Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

নগরকান্দায় কবরস্থান থেকে ১২টি কঙ্কাল চুরি

কবর খুঁড়ে লাশ চুরি। একটি, দু’টি নয়- ১২টি কবর খুঁড়ে লাশের কঙ্কাল নিয়ে গেছে চোররা। ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর ধুতরাহাটি গ্রামের মানুষ কাঁদতে কাঁদতে আসতে থাকে গ্রামের শেষ মাথায় কবরস্থানের দিকে, খুঁজতে থাকে স্বজনের লাশ। যাদের আপনজনের কবর খুঁড়ে কঙ্কাল নেয়া হয়েছে, শূন্য কবরের পাশে দাঁড়িয়ে কাঁদতে থাকেন তারা, যেন এই মাত্র মারা গেছে তাদের আপনজন। চুরি হওয়া ১২টি কবরে চিরনিদ্রায় শায়িতদের সন্তানদের, আপনজনদের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। ধুতরাহাটি গ্রামে এক অন্যরকম শোক। ধুতরাহাটি গ্রামের ইউপি সদস্য তৈয়ব বলছিলেন, গ্রামের যারা কবরে শায়িত পিতা-মাতা, ছেলে সন্তানের কবর জিয়ারত করে একটু দোয়া করে নিজের অন্তরে শান্তি পেতেন হতভাগ্য ওই লোকগুলোর সে ভাগ্যও থাকলো না।
গতকাল শনিবার দুপুর ১২টার দিকে স্থানীয় গ্রামবাসী ওই কবরস্থান সংলগ্ন একটি জঙ্গল থেকে চুরি হওয়া কঙ্কালের বস্তাভর্তি হাড় উদ্ধার করে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে, শনিবার দুপুর ১২টার দিকে গ্রামের কয়েকজন কৃষক কবরস্থান এলাকায় বিশ্রাম নেয়ার সময় নতুন ও পুরনো মোট ১২টি কবর খালি দেখতে পায়। এতে কবরস্থানের লাশ ও কঙ্কাল চুরির বিষয়টি তারা অনুমান করে। খোঁজাখুঁজি করে কবরস্থান সংলগ্ন জঙ্গল থেকে একটি বস্তায় ভর্তি ৩টি মাথার খুলি, হাত, পা, পাঁজর সহ শরীরের অন্যান্য অংশের হাড় উদ্ধার করে। নগরকান্দা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এর সত্যতা নিশ্চিত করেছে। নগরকান্দা থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন মানবজমিনকে বলেন, ঘটনা শোনার পর আমি ধুতরাহাটি গ্রামে পুলিশ পাঠিয়েছিলাম, ঘটনা সত্য। এলাকার কয়েকজন কৃষক মাঠে কাজ শেষে দুপুরে কবরস্থানের গাছের ছায়ায় বিশ্রাম নেয়ার সময় কয়েকটি কবর খালি দেখে তারা আশপাশে খোঁজাখুঁজি করে বস্তায় ভর্তি কিছু হাড় ও মাথার খুলি পায়। ওই হাড় ও মাথার খুলি জব্দ করা হয়েছে।
ধুতরাহাটি গ্রামের কবরস্থান থেকে লাশ চুরির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন তালমা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফিরোজ খান। তিনি বলেন, ওই গ্রামের লোকজন আমাকে কবরস্থান থেকে লাশ চুরির কথা জানিয়েছে। কবরস্থান থেকে লাশ চুরির ঘটনায় তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তালমা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি তৈয়েবুর রহমান জানান, ঘটনা শোনার পর আমি ধুতরাহাটি গ্রামে গিয়ে দেখতে পাই কবরস্থানের ১২টি কবরের কঙ্কাল নেয়া হয়েছে আরও ২টি কবর খোঁড়া হয়েছে। কিন্তু লাশ পচেনি বলে নেয়নি। কবরস্থান থেকে কঙ্কাল চুরির ঘটনায় এলাকার মানুষ উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, এমন জঘন্য ঘটনা খুঁজে বের করতে হবে। গ্রামের যে সব বাড়ির মৃত লোকদের কঙ্কাল চুরি হয়েছে সে সব বাড়িতে আবার নতুন করে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট