Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

স্ত্রীর মর্যাদা পেতে চিকিৎসকের বাসায় প্রেমিকার অনশন

স্ত্রীর মর্যাদা পেতে জেলার মধুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. অসিম কুমার দাসের হাসপাতাল কোয়ার্টারে দুই দিন ধরে অনশন করছেন তার প্রেমিকা রীতা রানী দাস। রোববার সন্ধ্যায় রীতা রানী মধুখালী হাসপাতাল কমপ্লেক্সের ভেতর আরএমও’র বাসায় পৌছলে খবর পেয়ে সেখান থেকে পালিয়ে যান অসিম। বিষয়টি রীতা রানী মধুখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ফরিদপুরের সিভিল সার্জনকেও জানিয়েছেন। আজ দুপুরে রীতা বাদী হয়ে মধুখালী থানায় একটি অভিযোগও দায়ের করেছেন। জানা গেছে, রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার সাঙ্গুরা গ্রামের মৃত নরেশ চন্দ্র দাশের কন্যা রীতা রানী দাসের (৩০) সঙ্গে বর্তমানে মধুখালী উপজেলার পশ্চিম গাড়াখোলার বাসিন্দা সুভাষ চন্দ্র দাসের পুত্র ডা. অসিম কুমার দাসের (৩২) ছোট বেলা থেকেই মন দেয়া নেয়ার সম্পর্ক চলে আসছে। এর মাঝে স্কুল, কলেজ, ইউনিভার্সিটিতে দু’জনেই পড়া- লেখা শেষ করে গত ২০০৮ সালের ২রা জুলাই ঢাকায় নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। পরবর্তীতে ৯ জুলাই রমনা কালী মন্দিরে হিন্দু প্রথা অনুযায়ী পুনরায় তাদের বিবাহ হয়। অসিম এমবিবিএস পাশ করার পর চাকুরীর সুবাদে নিজ এলাকা মধুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যোগদান করে। আর রিতা ইডেন কলেজ থেকে মার্ষ্টাস শেষ করে ঢাকায় একটি কোম্পানীতে যোগদান করে। বিয়ের কথা মেয়ের পরিবার মেনে নিলেও ছেলের পরিবার এ বিয়ে মেনে নেয়নি। অনশনরত প্রেমিকা রীতা রানী দাস জানান, আমাদের দু’জনের বিয়ে আমার পরিবার মেনে নিলেও অসিমদের পরিবার এই বিয়ে মেনে নেয়নি বরং অসিমকে অন্যত্র বিয়ে দেওয়ার জন্য পাত্রী খুঁজছে অনেক আগে থেকেই। রীতা কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, আমার বাবা বেচে নেই, আমার আপন কোন ভাই নেই, আপনারাই আমার ভাই আমার এই বিপদের দিনে আপনারা আমার পাশে দাড়ান, আমাকে আমার স্ত্রীর মর্যাদা ফিরিয়ে দিতে সাহায্য করুন। আমি যদি অসিমের স্ত্রীর মর্যাদা না পাই তাহলে আত্মহত্যা করা ছাড়া আমার কোন পথ খোলা থাকবে না। আজ দুপুরে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ডা. অসিমের বাসায় গিয়ে দেখা যায়, তার বিছানার উপর রীতা ও তার মা অসহায় অবস্থায় বসে আছে। রীতা গতকাল সন্ধ্যা হ’তে কিছু না খাওয়ায় অসুস্থ্য হয়ে পড়েছেন। এ বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. খালেদ মাহমুদ জানান, ডা. অসিমের বাসায় একটি মেয়ে এসে উঠেছে খবর পেয়েছি। কিন্তু কি বিষয়ে এসেছে তা জানিনা। মধুখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ মোহসিনুল হক জানান, হাসপাতাল কর্তৃপ আমাকে বিষয়টি জানিয়েছে। মেয়েটির নিরাপত্তার কথা ভেবে হাসপাতাল কোয়ার্টারে সার্বনিক পুলিশি পাহারার ব্যবস্থা করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিরাজুল ইসলাম উকিল জানান, আমি সকালে হাসপাতাল কোয়ার্টারে গিয়ে মেয়েটির সঙ্গে কথা বলেছি। তাকে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছি, যাতে করে সে সুবিচার পায়।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট