকতা করে যাওয়ায়। সবশেষে একটি কথা, ইত্যাদি’র চিঠিপত্রের বিভাগটি বেশ ইতিবাচক প্রভাব রাখে আমাদের সামাজিক বিভিন্ন অসঙ্গতি দূর হওয়ার ক্ষেত্রে। কিন্তু প্রতি তিন মাসের একটি অনুষ্ঠানে মাত্র একটি-দু’টি চিঠি পাঠ তৃষ্ণার্তের সামনে শুধু এক ফোঁটা পানি দেয়ার মতোই মনে হয়। তাই চিঠিপত্রের অংশটি আরও বাড়ানোর দাবি থাকবে ইত্যাদি কর্তৃপক্ষের কাছে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


One Response to ‘ইত্যাদি’ যেন এমনই থাকে যুগ যুগ

  1. JOY RAY

    July 1, 2012 at 8:15 pm

    Jui ke ami amar jiboner cheyeo beshi valobashi kin2 amar question holo ami ekhono jui ke mukh fute kichu bolte parini janina ki hobe amake niye I MISS YOU JUI