Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

আবারও বিদ্যুতের দাম বাড়ছে

ঢাকা, ২৪ জুন: বাংলাদেশে মাত্র তিন মাসের মাথায় আবারো বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে বিতরণ কোম্পানিগুলো। ঢাকার তিনটি কোম্পানি খুচরা পর্যায়ে বিদ্যুতের মূল্য ৫০ শতাংশের মতো বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে।

কোম্পানিগুলোর কর্মকর্তারা বলছেন, আলাদা আলাদাভাবে এই প্রস্তাব পাঠানো হলেও তাদের নিজেদের মধ্যে আলাপ আলোচনার পর এই প্রস্তাব রোববার বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন বা বিইআরসির কাছে পাঠানো হয়েছে।

কমিশনের কর্মকর্তারা বলছেন যে, কত শতাংশ বৃদ্ধি করা হবে সে বিষয়ে এখনও কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে এ বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হওয়ার পর বিদ্যুতের নতুন মূল্য কার্যকর করা হবে।

বিইআরসির সদস্য সেলিম মাহমুদ বলেন, পিডিবি ও বিতরণ কোম্পানিগুলোর মধ্যে দামের সমন্বয় করে নতুন মূল্য নির্ধারণ করা হবে। ধারণা করা হচ্ছে, আগামী জুলাই মাস থেকেই এই দাম কার্যকর হতে পারে।

দাম বাড়ানো না হলে সরকারি ভর্তুকির পরিমাণ দাঁড়াবে ১২ হাজার কোটি টাকাও বেশি। এবং তার ফলে সরকারের অন্যান্য খাতগুলো কোম্পানি তিনটি হচ্ছে, ঢাকা ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি ডেসকো, ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি বা ডাব্লিউপিডিসি এবং ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবউশন কোম্পানি বা ডিপিডিসি।

ডাব্লিউপিডিসির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, তাদের প্রস্তাবে বিদ্যুতের দাম প্রায় ৫৭ শতাংশ বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে।

কোম্পানির সচিব রবীন্দ্রনাথ দত্ত বলেন, অন্যান্য কোম্পানিগুলোর সাথে সমন্বয় করে তাদের পক্ষ থেকে এই দাম নির্ধারণ করা হয়েছে।
তিনি বলেন, এই প্রস্তাব গৃহীত হলে প্রতি ইউনিটে গ্রাহকদেরকে দু’টাকা করে বেশি দিতে হবে। অর্থাৎ চার টাকার বিদ্যুতের দাম হবে ছয় টাকা।

সংবাদদাতারা বলছেন, এ মাসের শুরুর দিকে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড বা পিডিবির পক্ষ থেকেও পাইকারি বিদ্যুতের দাম প্রত্যেক ইউনিটে ৫০ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

বিতরণ কোম্পানিগুলো বলছে, পাইকারি বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর পর খুচরা পর্যায়ে দাম বাড়ানো না হলে তারা ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

পিডিবি বলছে, উৎপাদন খরচ বেড়ে যাওয়ার কারণে তারা বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে।

পিডিবির চেয়ারম্যান এএসএম আলমগীর কবির বলছেন, বিদ্যুৎ খাতে ভর্তুকি কমানোর জন্যেই এই পরিকল্পনা।

কবির বলেন, দাম বাড়ানো না হলে সরকারি ভর্তুকির পরিমাণ দাঁড়াবে ১২ হাজার কোটি টাকাও বেশি। এবং তার ফলে সরকারের অন্যান্য খাতগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হবে।এর আগে সর্বশেষ বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছিলো মার্চ মাসে।

আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে মহাজোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর মোট পাঁচবার বিদ্যুতের দাম বাড়িয়েছে। সূত্র: বিবিসি।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট