Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

সংবিধান সংশোধনের ঘোষণা এলেই সংলাপ: মওদুদ

ঢাকা, ২৯ মে: যে নামেই হোক নির্দলীয় সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচনের জন্য প্রধানমন্ত্রী আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিলেই বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোট এ বিষয়ে সংলাপে অংশ নিবে বলে জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ।

তিনি বলেন, ‘‘অন্যথায় সংলাপের দরজা খুলবে না।”

মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩১তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আলোচনা সভার প্রধান অতিথি হিসেবে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া উপস্থিত থাকলেও তিনি কোনো বক্তব্য রাখেন নি। তিনি দর্শক সারিতে বসা ছিলেন।

ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, “জনগণকে বিভ্রান্ত করতে অন্তবর্তী সরকারের কথা বলছে সরকার। প্রধানমন্ত্রী বলছেন তাদের অধীনেই আগামি জাতীয় নির্বাচন হবে। অন্যদিকে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলছেন, অন্তবর্তী সরকারের বিষয়ে বিরোধী দলের সঙ্গে আলোচনা হতে পারে। এর ফলে জনগণের মধ্যে ধূম্রজালের সৃষ্টি হচ্ছে।”

সরকারের এ ধরনের বক্তব্য বিএনপি প্রত্যাখান করেছে দাবি করে তিনি বলেন, “যে নামেই হোক নির্দলীয় সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচনের জন্য সংলাপ বা সমঝোতায় আমরা প্রস্তুত। অন্যথায় এ আন্দোলন চলবে।”

তিনি বলেন, ‘‘একদিন দেশের গণতন্ত্র রক্ষায় প্রধানমন্ত্রী বলবেন সংবিধান সংশোধন করতে তিনি প্রস্তুত।”

সদ্য কারামুক্ত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এম কে আনোয়ার বলেন, ‘‘বিএনপি কোনো বিকল্প প্রস্তাব দিবে না। বরং সরকারকেই সংসদে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বিকল্প প্রস্তাব উত্থাপন করতে হবে। তবে নির্দলীয় সরকার ছাড়া আগামিতে কোনো নির্বাচন হবে না।’’

স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য ড. আবদুল মঈন খান বলেন, ‘‘শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ভোগবাদের রাজনীতি বাদ দিয়ে ত্যাগের রাজনীতি করেছেন।’’ তাই যতই ষড়যন্ত্র হোক তার নাম এদেশ থেকে মুছে ফেলা যাবে না।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ড. এমাজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘‘আওয়ামী লীগ জিয়াউর রহমানকে রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে না মানলেও তাকে শ্রদ্ধা করা উচিত। কারণ ৭৫ পরবর্তী রাজনৈতিক পট পরিবর্তনে আওয়ামী লীগের পুন:জন্মে জিয়াউর রহমানের অবদান রয়েছে।’’

সাবেক সচিব আসাফ-উদ-দৌলা বলেন, ‘‘৩৫ বছরের চাকরি জীবনে জিয়াউর রহমানের মতো দক্ষ, দেশপ্রেমী ও দূরদর্শীতা সম্পন্ন রাষ্ট্রপতি আমি দেখি নি। তার মতো আর একজন রাষ্ট্রপতি পেলে বাংলাদেশকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হবে না।’’

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বিচারপতি টি এইচ খানের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লে: জে: মাহবুবুর রহমান, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর মনিরুজ্জামান মিঞা, দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমান।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট