Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

ভালবাসার জন্য…

ভালবাসার জন্যই আত্মাহুতি দিয়েছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ থেকে সদ্য পাস করা এক ছাত্রী তনা। মঙ্গলবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন আমবাগান এলাকায় ভাড়া বাসায় আত্মহত্যা করে ৩৫তম ব্যাচের তনা নামে ওই ছাত্রী। গতকাল সকালে নিহত শাহলিনা পারভীন তনার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরিবারের অমতে জাকারিয়া আহমেদ মিহির নামে এক সহপাঠীকে ভালবেসে বিয়ে করায় বাবা-মা’র সঙ্গে সম্পর্কে টানাপড়েন চলছিল তার। এর জের ধরে আত্মহত্যা করেছে বলে জানিয়েছেন তার বন্ধুরা। সূত্র জানায়, গত ডিসেম্বরে মাস্টার্স পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের নওয়াব ফয়জুন্নেসা হল ছেড়ে পার্শ্ববর্তী আমবাগান এলাকায় ১২৫ নং বাসা ভাড়া নেন তনাসহ কয়েক জন বান্ধবী। একই বাসায় আলাদা আলাদা রুমে থাকতেন তারা। তনার বান্ধবী ঝরনা আক্তার জানান, আমরা গত মঙ্গলবার রাতে বটতলা থেকে একসঙ্গে খাওয়া-দাওয়া করে যে যার ঘরে চলে যাই। পরে গতকাল সকাল ৬টায় তনার কোন সাড়া-শব্দ না পেয়ে জানালা দিয়ে উঁকি দিয়ে দেখি ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচানো অবস্থায় তার লাশ ঝুলছে।
অন্য সহপাঠীরা জানান, নানা বিষয় নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে তার পারিবারিক সঙ্কট চলছিল। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূ-তাত্ত্বিক বিজ্ঞান বিভাগের ৩৫তম ব্যাচের (শিক্ষা বর্ষ ২০০৫-০৬) জাকারিয়া আহমেদ মিহির নামে এক শিক্ষার্থীর সঙ্গে দীর্ঘ দিন প্রেমের সম্পর্কের এক পর্যায়ে তার বিয়ে হয়। ওই বিয়েতে মত ছিলো না তার পরিবারের। অপর সহপাঠী জানান, পছন্দের বন্ধুকে বিয়ে করা নিয়ে পারিবারিক ঝামেলা চলছিল বলে জানতাম। তার কারণে হয়তো বা আত্মহত্যা করতে পারে।’ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক তপন কুমার সাহা বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের সদ্য বিদায়ী শিক্ষার্থী হওয়ার কারণে মানবিক দিক বিবেচনায় আমরা তার মরদেহ বাড়িতে পাঠানোর ব্যবস্থা করছি।’ আশুলিয়া থানার কর্মকর্তা (ওসি) বদরুল আলম বলেন, ‘এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। আর পরিবারের পক্ষ থেকে ময়না তদন্ত না করার ব্যাপারে অনুরোধ করা হয়েছে। শাহলিনা পারভীন তনার গ্রামের বাড়ি ঝিনাইদহ জেলার হামদহ বাসস্ট্যান্ড এলাকায়। পিতার নাম লিয়াকত হোসেন ও মা শাহানারা খাতুন।
এদিকে ঢাকায় বসবাসরত তনার স্বামীর পরিবারের সঙ্গে ফোনে  যোগাযোগ করা হলে মিহির জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছে বলে জানান মিহিরের মা। তিনি জানান, ছেলে বিয়ে করেছে জেনে মেয়ের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করি। কিন্তু মেয়ের পরিবার কিছুতেই এই সম্পর্ক মেনে নেবে না বলে জানায়।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট


3 Responses to ভালবাসার জন্য…

  1. ফরহাদ

    June 28, 2012 at 8:46 am

    কাম্য নয়।

  2. sapnil

    June 28, 2012 at 4:29 pm

    very very sad!

  3. khairul

    June 30, 2012 at 11:57 pm

    je nijek valobase na se ono k ki valobasbe.