Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

কারাগারে আটক পাঁচ এমপির জামিন

ঢাকা, ২৭ মে: হরতালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সামনে গাড়ি পোড়ানো মামলায় আটক জোট নেতাদের মধ্যে পাঁচ এমপির ছয় মাসের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত।

রোববার হাই কোর্টের বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহসানের সমন্বয়ে গঠিত হাই কোর্ট বেঞ্চ তাদের জামিন দেন।

অন্যদিকে আদালত এ মামলায় সাদেক হোসেন খোকা ছাড়া অন্য আসামিদের কেন জামিন দেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে সরকারের প্রতি রুলও জারি করেছেন। সাদেক হোসেন খোকার জামিন শুনানি সোমবার দুপুর ২টায় অনুষ্ঠিত হবে।

জামিন পাওয়া পাঁচ সংসদ সদস্য হলেন: বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য এমকে আনোয়ার, এলডিপি চেয়ারম্যান কর্নেল অব. অলি আহমেদ, ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, বিএনপির ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী ও বিজেপির চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ।

গত বুধবার জামিন আবেদন নাকচ করে বিচারিক আদালতের দেওয়া আদেশের বিরুদ্ধে রোববার সকালে হাই কোর্টে পৃথক নয়টি আবেদন করেন তাদের আইনজীবীরা।

১৮ দলীয় জোট নেতাদের জামিন আবেদনের পক্ষে আইনি লড়াই অংশ নেন সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিক-উল হক, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, খন্দকার মাহবুব হোসেন ও জয়নুল আবেদীন প্রমুখ।
গত ৭ মে হরতালে গাড়ি পোড়ানোর ও সচিবালয়ে ককটেল বিস্ফোরণে দুটি মামলায় অভিযুক্ত বিএনপিসহ ১৮ দলীয় জোট নেতাদের জামিন আবেদন করলে বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও নজরুল ইসলাম তালুকদারের বেঞ্চ বিভক্ত আদেশ দেন।

উভয় মামলায় পৃথক শুনানি শেষে দেয়া আদেশে কনিষ্ঠ বিচারপতি আগামী সাত দিনের মধ্যে অভিযুক্তদের নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন।

একই সঙ্গে আইন-শৃঙখলা বাহিনীকে এই সাত দিনের মধ্যে অভিযুক্ত নেতাদের গ্রেফতার বা কোনো ধরনের হয়রানি না করারও নির্দেশ দেন। অপরদিকে জেষ্ঠ্য বিচারপতি চার্জশিট না হওয়া পর্যন্ত জামিন মঞ্জুর করেন।

হাই কোর্টের উক্ত বেঞ্চে বিভক্ত আদেশ দেয়ার পর স্বাভাবিকভাবেই তা প্রধান বিচারপতির কাছে চলে যায় একক বেঞ্চ অর্থাৎ তৃতীয় বেঞ্চে শুনানির জন্য নির্ধারিত করে দেন প্রধান বিচারপতি। তাই গত ১০ মে বৃহস্পতিবার বিকালে প্রধান বিচারপতি মো. মোজাম্মেল হোসেন তৃতীয় বেঞ্চ নিধারিত করে দেন।

হাইকোর্টের ওই একক বেঞ্চে বিএনপি নেতাদের বিষয়ে গেজগাঁও থানার গাড়ি পোড়ানের মামলায় নিন্ম আদালতে আত্ম-সমর্পণ ও শাহবাগ থানার ককটেল ফাটিয়ে বিস্ফোরক আইনের মামলায় জামিন দেন চার্জ গঠনের আগ পর্যন্ত।

১৩ মে রোববার তেজগাঁও থানায় দায়ের করা গাড়ি পোড়ানোর মামলার বিষয়ে ১৬ মের মধ্যে নিন্ম আদালতে আত্মসমর্পণের আদেশ দেয়। পরদিন সোমবার অন্য একটি মামলায় চার্জ গঠন না করা পর্যন্ত জামিন দেয়। মামলাটি ছিল বিস্ফোরণের ঘটনায় শাহবাগ থানায় দায়ের করা যে মামলায় চার্জশিট না দেয়া পর্যন্ত বিএনপি নেতাদের জামিন মঞ্জুর করেছিল হাই কোর্ট।

গত ২৯ এপ্রিলের হরতালে সচিবালয়ে ককটেল বিস্ফোরণ এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এলাকায় গাড়ি ভাঙচুর ও গাড়িতে অগ্নিসংযোগের অভিযোগে দায়ের করা পৃথক দুই মামলায় সোমবার সকালে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবসহ ১৮ দলীয় জোট নেতাদের জামিনের আবেদন জানান ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

শাহবাগ থানার মামলায় মির্জা ফখরুলসহ ২৮ জনকে আসামি করা হয়েছে।

মির্জা ফখরুল ছাড়াও এ মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, সাদেক হোসেন খোকা, আ স ম হান্নান শাহ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, যুগ্ম মহাসচিব আমান উল্লাহ আমান, রুহুল কবির রিজভী, ঢাকা মহানগরের সদস্য সচিব আবদুস সালাম, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, রেহানা আখতার রানু, সৈয়দা আসিফা আশরাফি পাপিয়া, শাম্মী আখতার, রম্নহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, যুবদলের সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাইফুল আলম নিরব, স্বেচ্ছাসেবক দলের হাবিব উন নবী খান সোহেল, ছাত্রদলের সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, এলডিপির সভাপতি ড. অলি আহমেদ, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) সভাপতি আন্দালিব রহমান পার্থসহ ২৮ জনকে আসামি করা হয়েছে।

অন্যদিকে তেজগাঁও থানার মামলায় আসামি করা হয়েছে মির্জা ফখরুলসহ মোট ৪৪ জনকে।

এ মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, মির্জা ফখরুল, এম কে আনোয়ার, হান্নান শাহ, সাদেক হোসেন খোকা, রুহুল কবির রিজভী, অলি আহমেদ, খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও জামায়াতের আমির মকবুল আহমেদের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ নির্দেশনায় আসামিরা হরতালের সময় এই ঘটনা ঘটিয়েছে।

এ মামলার অন্য আসামিরা হচ্ছেন,গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আমান উল্লাহ আমান, মাহবুব উদ্দিন খোকন, ফজলুল হক মিলন, রম্নহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, নাজিম উদ্দিন আলম, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, কামরম্নজ্জামান রতন, সাইফুল আলম নিরব, হাবিব উন খান সোহেল, মীর শরাফত আলী সুপু, সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, ইসলামী ছাত্র শিবিরের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন সাঈদী, বাংলাদেশ জাতীয় পাটির চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থ, ন্যাশনাল পিপলস পাটির্র সভাপতি শেখ শওকত হোসেন নিলু ও জাতীয় গণতান্ত্রিক পাটির সভাপতি শফিউল আলম প্রধানসহ প্রায় অর্ধশত নেতা

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট